kalerkantho


মধুর হারের স্মৃতি উসকে দেওয়া ম্যাচ

২৪ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



মধুর হারের স্মৃতি উসকে দেওয়া ম্যাচ

পঞ্জিকার পাতা বলবে, ৮ বছর পেরিয়ে গেছে। ফুটবলপ্রেমীরা বলবে, এই তো সেদিনের কথা! সময়টা ২০১০ সাল। চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনাল, সান সিরোতে প্রথম লেগটা ৩-১ গোলে জিতে হোসে মরিনহোর ইন্টার মিলান ফিরতি লেগে এসেছিল ন্যু ক্যাম্পে। দ্বিতীয় লেগটা বার্সেলোনা জিতেছিল ১-০ গোলে, তবে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ গোলের হার কাতালানদের, হয়নি টানা দুটো ফাইনালে খেলা। চ্যাম্পিয়নস লিগ যুগে প্রথম দল হিসেবে শিরোপা ধরে রাখার কৃতিত্বটা ফসকে যায় একটুর জন্য। এ ম্যাচের পরই মরিনহো বলেছিলেন, ‘আমার মধুরতম হার’। গত ৮ বছরে বার্সেলোনা ছুঁয়েছে হিমালয়ের উচ্চতা আর ইন্টার মিলান কাটিয়েছে একের পর এক হতাশার মৌসুম। ২০১১-১২-র পর এবারই তারা ফিরল চ্যাম্পিয়নস লিগে আর গ্রুপ পর্বেই তাদের দেখা হয়ে যাচ্ছে বার্সেলোনার সঙ্গে, যাদের হারিয়ে ফাইনালে ওঠাটা তাদের এই আসরের সেরা স্মৃতিগুলোর একটি।

সেভিয়ার বিপক্ষে লিগের ম্যাচে চোট পেয়ে লিওনেল মেসি মাঠের বাইরে চার সপ্তাহের জন্য। তাঁর জায়গাটা কে নেবেন, সেটা নিয়েই যত জল্পনা-কল্পনা। তাঁর জায়গায় সম্ভাব্য বিকল্প হিসেবে শোনা যাচ্ছে উসমান দেম্বেলের নাম। তবে স্প্যানিশ পত্রিকা মার্কা বলছে অন্য নামও আছে তার ভাবনায়। একাদশ সাজানোয় মেসির জায়গাটা পেতে পারেন এমন অন্য নামগুলো হচ্ছে রাফিনহা, মুনির এল হাদিদি, ম্যালকম, কার্লেস আলেনা ও সের্গি রবার্তো। দেম্বেলের খুঁত, তিনি প্রায়ই ভুল বিকল্পটা বাছেন। পাস করার সময় শট করেন, শট করার সময় পাস বাড়ান। রাফিনহা বাঁ পায়ের খেলোয়াড়, তবে তিনি ভালো ড্রিবলারও নন আর গোলদাতাও নন। ম্যালকমের গতি থাকলেও ভালভের্দে তাঁকে খুব একটা কাজে লাগাচ্ছেন না আর কার্লেস বি দলে মেসির জায়গায় খেললেও চ্যাম্পিয়নস লিগে বোধ হয় তাঁকে নিয়ে ঝুঁকিটা নেবেন না কোচ। মেসিকে ছাড়া ইন্টারের বিপক্ষে জিতেছিল বার্সেলোনা, সেই ২০১০ সালেই। গ্রুপ পর্বে, জিততেই হবে এমন একটা পর্যায়ে ইন্টারের বিপক্ষে ম্যাচ বার্সেলোনার। মেসিকে ছাড়াই পিকে ও পেদ্রোর গোলে জিতেছিল কাতালানরা। সব মিলিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে ৬ ম্যাচে বার্সার জয় ৩, ইন্টারের ১ আর ড্র হয়েছে ২টি ম্যাচ। এবারের ম্যাচটায় অবশ্য দুই দলই বেশ চাপমুক্ত। প্রত্যেকেই দুটো করে ম্যাচ জিতে ৬ পয়েন্ট করে কামিয়েছে। হারজিতে অবস্থান পাল্টালেও কারোরই বোধ হয় গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়াটা আটকাবে না।

লিভারপুলের সামনে রেড স্টার বেলগ্রেড। এদের নিয়েই পাতানো ম্যাচের একটা গুঞ্জন উঠেছিল। পিএসজির ৬ গোল দেওয়ার ম্যাচটা নিয়ে খানিকটা কথাবার্তা শোনা গেছে। অ্যানফিল্ডে বড় ব্যবধানে হারলে ফের কথা উঠবে না তো! নাপোলির সঙ্গে পিএসজির ম্যাচটা বরং গুরুত্বপূর্ণ বেশি। মৃত্যুকূপ হয়ে ওঠা সি গ্রুপটা থেকে শেষ ষোলোর পথ খোলা রাখতে আজ হারলে চলবে না পিএসজির। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ খেলবে বুন্দেসলিগার শীর্ষ দলের বিপক্ষে। তবে দলটার নাম বায়ার্ন মিউনিখ নয়, বরুশিয়া ডর্টমুন্ড! একই গ্রুপে ক্লাব ব্রুজে খেলবে মোনাকোর বিপক্ষে। অন্য গ্রুপে মুখোমুখি পোর্তো-লোকোমোটিভ আর গ্যালাতাসারেই-শালকে। উয়েফা, মার্কা

আজ মুখোমুখি

পিএসভি-টটেনহাম

বার্সেলোনা-ইন্টার মিলান

ক্লাব ব্রুজে-মোনাকো

ডর্টমুন্ড- অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ

লিভারপুল-রেড স্টার বেলগ্রেড

পিএসজি-নাপোলি

গ্যালাতাসারেই-শালকে

লোকোমোটিভ মস্কো-পোর্তো



মন্তব্য