kalerkantho


আর্জেন্টিনাকে হারিয়েই বিশ্বাস তৈরি হয় ফ্রান্সের

২১ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বকাপের মাঝেই বিদ্রোহ। আর্জেন্টাইন মিডিয়ায় রটে যায়, ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে হারের পর কোচ হোর্হে সাম্পাওলির সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়েছেন খেলোয়াড়রা। কেউ কেউ নাকি বিশ্বকাপের মাঝেই পদত্যাগ চাইছিলেন সাম্পাওলির। এটা যে গুজব নয়, নিশ্চিত করলেন টিওয়াইসি স্পোর্টসের সাংবাদিক আর ওলের কলাম লেখক আরিয়েল সেনোসিয়াইন। তাঁর বই ‘মুন্দিয়াল এস হিস্তোরিয়াস’-এ ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের পর সাম্পাওলির সঙ্গে খেলোয়াড়দের উত্তপ্ত সভার কথা উল্লেখ করেছেন এভাবে, “খেলোয়াড়রা কথা বলতে চাইছিল কোচ আর সহকারীদের সঙ্গে। সাম্পাওলি আসার পর কয়েকজন বলে ওঠে, ‘তোমার ওপর ভরসা রাখতে পারছি না আর।’ ক্ষুব্ধ ছিল মেসিও। সে বলছিল, ‘তুমি অন্তত ১০ বার বলেছ আমি কোন খেলোয়াড় পছন্দ করি আর কাদের করি না। আমি কখনোই তোমাকে কারো নাম বলিনি।’ ধীরে ধীরে সভার উত্তেজনা কমে আসে। কোচ সবার কথাই শুনছিলেন আর স্বাভাবিকভাবেই ভীষণ হতাশ হয়েছিলেন।”

এমন ব্যর্থতার মাঝেও মারাবেয়ায় লিওনেল মেসিদের জন্য বিশেষ পরিকল্পনা ছিল আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ), যা ফাঁসও হয়ে যায়! এটা জানার পর ১৯৭৮ বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন কোচ সিজার লুই মেনোত্তির ক্ষোভ, ‘আমার বিশ্বাসই হচ্ছিল না। মনে হচ্ছিল বন্দুক দিয়ে খুন করে ফেলি এএফএ সদস্যদের। লজ্জার ব্যাপারটা। এর চেয়ে নরকে যাওয়া ভালো কিংবা উরুগুয়েতে (আর্জেন্টিনার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশ) থাকা।’

ক্রোয়েশিয়ার কাছে হারের হতাশা ভুলে আর্জেন্টিনা ঘুরে দাঁড়ায় নাইজেরিয়ার বিপক্ষে। ম্যাচটা জিতে পা রাখে নক আউটে। কিন্তু পেরে ওঠেনি ফ্রান্সের কাছে। একটা সময় ১-২ গোলে পিছিয়ে পড়েও ম্যাচটা ৪-৩ গোলে জেতে ফ্রান্স। নিজেদের বিশ্বকাপ জয়ের পেছনে এই জয়টা আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে বলে জানালেন অধিনায়ক হুগো লরি, ‘রোলার কোস্টারের মতো ছিল ম্যাচটা। কখনো আর্জেন্টিনা দাপট দেখিয়েছে তো কখনো দেখিয়েছি আমরা। শেষ পর্যন্ত মেসিদের আমরা হারাই আর এটা আত্মবিশ্বাস বাড়ায় দলের। নক আউটে সব দলই কঠিন, কিন্তু মেসি আর আর্জেন্টিনার বিপক্ষে খুব ভালো খেলেছিলাম সেদিন।’ স্নায়ুর চাপ ধরে রেখে একটার পর একটা চ্যালেঞ্জ জিতে চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। এ জন্যই খুশিটা বেশি লরির, ‘আর্জেন্টিনাকে হারানোর পরও কাজ শেষ হয়ে যায়নি। একটার পর একটা চ্যালেঞ্জের সামনে পড়তে হয়েছে। আমরা হাল ছাড়িনি আর লড়াই করেই জিতেছি শিরোপা।’ মার্কা



মন্তব্য