kalerkantho


বার্সেলোনার ম্যাচের সঙ্গে লিভারপুল-পিএসজি

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বার্সেলোনার ম্যাচের সঙ্গে লিভারপুল-পিএসজি

চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বশেষ তিন মৌসুমেই কোয়ার্টার ফাইনালে বাদ বার্সেলোনা। ভাবা যায়! সেই তিন মৌসুমেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের শিরোপা জয় যেন কাটা ঘায়ে নুনের ছিটা। এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগে তাই অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে বার্সেলোনার প্রতিজ্ঞা বেশি। জিততেই হবে ওই ট্রফি। নু ক্যাম্পে ফিরিয়ে আনতে হবে ইউরোপ-শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা। আজ পিএসভির বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বার্সার সেই অভিযান।

শুধু বার্সা কেন, চ্যাম্পিয়নস লিগের নতুন মৌসুমই তো শুরু হচ্ছে আজ। যেখানে গেলবারের রানার্স-আপ লিভারপুরের প্রথম ম্যাচেই অগ্নিপরীক্ষা। নেইমার-কাভানি-এমবাপ্পের প্যারিস সেন্ট জার্মেইর মুখোমুখি হওয়া বলে কথা! ইন্টার মিলান-টটেনহাম হটস্পার, মোনাকো-আতলেতিকো মাদ্রিদের মতো আরো কিছু জমজমাট লড়াইয়ে পর্দা উঠছে আজ ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের এই আসরের।

আগ্রহটা বেশি অবশ্যই বার্সেলোনার ম্যাচ নিয়ে। সর্বশেষ চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে রোমার কাছে যেভাবে হেরেছে তারা, বেদনার সেই ক্ষতে সময়ও প্রলেপ দিতে পারছে কই! প্রথম লেগে ৪-১ গোলে জিতে সেমিফাইনালে তো দেড় পা দিয়েই রেখেছিল এর্নেস্তো ভালভেরদের দল। দ্বিতীয় লেগে ০-৩ গোলে হেরে অ্যাওয়ে গোলের নিয়মে যে ছিটকে পড়বে—ঘুণাক্ষরেও ওই আশঙ্কা কথা প্রকাশ পায়নি। অথচ হলো ঠিক তাই। সে কারণে ঘরোয়া ফুটবলে লিগ ও কোপা দেল রে শিরোপার দ্বিমুকুট জিতেও বার্সেলোনা ক্যাম্পে উৎসবের আলো যেন জ্বলেনি সেভাবে। এবার ঝাড়বাতির রোশনাই ফেরানোর চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞা নিয়েই তাই চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু করছে তারা।

গেল ১০ বছরের মধ্যে সাতবারই লিগ জিতেছে বার্সেলোনা। তাতে যে এবারের জয়ের চেষ্টায় খামতি থাকবে, তা নয়। তবে মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকবে চ্যাম্পিয়নস লিগ। গতবার রোমার বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগের তিন দিন আগে স্প্যানিশ লিগের ১৪ নম্বরে থাকা লেগানেসের বিপক্ষে যেমন ৯০ মিনিট খেলেছিলেন মেসি-সুয়ারেসরা, এবার তেমনটা হবে না নিশ্চিতভাবে। রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে সর্বশেষ লিগ ম্যাচের প্রথম একাদশ থেকে যেমন বিশ্রাম পেয়েছিলেন সের্হিয়ো বুশকেত্জ ও ফিলিপে কৌতিনিয়ো। যেন পিএসভির বিপক্ষে আজকের গ্রুপ ‘বি’-র ম্যাচে সতেজ অবস্থায় পাওয়া যায় তাঁদের। চ্যাম্পিয়নস লিগে মূল মনোযোগ রেখে মৌসুমের বাকিটা সময় বাকি অভিজ্ঞদেরও কোচ ভালভারদে ব্যবহার করবেন রয়েসয়ে। এ প্রতিযোগিতা যে জিততেই হবে তাঁদের। কয়েক দিন আগের এক সাক্ষাত্কারে সে আকুতি ফুটে ওঠে মেসির কণ্ঠেও, ‘গত তিন মৌসুমে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বাদ পড়েছি। এর মধ্যে সর্বশেষবারেরটি সবচেয়ে জঘন্য। এবার আমাদের সময় এসেছে আবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার। সে সামর্থ্য আমাদের স্কোয়াডের রয়েছে।’

‘বি’ গ্রুপের আরেক ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে ইন্টার মিলান ও টটেনহাম। ২০১০-১১ মৌসুমের পর এই প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগের মূল পর্বে খেলবে ইতালিয়ান ক্লাবটি। যদিও ফর্মটা ঠিক পক্ষে নেই। সিরি ‘এ’-র চার ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ১৫ নম্বরে পড়ে রয়েছে দলটি। অথচ লিগ শুরুর আগে ধারণা করা হচ্ছিল, ইতালিতে জুভেন্টাসের আধিপত্যে চিড় ধরাতে পারার সামর্থ্য রয়েছে ইন্টারের। সেটি পারছে না, এর মধ্যেই মুখোমুখি টটেনহামের। গেল মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের গ্রুপ থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল যারা। নকআউট পর্বে জুভেন্টাসের মাঠ থেকে ২-২ ড্রতে ফিরেও দ্বিতীয় লেগে আর পারেনি। ইংলিশ লিগের এই দলের বিপক্ষেই আজ চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রত্যাবর্তনের ম্যাচ ইন্টার মিলানের।

রাতের সবচেয়ে বড় মহারণ গ্রুপ ‘সি’-তে। যেখানে অ্যানফিল্ডে গেলবারের ফাইনালিস্ট লিভারপুল মুখোমুখি হবে পিএসজির। লড়াইটা হবে দুই দলের ফরোয়ার্ড লাইনের। যেখানে লিভারপুলের মো সালাহ, রবের্তো ফিরমিনো, সাদিও মানের ত্রিফলার জবাব দেবার প্রতিশ্রুতি পিএসজির নেইমার, এদিনসন কাভানি, কিলিয়ান এমবাপ্পের ত্রিশূলের। গতবার নক আউট পর্বের শুরুতেই রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছিল ফরাসি ক্লাবটি। এবার তো টিকে থাকার উত্তপ্ত লড়াই শুরু গ্রুপ পর্ব থেকেই। এ গ্রুপের আরেক দল যে নাপোলি! সে কারণে গতবার ফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছলেও এবার স্বস্তিতে শুরুর উপায় নেই ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের। ইংলিশ লিগে নতুন মৌসুমের পাঁচ ম্যাচের পাঁচটিতেই জিতেছে লিভারপুল; ফরাসি লিগে পিএসজিও তাই। সব মিলিয়েই অ্যানফিল্ডের হাওয়ায় আজ ধ্রুপদী দ্বৈরথের পূর্বাভাস। গ্রুপের অন্য খেলায় রেড স্টার বেলগ্রেডের বিপক্ষে খেলবে নাপোলি।

এ ছাড়া আজ ‘এ’ গ্রুপে মোনাকো আতিথ্য দেবে আতলেতিকো মাদ্রিদকে; ক্লাব ব্রুজের মাঠে গিয়ে খেলবে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। ‘ডি’ গ্রুপে মুখোমুখি হবে গালাতেসারেই-লোকোমোটিভ মস্কো এবং শালকে-পোর্তো। এএফপি



মন্তব্য