kalerkantho


মনোবিদও থাকছেন অনুশীলন শিবিরে

১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



মনোবিদও থাকছেন অনুশীলন শিবিরে

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন শিবির শুরু হচ্ছে আজ। সকালে শুরু সাড়ে তিন ঘণ্টার স্কিল সেশনের পর দুপুরে থাকছে স্ট্রেন্থ অ্যান্ড কন্ডিশনিং এবং ফিল্ডিং সেশনও। অদল-বদল করে টানা চার দিনের অনুশীলনের মধ্যে থাকছে মনোবিদের সেশনও।

 

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জিম্বাবুয়ে সিরিজ সামনে রেখে মুশফিকুর রহিমসহ কয়েকজন গত কিছুদিন ধরেই অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়ে চলেছেন। তবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন শিবির শুরু হচ্ছে আজ। সকালে শুরু সাড়ে তিন ঘণ্টার স্কিল সেশনের পর দুপুরে থাকছে স্ট্রেন্থ অ্যান্ড কন্ডিশনিং এবং ফিল্ডিং সেশনও। অদল-বদল করে টানা চার দিনের অনুশীলনের মধ্যে থাকছে মনোবিদের সেশনও। ১৭ অক্টোবর দুপুরে তিন ঘণ্টার সেশনে নানা মানসিক দিকে সহযোগিতা করার জন্য ক্রিকেটারদের নিয়ে বসবেন কানাডাপ্রবাসী বাংলাদেশি মনোবিদ আলী আজহার খান।

তিনি অবশ্য নতুন কেউ নন। এর আগেও বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের নিয়ে কাজ করে গেছেন তিনি। নানা কারণেই আবার এ রকম কারো প্রয়োজনীয়তার কথা বিসিবির পরিচালনা পর্ষদের সবশেষ সভার পর বলেছিলেন সভাপতি নাজমুল হাসানও। সেই সভায় মাঠের বাইরে অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের জন্য ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ সাব্বির রহমান ইস্যুতেই মূলত উঠেছিল মনোবিদ আনার প্রসঙ্গ। তবে মাঠের বাইরে ক্রিকেটারদের বিশৃঙ্খল জীবনযাপনসহ তাঁদের ব্যক্তিগত ও পারিবারিক সমস্যাই শুধু নয়, আলী আজহার কাজ করবেন মাঠে চাপের মুখে ক্রিকেটারদের ভেঙে পড়ার ব্যাপারটি নিয়েও। কারণ বড় ম্যাচে এই সমস্যাই জয়ের খুব কাছ থেকেও ফিরিয়ে আনে বাংলাদেশকে।

এসব কিছু নিয়ে কাজ করার জন্য আলী আজহারকে আনা হচ্ছে বলে কাল সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির প্রধান আকরাম খান, ‘বাংলাদেশ দলের সঙ্গে একজন মনোবিদ যোগ দিচ্ছেন। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ দলকে তিনি ছয়-সাত দিন সময় দেবেন। ১৭ তারিখ বসবেন আলী আজহার। যেহেতু উনি বাংলাদেশি, তাই ওনার সঙ্গে বোঝাপড়ার ব্যাপারে সুবিধাই হবে আমাদের ক্রিকেটারদের। উনি খুব ব্যস্ত ছিলেন, অনেক অনুরোধ করে তাঁর সময় নিয়েছি। ১৭ তারিখ থেকে তিনি ক্রিকেটারদের সঙ্গে থাকবেন এবং ওদের নিয়ে সেশন করবেন।’ বিভিন্ন সময়ে অবশ্য আলী আজহার ছাড়াও আরো বেশ কয়েকজন মনোবিদ কাজ করেছেন বাংলাদেশ দলের সঙ্গে। সাবেক হেড কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহের সময় যেমন এসেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান মনোবিদ ফিল জোন্সি। আকরাম জানিয়েছেন, খেলোয়াড়রা উপকৃত হলে প্রয়োজনে আবারও আনা হবে আলী আজহারকে।



মন্তব্য