kalerkantho


সংক্ষিপ্ত

বিপদে ইংল্যান্ড

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



লেগ সাইডে বলটা ঠেলে দৌড়ে ১ রান নিতে চেয়েছিলেন জো রুট। খানিকটা ইতস্তত করলেন, এই ফাঁকে মোহাম্মদ সামি সরাসরি থ্রোতে ভেঙে ফেলেছেন স্টাম্প। থার্ড আম্পায়ার দেখে জানালেন আউট। বেন স্টোকসের সঙ্গে রুটের সম্ভাবনাময় জুটির অপমৃত্যু, হাফ সেঞ্চুরি থেকে ২ রান দূরে থাকতেই ইংল্যান্ড অধিনায়কের বিদায়। রোজ বোলে তৃতীয় দিন শেষে স্বস্তিতে নেই ইংল্যান্ড, শেষ বলে আদিল রশিদের উইকেট হারানোতে বেড়েছে বিপদের মাত্রা। দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২৬০ রান। লিড ২৩৩ রানের, হাতে মাত্র ২ উইকেট।

চেতেশ্বর পূজারার বীরত্বে ৮ উইকেটে ১৯৫ থেকে ২৭৩ রানে পৌঁছেছিল ভারত। এই বাড়তি রানগুলোরই মাসুল দিচ্ছে স্বাগতিকরা। ভারতীয় ইনিংসের লেজটা দ্রুত ছেঁটে ফেলতে পারলে লিড হতে পারত ২০০ রানের কাছাকাছি। চতুর্থ ইনিংসে ২৫০ রানও তোলা কঠিন বটে, তবে সেই লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছতেও তো ইংল্যান্ডের আরো খানিকটা পথ বাকি। ব্যাট হাতে সেই পথ পাড়ি দিয়ে যত দূর পারা যায় এগিয়ে নেওয়ার গুরুদায়িত্ব দুই মূল বোলার স্টুয়ার্ট ব্রড ও জেমস অ্যান্ডারসনের।

বিনা উইকেটে ৬ রান নিয়ে দিন শুরু করে ইংল্যান্ড, অ্যালিস্টার কুক আর কিটন জেনিংসের জুটিটা ভাঙে মাত্র ১৮ রান যোগ করেই। বুমরাহর বলে ১২ রানে আউট কুক। ইশান্তের বলে ৯ রান করে বিদায় নেন মঈন আলী আর ৩৬ রান করে সামির বলে বিদায় জেনিংসের। একই ওভারে, ৪ বল পর ০ রানে ফিরে যান জনি বেয়ারস্টোও। সর্বোচ্চ ৬৯ রানের ইনিংস এসেছে জস বাটলারের ব্যাট থেকে। একই ওভারে দুই উইকেট নিয়ে আর রুটকে রান আউট করে ভারতকে ম্যাচে টিকিয়ে রেখেছেন সামিই। শেষ বলে আদিল রশিদকেও বিদায় করেছেন তিনি। ক্রিকইনফো

স্কোর : তৃতীয় দিন শেষে

ইংল্যান্ড : ২৬০/৮ (রুট ৪৮, বাটলার ৬৯; সামি ৩/৫৩) ও ২৪৬।

ভারত প্রথম ইনিংস : ২৭৩।



মন্তব্য