kalerkantho


‘আউট’ হয়েও ব্যাটিংয়ে স্টোকস

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



‘আউট’ হয়েও ব্যাটিংয়ে স্টোকস

ফিফটি করার পরপরই আউট। বেন স্টোকস মাঠ ছেড়েছিলেন ইনিংসটা টেনে নিতে না পারার হতাশায়। তাঁকে সমবেদনা জানিয়ে ক্রিজে নেমেছিলেন জনি বেয়ারস্টো। ড্রেসিংরুমে বসে কিছুটা আনমনে স্টোকস। হঠাৎ খেয়াল করলেন ফিরে আসছেন বেয়ারস্টো। তাহলে কি প্রথম বলে আউট এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান? আম্পায়ার করছিলেন ‘নো’ বলের ইঙ্গিত। স্টোকস ভাবলেন হয়তো বল ‘নো’ হওয়ায় বেঁচে গেছেন বেয়ারস্টো। তখনই তাঁর কাঁধে হাত রেখে ইংলিশ ব্যাটিং কোচ মার্ক রামপ্রকাশ জানালেন, ‘ক্রিজে যাও, তুমি আউট নও। আলজারি জোসেফের বলটা নো ছিল।’ বিস্মিত স্টোকস আবারও নামলেন ক্রিজে! এভাবেও প্যাভিলিয়নে ফিরে রক্ষা পাওয়া যায়?

গত পরশু ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ইংল্যান্ডের তৃতীয় টেস্টের প্রথম দিন সবচেয়ে আলোচিত এই ঘটনাই। ইংল্যান্ড ৪ উইকেট হারিয়ে ২৩১ রানে শেষ করেছে প্রথম দিন। বেন স্টোকস ৭০তম ওভারে ৫২ রানে আলজারি জোসেফের বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেও আবার মাঠে নামেন ‘নো’ বলের কারণে। এই ‘নো’ বলটা ধরা পড়েছে টিভি রিপ্লেতে মাঠের জায়ান্ট স্ক্রিনে। ২০১৭ সালের আগে এমন কিছু হলে মাঠে ফেরার উপায় ছিল না স্টোকসের। সে বছর এপ্রিলে করা ৩১.৭ ধারার সুবিধাটা পেলেন এই ইংলিশ অলরাউন্ডার। জনি বেয়ারস্টো কোনো বল না খেলায় আবারও নামার সুযোগ পান স্টোকস। তাই নিজেকে ভাগ্যবান মনে হচ্ছে স্টোকসের, ‘আমি কখনই মাঠ ছাড়ার পর ক্রিজে ফিরে আসিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে চারদিকে অনেক ক্যামেরা এখন, কোনো ব্যাটসম্যান ভুল আউটের শিকার হলে অবশ্যই তাঁকে ফেরানো উচিত। আমি সত্যিই ভাগ্যবান। বেয়ারস্টো মাঠ ছাড়ার সময় মনে হয়েছিল প্রথম বলে আউট হয়েছিল ও! ভাগ্যিস আউট হওয়ার ১৫-২০ মিনিট পর প্যাড খুলি আমি। তাই নামতে সময় লাগেনি।’

প্রথম দুই টেস্টে বিধ্বস্তই হয়েছিল ইংল্যন্ড। তাদের চারটি ইনিংস ৭৭, ২৪৬, ১৮৭ ও ১৩২। গত পরশুও ড্যারেন সামি স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ১০৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল সফরকারীরা। দুই ওপেনার জো বার্নস ও কেইটন জেনিংসকে ফেরান কিমো পল। বার্নস ২৯ ও জেনিংসের ব্যাট থেকে আসে ৮। ভালো শুরু করেও জো ডেনলি ২০ ও অধিনায়ক জো রুট ফেরেন ১৫ রানে। তবে পঞ্চম উইকেটে জস বাটলার ও বেন স্টোকসের অবিচ্ছিন্ন ১২৪ রানের জুটি গড়ে কাটিয়েছেন ধাক্কাটা। বাটলার ৬৭ ও স্টোকস অপরাজিত ৬২ রানে। ক্রিকইনফো

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড : প্রথম দিন শেষে, ৮৩ ওভার ২৩১/৪ (বাটলার ৬৭*, স্টোকস ৬২*, বার্নস ২৯; পল ২/৪২, গ্যাব্রিয়েল ১/৪৪)।



মন্তব্য