kalerkantho


মেসির ভোট রোনালদোর বাক্সে

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



একে অন্যের খেলোয়াড়ি সামর্থ্যে কুর্ণিশ করেন বরাবর। কিন্তু শ্রেষ্ঠত্ব মেনে নেননি কখনো। এমনকি বিশ্বসেরা তিন খেলোয়াড়ের একজন হিসেবেও না। পর্তুগাল ও আর্জেন্টিনার অধিনায়ক হিসেবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকে তাই কখনো ভোট দেননি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো কিংবা লিওনেল মেসি।

সে ধারায় এবার ছেদ টানলেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। ‘ফিফা দ্য বেস্ট’-এর বিজয়ী নির্ধারণে তিনজনকে ভোট দেওয়ার সুযোগ ছিল তাঁর। সেখানে প্রথম পছন্দ লুকা মডরিচ, দ্বিতীয় কিলিয়ান এমবাপ্পে আর তৃতীয়তে রোনালদো। পর্তুগিজ অধিনায়ক অবশ্য রয়েছেন আগের মতোই। সেরা তিনে মেসিকে রাখেননি যথারীতি। তাঁর প্রথম ভোট রাফায়েল ভারান, দ্বিতীয় মডরিচ ও তৃতীয় আতোয়ান গ্রিয়েজমান।

মেসির সেরা তিনে রোনালদোকে রাখাটা অবশ্যই চমক। মডরিচ-এমবাপ্পেকে রাখাটাও কম নয়। কারণ ২০১১ সালে আর্জেন্টিনার অধিনায়ক হওয়ার পর থেকে তো বিশ্বসেরা খেলোয়াড়ের এই ভোট দিয়ে আসছেন। আগের সাত বছরে নিজ দেশ আর্জেন্টিনা ও নিজ ক্লাব বার্সেলোনার বাইরে কাউকে সেরা তিনে রাখেননি। সেখানে এবারের তিনজনই বাইরের। এর মধ্যে মডরিচ তো চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের। আর রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে আলবিসেলেস্তেদের বিদায়ের মূল কারিগর ছিলেন এমবাপ্পে। তবু তাঁদের সেরা তিনে রাখতে দ্বিধা করেননি মেসি।

প্রথমজনের জন্য পাঁচ পয়েন্ট, দ্বিতীয়র জন্য তিন এবং তৃতীয়র জন্য এক—এই হচ্ছে ভোটের নিয়ম। সেখানে অন্যান্য পরাশক্তি জাতীয় দলের অধিনায়কদের পছন্দটাও দেখে নেওয়া যাক। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের অধিনায়ক উগো লরির সেরা তিনের সবাই জাতীয় দলের সতীর্থ—যথাক্রমে ভারান, গ্রিয়েজমান ও এমবাপ্পে। রানার্স-আপ ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক মডরিচ তো আর নিজেকে ভোট দিতে পারেন না। তবে জাতীয় দলের কাউকেও রাখেননি। তাঁর তিনে যথাক্রমে ভারান, রোনালদো ও গ্রিয়েজমান। ব্রাজিল অধিনায়ক জোয়াও মিরান্দার ভোট রোনালদো, এমবাপ্পে ও মেসিতে। বিশ্বকাপ সেমিফাইনালিস্ট বেলজিয়াম অধিনায়ক হ্যাজার্ডের ভোট মডরিচ-ভারান-এমবাপ্পেতে।

ভোট ছিল বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়ারও। তিনি সেরা তিনে রেখেছেন যথাক্রমে রোনালদো, মেসি ও মডরিচকে। আর কোচ জেমি ডের পছন্দ রোনালদো, এমবাপ্পে ও গ্রিয়েজমান। এএফপি



মন্তব্য