kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

ক্রিকেট থাকলে দুটি সোনাও জিততে পারতাম

১৮ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



ক্রিকেট থাকলে দুটি সোনাও জিততে পারতাম

আজ থেকে জাকার্তায় এশিয়ান গেমস শুরুর সময় নিশ্চিত দুটি পদক হাতছাড়া হওয়ারও হাহাকার আছে বাংলাদেশে। গত দুই গেমসে পুরুষরা একটি করে সোনা আর ব্রোঞ্জ এনে দেওয়া ক্রিকেটই যে নেই এবার। মেয়েদের ক্রিকেটেও গত দুই গেমসে এসেছে দুই রুপা। ক্রিকেট না থাকায় তাই পদকের সুযোগ বঞ্চনার কথাই কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে বললেন ২০১০-র গুয়ানজো গেমসে সোনাজয়ী বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার জালাল ইউনুস

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : এবার থেকে এশিয়ান গেমসে ক্রিকেট না থাকার ব্যাপারটিকে কিভাবে দেখছেন?

জালাল ইউনুস : দুঃখজনক তো অবশ্যই। ক্রিকেট থাকলে নিশ্চিতভাবেই পদক পেতাম আমরা। শুধু ছেলেদের কথাই বলছি না, হয়তো আমাদের মেয়ে ক্রিকেটাররাও দেশকে আরেকটি সোনার পদক এনে দিতে পারত। কারণ মেয়েরা এই মুহূর্তে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলছে।

প্রশ্ন : কিন্তু বিশ্বায়নের এই যুগে এশিয়ান গেমসের ডিসিপ্লিন থেকে ক্রিকেটের ছাঁটাই হয়ে যাওয়া নিশ্চয়ই খেলাটির জনপ্রিয়তাও বাড়াবে না?

জালাল : অবশ্যই না। এসব গেমসে অন্তর্ভুক্ত হলে খেলাটির আরো ছড়িয়ে পড়ার সুযোগ থাকে বেশি। কিন্তু দুইবারের পর এবার এশিয়ান গেমসে ক্রিকেট না থাকায় ব্যক্তিগতভাবে আমি হতাশই হয়েছি। একবার তো শুনেছিলাম যে ক্রিকেট অলিম্পিকেও ঢুকে যেতে পারে। কিন্তু সেই প্রক্রিয়াও আর পরে এগোল না। এগোলে ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা আরো বাড়তই। আমি মনে করি এ ক্ষেত্রে আইসিসির পক্ষ থেকে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার খুব দরকার ছিল।

প্রশ্ন : আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২০১০ এশিয়ান গেমস ক্রিকেটের ফাইনালের কথা ভাবলে সবার আগে কোন দৃশ্যটা চোখে বেশি ভাসে?

জালাল : সবার আগে তো জয়ের মুহূর্তটিই ভাসে। উইনিং শটটি যে কার ব্যাট থেকে এসেছিল, তা এখন মনে করতে পারছি না। তবে এটা মনে আছে যে জেতার সঙ্গে সঙ্গেই আমি পাগলের মতো দৌড়ে মাঠে চলে গিয়েছিলাম। ওই আনন্দের মুহূর্ত বলে বোঝানোর মতো নয়। 

প্রশ্ন : অনেক অনিশ্চয়তার পরই তো সেই মুহূর্তটি এসেছিল, তাই না?

জালাল : হ্যাঁ, ভীষণ রোমাঞ্চকর ম্যাচ ছিল সেটি। ওই সময়ের উদীয়মান শক্তি আফগানিস্তান যে একসময় টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের বড় শক্তি হয়ে উঠতে পারে, তখনই সেটি বোঝা যাচ্ছিল। ওদের বিপক্ষে রান তাড়া করতে নেমে এক পর্যায়ে আমরা বেশ কিছু উইকেট হারিয়ে ফেলি। এবং একসময় তো আমরা জেতার আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম। যদিও পরে মোহাম্মদ মিঠুন ও সাব্বির রহমানের মতো তরুণদের ব্যাটে আমরা সব অনিশ্চয়তা মুছে দিয়ে সোনা জিতি। যেটি এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের প্রথম এবং এখন পর্যন্ত একমাত্র সোনা। যেটি মাইলফলক ও ইতিহাস হয়ে থাকবে। এই মহামূল্য ঘটনার সঙ্গে টিম ম্যানেজার হিসেবে জড়িয়ে থাকতে পেরে আমিও কম গর্বিত নই।



মন্তব্য