kalerkantho


আর্জেন্টিনার খেলায় লজ্জিত ম্যারাডোনা

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



প্রতি ম্যাচেই মাঠে গেছেন বড় আশা নিয়ে। তাঁর সরব উপস্থিতিই বুঝিয়েছে তা। কিন্তু ভাঙা বুকেই ফিরতে হয়েছে বেশিদিন। আর্জেন্টিনা যে চার ম্যাচের মাত্র একটিতে জিততে পেরেছে। স্টেডিয়ামে দলের সাফল্য-ব্যর্থতায় উন্মাতাল ডিয়েগো ম্যারাডোনা টুর্নামেন্ট শেষে ‘লজ্জা’ ছাড়া আর কোনো প্রাপ্তি খুঁজে পাচ্ছেন না।

গত পরশু বেলারুশের ক্লাব ডায়নামো ব্রেস্টের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেওয়া আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি আলবিসেলেস্তেদের বিশ্বকাপ প্রসঙ্গে নিজের বিব্রতকর অনুভূতির কথা বলেছেন অকপটে, ‘বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার পরফরম্যান্স লজ্জা ছাড়া আর কিছুই দেয়নি আমাকে। খুব দুঃখ লেগেছে যখন দেখেছি দিশাহারার মতো খেলছে দলটি।’ বিশ্বকাপ শুরুই হয়েছে আর্জেন্টিনার ‘পুঁচকে’ আইসল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করে। পরের ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ের শঙ্কায় ছিল তারা। অনেক যদি-কিন্তুর হিসাব মিলিয়ে নাইজেরিয়াকে হারিয়ে শেষ পর্যন্ত নক আউট পর্বের টিকিট পায় হোর্হে সাম্পাওলির দল। পেলে কী হবে, দলের ছন্নছাড়া চেহারাটা বদলায়নি। ফ্রান্সের কাছে ৪-৩ গোলে হার তা-ই বলছে।

ম্যারাডোনা নিজে হোর্হে সাম্পাওলির কড়া সমালোচক ছিলেন। বিশ্বকাপে সেই মনোভাব একপাশে সরিয়ে রেখেই রাশিয়ায় প্রতি ম্যাচে গলা ফাটিয়েছেন দলের জন্য। যে লিওনেল মেসিকে নিয়ে আর্জেন্টাইনরা দ্বিধাবিভক্ত, ম্যাচের আগে সেই মেসির জার্সিতে চুমো খেতে দেখা গেছে ’৮৬-র নায়ককে। টুর্নামেন্টে ভরাডুবির পরও পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকাকে তিনি দুষছেন না, ‘আমি জানি মেসিকে তার ফুটবল সত্তার সঙ্গে এখন কেমন লড়াই চালাতে হচ্ছে। কিন্তু টুর্নামেন্টে তো ওকে পাস দেওয়ার মতোও কেউ ছিল না। আমি তাই দায় দিতে পারি না ওকে।’

আরব আমিরাতে কোচিং ক্যারিয়ারে বিরতি টেনে এখন ফুটবল প্রশাসকের ভূমিকায় নামছেন ম্যারাডোনা। বিশ্বকাপ শেষে দলগুলো যখন দেশে ফিরছে, তখনই তিনিও সদলবলে হাজির হয়েছেন বেলারুশে। সেখানে বিপুল সংবর্ধনাও পেয়েছেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি।  খেলোয়াড়রা মাঠে ঢোকার সময় মাটি ছুঁয়ে নেন, তেমনি বিমান থেকে নেমেই হাত দিয়ে বেলারুশের মাটি ছুঁয়ে দারুণ নাটকীয়ভাবেই শুরু করেছেন তিনি তাঁর নতুন অধ্যায়। আর্জেন্টিনা দলেও এর মধ্যে পরিবর্তন এসেছে, কোচ হোর্হে সাম্পাওলি দায়িত্ব ছাড়ছেন। আর্জেন্টিনার ফুটবলে এখন নতুন অধ্যায় দেখার অপেক্ষায়ও হয়তো ফুটবল ঈশ্বর। মেইলঅনলাইন



মন্তব্য