kalerkantho


তৃতীয় দিনে দাপট বোলারদের

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



তৃতীয় দিনে দাপট বোলারদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : দুই দিন পেরিয়ে যাওয়ার পর মাঠে গড়িয়েছে জাতীয় লিগের চলমান পর্বের দুটি ম্যাচ। তাতে অভাবিত কিছু না ঘটলে ম্যাচ দুটির নিষ্পত্তির সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে বাকি দুটি ম্যাচের সামনে ড্রয়ের সঙ্গে নিষ্পত্তির পথও খোলা রয়েছে। প্রথম স্তরের ম্যাচে রংপুরের বিপক্ষে খুলনা ১৭০ রানে থেকে শুরু করছে আজ শেষ দিনের ম্যাচ। শেষ ৪ উইকেটকে পুঁজি করে দ্রুত কিছু রান তুলে চ্যালেঞ্জ জানাতেও পারে রংপুরকে। আবার বিপরীত কিছু ঘটাও অসম্ভব নয়। তবে আপাতদৃষ্টিতে ড্রয়ের সম্ভাবনাই যেন একটু বেশি। বগুড়ায় আরো সুবিধাজনক অবস্থানে ঢাকা মেট্রো। চট্টগ্রামের বিপক্ষে এরই মধ্যে ২৪২ রানে এগিয়ে থাকা মেট্রোর হার এড়ানোর নিশ্চয়তা দিতে অপেক্ষায় আছেন দলটির আরো চার ব্যাটসম্যান। এরপর হয়তো ম্যাচ বাঁচানোর লড়াইয়েই নামতে হবে চট্টগ্রামকে।

 

আগামীকাল সফররত জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়েছে সৌম্য সরকারকে। তাই খুলনা থেকে ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে তাঁকে। তবে তার আগে অলরাউন্ড নেপুণ্যে খুলনাকে স্বস্তি এনে দিয়েছেন এ বাঁহাতি। ব্যাটে জোড়া সেঞ্চুরির (৭৬ ও ৭১) সুযোগ মিস করা সৌম্য মিডিয়াম পেস বোলিংয়ে নিয়েছেন ৫ উইকেট। তাতে দপ করে নিভে গেছে রংপুরের বড় ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। সফরকারী দলের মাত্র ৯ রানের অগ্রগামিতায় কৃতিত্ব রয়েছে খুলনার উইকেটরক্ষক নুরুল হাসানেরও। পাঁচটি ক্যাচ নিয়েছেন তিনি। দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নামা খুলনাকে বড় ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্নই দেখাচ্ছিলেন সৌম্য ও তুষার ইমরান। কিন্তু সৌম্য ফিরতে দ্রুত আরো একজোড়া উইকেট খুইয়ে খুলনা এখন তাকিয়ে তুষারের ব্যাটের দিকে। আরেকটি সেঞ্চুরির অপেক্ষায় আছেন তিনি।

তরুণ অফস্পিনার নাঈম হাসানের কৃতিত্বে ঢাকা মেট্রোর দ্বিতীয় ইনিংস তৃতীয় দিনে ৬ উইকেটে ১৯১ রানে আটকেও স্বস্তিতে নেই চট্টগ্রাম। তাসকিন আহমেদের ৫ উইকেট শিকারের ধাক্কায় যে ২৩৬ রানেই গুটিয়ে যায় চট্টগ্রাম। তাতে ২৪২ রানে এগিয়ে থাকায় বগুড়ার পরিস্থিতি ‘অ্যাডভান্টেজ ঢাকা মেট্রো’।

তৃতীয় দিনে এসে কক্সবাজারে শুরু হওয়া সিলেট ও ঢাকা বিভাগের মধ্যকার দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচটির একমাত্র আকর্ষণ জাকির হোসেন ও রাজিন সালেহর সেঞ্চুরির অপেক্ষা। গতকাল পুরো দিন ব্যাটিং করেছে সিলেট। তাতে ২ উইকেটে সিলেটের ২২৯ রানই বলে দিচ্ছে ম্যাচের সম্ভাব্য পরিণতি। তবে বরিশাল বিভাগীয় স্টেডিয়ামে ব্যাটসম্যানদের ত্রাহি মধুসূদন অবস্থা! তৃতীয় দিনে শুরু হওয়া ম্যাচে এক দিনেই পতন ঘটেছে ১৯ উইকেট। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ১৩৩ রানে গুটিয়ে গেছে বরিশালের প্রথম ইনিংস। জবাবে ১২৫ রানে ৯ উইকেট খুইয়ে হাসতে পারছে না রাজশাহীও।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বরিশাল-রাজশাহী

বরিশাল ৪৬ ওভারে ১৩৩/১০ (নুরুজ্জামান ৩৮, আল আমিন ৩১, ফরহাদ ৪/৩০, মুক্তার ২/৩১, তাইজুল ২/৪২)।

রাজশাহী ৩৮ ওভারে ১২৫/৯ (মুক্তার ব্যাটিং ৩৫, সাব্বির ৩১, সোহাগ ৩/১৯, মনির ২/১৫, তানভীর ২/৩৮, কামরুল ২/৪৫)।

খুলনা-রংপুর

খুলনা ৩০২ ও ৪৮.৪ ওভারে ১৮১/৫ (সৌম্য ৭১, তুষার ব্যাটিং ৬৩, মাহমুদুল ২/১৮)।

রংপুর ১১৪ ওভারে ৩১৫/১০ (তানবীর হায়দার ৬৭*, সৌম্য ৫/৬১, আল আমিন হোসেন ৪/৬৭)।

ঢাকা মেট্রো-চট্টগ্রাম

মেট্রো ২৮৭ ও ৭০ ওভারে ১৯১/৬ (সাদমান ৬২, সৈকত ৪০, শামসুর ব্যাটিং ৩১, নাঈম ৫/৯৯)।

চট্টগ্রাম ৯২ ওভারে ২৩৬/১০ (তাসামুল ১১৬, তাসকিন ৫/৬৭, আরাফাত সানি ২/৫৩, শহিদুল ২/৫৬)।

ঢাকা-সিলেট

সিলেট ৮৪ ওভারে ২২৯/২ (জাকির ব্যাটিং ৮৪, রাজিন ব্যাটিং ৬৪)।



মন্তব্য