kalerkantho


এনরিকের স্পেনের দারুণ শুরু

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



এনরিকের স্পেনের দারুণ শুরু

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর নতুন কোচ লুইস এনরিকের অধীনে এটি আক্ষরিক অর্থেই স্পেনের নতুন যুগের সূচনা। তা কী দুর্দান্তই না হলো! উয়েফা নেশনস লিগে ওয়েম্বলিতে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে।

 

ইংল্যান্ডের জন্য এটি নতুন যুগের শুরু নয়। কোচ হিসেবে সেই গ্যারেথ সাউথগেটই রয়েছেন আর ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল পর্যন্ত খেলার সাফল্যকে পুঁজি করে প্রস্তুতি শুরু ২০২২ সালের। তাদের জন্য এটি ধারাবাহিকতা রক্ষা মাত্র। স্পেনের জন্য তা মোটেও নয়। বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর নতুন কোচ লুইস এনরিকের অধীনে এটি আক্ষরিক অর্থেই নতুন যুগের সূচনা। তা কী দুর্দান্তই না হলো! উয়েফা নেশনস লিগে ওয়েম্বলিতে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে।

লিগ ‘এ’-র এই দ্বৈরথে শুরুতে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরাই। ১১তম মিনিটে লুক শর পাসে বল জালে দেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সতীর্থ মার্কাস রাশফোর্ড। তবে ইংল্যান্ড অগ্রগামিতা ধরে রাখতে পারেনি দুই মিনিটের বেশি। রদ্রিগোর কাট ব্যাকে সাউল নিগেজ সমতায় ফেরান স্পেনকে। আর ৩২তম মিনিটে থিয়াগোর ফ্রিকিকে বুদ্ধিদীপ্ত দৌড়ে বলের দিক পরিবর্তন করে জালের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেন রদ্রিগো। বাকি সময়ে আর কোনো গোল হয়নি। রাশফোর্ডের দারুণ দুটি প্রচেষ্টা আরো দারুণভাবে রুখে দেন দাভিদ দি গেয়া। আর ইনজুরি সময়ে ড্যানি ওয়েলব্যাক বল জালে পাঠালেও এর ঠিক আগে আগে স্পেনের গোলরক্ষককে ফাউল করায় বেজে ওঠে রেফারির বাঁশি। যদিও তা ফাউল হয়েছিল কি না, এ নিয়ে বিতর্কের অবকাশ যথেষ্ট।

প্রথম ম্যাচ জেতায় দারুণ উচ্ছ্বসিত এনরিকে। ম্যাচ শেষে তাঁর প্রতিক্রিয়ায় তা স্পষ্ট, ‘আমি খুব আনন্দিত। অবশ্যই উন্নতির অনেক জায়গা রয়েছে। আমার কাছে সবচেয়ে ভালো লেগেছে ছেলেদের মানসিকতা। তৃতীয় গোল করতে পারলে যে জয়ের সম্ভাবনা বাড়বে, সেটি। আশা করছি এ মানসিকতা সব সময় থাকবে। আর এমন জয় কে না উপভোগ করে! সম্ভাব্য সবচেয়ে ভালোভাবেই আমরা শুরু করলাম। যদিও জানি, ফুটবলে বর্তমানটাই মুখ্য, অন্য কিছু না।’ সেই বর্তমানে ইংল্যান্ডকে হারানোর তৃপ্তি অধিনায়ক সের্হিয়ো রামোসেরও, ‘প্রচুর অভিজ্ঞতাসম্পন্ন কোচের অধীনে নতুন যুগ শুরু করলাম আমরা। আর সেই শুরু ওয়েম্বলিতে জয়ের চেয়ে ভালো আর কিছু হতে পারে না।’

বিশ্বকাপের সময় নিজ দেশে সমালোচনায় বিদ্ধ ছিলেন দি গেয়া। পরশু দারুণ কিছু সেভ করা এই গোলরক্ষকের পাশে থাকার ঘোষণা কোচ এনরিকের, ‘ওকে নিয়ে আমার কখনোই সংশয় ছিল না। কিছু ভুল হয়তো করেছে, যা সব গোলরক্ষকই করে। ও দুর্দান্ত ফুটবলার, এই ম্যাচেও যা দেখিয়েছে আবার। যদি সংখ্যা ও পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেন, তাহলে দি গেয়া বিশ্বের এক নম্বর গোলরক্ষক।’ ইংল্যান্ডের আফসোসের জায়গা আবার এখানেই। ইনজুরি সময়ে ওয়েলব্যাকের গোলের সময় ফাউল হয়নি বলে দাবি অধিনায়ক হ্যারি কেনের, ‘ড্যানি ওকে মোটেও ফাউল করেনি। এমন সময়ে রেফারিদের উচিত শক্ত হয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত দেওয়া। দুর্ভাগ্যজনকভাবে উনি তা করতে পারেননি; বরং তালগোল পাকিয়ে ফেলেছেন।’

উয়েফা নেশনস লিগে পরশুর অন্যান্য খেলায় সুইজারল্যান্ড ৬-০ গোলে আইসল্যান্ডকে, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২-১ গোলে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডকে, ফিনল্যান্ড ১-০ গোলে হাঙ্গেরিকে, গ্রিস একই ব্যবধানে এস্তোনিয়াকে, বেলারুশ ৫-০ গোলে সান মারিনোকে এবং লুক্সেমবার্গ ৪-০ গোলে মলদোভাকে হারিয়েছে। এএফপি, মার্কা



মন্তব্য