kalerkantho



রিয়ালের জয় ম্যানসিটির হার

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



রিয়ালের জয় ম্যানসিটির হার

এক রাতেই কত কত ঘটনা! ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদের নতুন মৌসুম শুরু স্বচ্ছন্দ জয়ে। ওই শিরোপা খোঁজে থাকা পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটির শুরু পরাজয়ে। বায়ার্ন মিউনিখ, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মতো পরাশক্তি জিতেছে আয়েশে। তবে সব কিছু ছাপিয়ে গেছে ভ্যালেন্সিয়া-জুভেন্টাস দ্বৈরথ। যেখানে নতুন ক্লাবের হয়ে ইউরোপসেরা ক্লাব টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই লাল কার্ড দেখেছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। সে ধাক্কা সামলে নিয়েও ঠিকই স্পেন থেকে জয় নিয়ে ফিরেছে ইতালিয়ান ক্লাবটি।

চ্যাম্পিয়নস লিগের রাতগুলো এমন ঘটন-অঘটনে রঙিন না হলে কি হয়!

এই চ্যাম্পিয়নস লিগ রোনালদোর প্রিয় প্রতিযোগিতা। সর্বশেষ পাঁচ মৌসুমে চারবার শিরোপা জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ; তাতে সাকল্যে ৬০ গোল তাঁর। মৌসুমপ্রতি গড়ে ১৫ গোল করে। শুধু শুধুই তো তাঁকে অনেকে ‘মিস্টার চ্যাম্পিয়নস লিগ’ বলেন না। ওদিকে জুভেন্টাস ঘরোয়া ফুটবলে টানা দাপট দেখালেও চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে পারছে না কিছুতেই। রিয়াল ছাড়ার পর জুভেন্টাসে রোনালদোর যোগদানকে রাজযোটক হিসেবেই দেখা হচ্ছিল। অথচ টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই যে লাল কার্ড দেখতে হলো পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ীকে।

ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে ততক্ষণে জুভেন্টাসের আধিপত্য প্রতিষ্ঠিত। মারিও মান্দজুকিচ, স্যামি খেদিরারা সহজতম সুযোগগুলো মিস না করলে এগিয়ে যাওয়ার কথা তাদের। ম্যাচের ২৯তম মিনিটে ভ্যালেন্সিয়া ডিফেন্ডার জেইসন মুরিয়োর সঙ্গে ঠোকাঠুকি হয় রোনালদোর। বল ছাড়াই। রেফারির চোখে পড়েনি তা। গোললাইনের পেছনে থাকা সহকারীর দেখায় সরাসরি লাল কার্ড দেখিয়ে দেন সিআরসেভেনকে। বিস্ময় আর হতাশায় চোখের পানিতে মাঠ ছাড়েন রোনালদো। ওই ডিফেন্ডারের মাথায় হাত স্পর্শের অপরাধে লাল কার্ডের শাস্তিটা বড্ড বাড়াবাড়ি।

রোনালদোসহ যে জুভেন্টাস প্রথম আধঘণ্টায় গোল করতে পারেনি, পরের এক ঘণ্টায় তারাই করল দুই গোল। দুটিই পেনাল্টি থেকে, দুবারই গোলদাতা মিরালেম পিয়ানিচ। রোনালদোকে হারালেও পয়েন্ট হারানোর অস্বস্তি নিয়ে তাই খেলা শেষ করতে হয়নি জুভেন্টাসকে। এই ‘এইচ’ গ্রুপের আরেক খেলায় সুইজারল্যান্ডের ক্লাব ইয়াং বয়েজকে ৩-০ গোলে হারায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। দুই গোল করে এবং অ্যান্থনি মার্সিয়ালকে দিয়ে আরেক গোল করিয়ে ‘রেড ডেভিল’দের জয়ের নায়ক পল পগবা।

রিয়াল মাদ্রিদকে যে দুশ্চিন্তায় একেবারেই ফেলতে পারেনি রোমা। প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে ইসকোর ফ্রিকিকে এগিয়ে যায় রিয়াল। দ্বিতীয়ার্ধের ১৩তম মিনিটে গ্যারেথ বেলের গোল। আর ইনজুরি সময়ে বদলি হিসেবে নামা মারিয়ানো দিয়াসের লক্ষ্যভেদ। ইউলেন লোপেতেগির দলের চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের অভিযান শুরু হলো দাপুটে জয়ে।

‘এফ’ গ্রুপে ম্যানচেস্টার সিটি হেরে গেছে অলিম্পিক লিঁওর কাছে। প্রথমার্ধে ম্যাক্সওয়েল ও নাবিল ফেকিরের গোলে এগিয়ে যায় ফরাসি ক্লাবটি। দ্বিতীয়ার্ধে বের্নার্দো সিলভা ব্যবধান কমালেও পরাজয় এড়াতে পারেননি। টাচলাইনের নিষেধাজ্ঞায় গ্যালারিতে বসেই ম্যানসিটির এ হতাশাজনক পরাজয়ের সাক্ষী কোচ পেপ গার্দিওলা। গ্রুপের অন্য খেলায় ২-২ গোলে ড্র করেছে শাখতার দনেত্স্ক- হফেনহেইম।

‘ই’ গ্রুপে প্রত্যাশিত জয়ে শুরু বায়ার্ন মিউনিখ ও আয়াক্সের। রবার্ত লেভানদোস্কি ও রেনাতো সানচেসের গোলে বেনফিকার বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে জয় বায়ার্নের। আর নিকোলাস তাগলিয়াফিকোর জোড়া গোলের সঙ্গে দনি ফন দি বিকের লক্ষ্যভেদে এইকে এথেন্সকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়েছে আয়াক্স। এএফপি



মন্তব্য