kalerkantho


জোরার সঙ্গে ভালো আছেন তাঁরা!

এ এস শরিফুল   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



জোরার সঙ্গে ভালো আছেন তাঁরা!

বয়স বাড়লে নানা কারণে অনেককেই বৃদ্ধাশ্রমে আশ্রয় নিতে হয়। স্বজনের জন্য উদগ্রীব হয়ে থাকেন তাঁরা, কিন্তু অনেক সময় দিনের পর দিন চলে যায়, কারো দেখা মিলে না।

এমন বৃদ্ধদের কথা চিন্তা করেই ফ্রান্সের একটি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এনেছে বিশেষ রোবট জোরা। শিশুর মতো রোবটটি বৃদ্ধদের সঙ্গ দেওয়ার পাশাপাশি তাঁদের দেখভালও করছে। সম্প্র্রতি জোরাকে নেওয়া হয়েছিল প্যারিসের একটি বৃদ্ধাশ্রমে। সেখানে সে বৃদ্ধদের পরম প্রিয় হয়ে ওঠে। অনেকেই তাকে নিজের আপনজন ও বন্ধু ভাবতে শুরু করে! আশ্রমের বেশির ভাগ বাসিন্দার সঙ্গেই জোরার আবেগী সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাঁদের সঙ্গে সে ছোট্ট শিশুর মতোই বিভিন্ন ধরনের কথা বলত। হাত ধরে হেঁটে বেড়াত। বৃদ্ধদের স্বাস্থ্যেরও খোঁজখবর রাখত জোরা। তাই প্রায়ই অনেকে জোরার ধাতব মাথায় চুমুও খেতেন। অনেক হাসপাতালে স্মৃতিভ্রংশসহ মানসিক সমস্যায় ভোগা রোগীদের জন্যও জোরাকে ডাকা হচ্ছে। জোরাকে মূলত ল্যাপটপ দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। অপারেটর আড়ালে থাকেন বলে সে যার কাছে যায় তিনি বুঝতে পারেন না রোবটটিকে কেউ নিয়ন্ত্রণ করছেন। অপারেটর ল্যাপটপে টাইপ করে যে কথাবার্তা লিখে দেন, জোরা সেসবই বলে। অনেক সময় সে ছোট্ট মানবশিশুর মতো দৌড়াদৌড়ি করে বা খেলে বয়োজ্যেষ্ঠ কিংবা রোগীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। জোরার পরিচালক সোফি রিফল্ট বলেন, জোরা কাউকে কোনো ওষুধ দেয় না। তবে সে বন্ধুর মতো অনেকের রক্তচাপ পরীক্ষা, বিছানার চাদর পাল্টে দেওয়ার মতো কাজগুলো করে। এর মাধ্যমে সে একজন রোগীকে ব্যস্ত রাখে।

বেলজিয়ামভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান একই ধরনের এক হাজার রোবট যুক্তরাষ্ট্র, এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের স্বাস্থ্যসেবাকেন্দ্রগুলোয় বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে।



মন্তব্য