kalerkantho


পন্টিংয়ের ফেভারিট অস্ট্রেলিয়া

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



পন্টিংয়ের ফেভারিট অস্ট্রেলিয়া

পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অল্পবিস্তর শুরু হলেও বেশির ভাগ দলেরই পাকিস্তান সফরে যেতে ঘোর আপত্তি। কিছুদিন আগে এসিসির ইমার্জিং এশিয়া কাপের কিছু ম্যাচ হয়েছে পাকিস্তানে। শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো দলও পাকিস্তানে খেলতে গিয়েছে। তাই পিসিবি আশা করেছিল, মার্চে ৫ ওয়ানডের সিরিজের দুটি ম্যাচ খেলতে অস্ট্রেলিয়া রাজি হবে পাকিস্তানে আসতে। কিন্তু তা হয়নি। নিরাপত্তাহীনতার কথা জানিয়ে গোটা সিরিজটাই সংযুক্ত আরব আমিরাতে আয়োজন করার জন্য পিসিবিকে বাধ্য করেছে অস্ট্রেলিয়া। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ান সরকারেরই সতর্কবার্তা আছে পাকিস্তান ভ্রমণের ব্যাপারে। যে কারণে ১৯৯৮ সালের পর থেকে কোনো অস্ট্রেলিয়ান দল পাকিস্তান সফর করেনি। গভীর হতাশা জানিয়ে ম্যাচগুলো দুবাই, শারজাহ ও আবুধাবিতে আয়োজনের কথা জানিয়েছেন পিসিবি প্রধান জাকির খান। অন্যদিকে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিংকে সহকারী কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। সীমিত ওভারের ক্রিকেটের ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্স বাড়াবার জন্য কাজ করবেন ‘পান্টার’। শুক্রবার দায়িত্ব নেওয়ার পর পন্টিং সাংবাদিকদের জানালেন নিজের লক্ষ্যের কথা। সেই সঙ্গে জানিয়েছেন, ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথকে ফিরে পেলে এখনকার চেয়ে আরো ভালো দল হয়ে উঠবে অস্ট্রেলিয়া।

‘যখন আমরা ওয়ার্নার এবং স্মিথকে ফিরে পাব, তখন বিশ্বকাপের দিকে তাকালে কাগজে-কলমে আমাদের দলের চেয়ে ভালো দল খুব বেশি থাকবে না’—এমনটাই জানিয়েছেন পন্টিং। খেলোয়াড় হিসেবে জিতেছেন ১৯৯৯ বিশ্বকাপ, অধিনায়ক হিসেবে জিতেছেন দুটি বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের ফাইনালের মঞ্চে, অধিনায়ক হিসেবে অন্যতম সেরা ইনিংসটাও পন্টিংয়ের। ১৯৯৯ সালে যেখানে প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছিলেন স্টিভ ওয়াহর নেতৃত্বে, দুই দশক পর সেখানেই শিরোপা ধরে রাখার মিশনে অস্ট্রেলিয়াকে প্রস্তুত করার দায়িত্ব তাঁর ওপর। পন্টিং মনে করছেন, বিশ্বকাপ জয়ের জন্য যে বারুদ থাকা দরকার একটা দলে, সেটা আছে এই অস্ট্রেলিয়ায়। বিশ্বকাপকে সামনে রেখেই ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলবে অস্ট্রেলিয়া। পাকিস্তান সফরের প্রথম ওয়ানডে ২২ মার্চ, শারজাহতে। এরপর ২৪ মার্চও একই ভেন্যুতে দ্বিতীয় ওয়ানডে। তৃতীয় ওয়ানডে আবুধাবিতে, পরের দুটি দুবাইতে। এএফপি

 

 



মন্তব্য