kalerkantho


বিশ্বকাপ শেষে আকাশছোঁয়া দাম

১৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বকাপ শেষে আকাশছোঁয়া দাম

ইউরোপিয়ান ক্লাবগুলো চাতক পাখির মতো চেয়ে থাকে বিশ্বকাপে। এই টুর্নামেন্টে আলো ছড়ানো তারকাদের পেতে শুরু হয় কাড়াকাড়ি। গত বিশ্বকাপ শেষেই গোল্ডেন শু জেতা হামেস রোদ্রিগেসকে সে সময়ের রেকর্ড চতুর্থ সর্বোচ্চ ট্রান্সফার ফিতে কিনেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এবার কিলিয়ান এমবাপ্পেকে পেতে আগ্রহী তারা। অধিনায়ক সের্হিয়ো রামোস মত দিয়েছেন হ্যারি কেইনের বদলে এমবাপ্পেকে কেনার। এ জন্য ২০০ মিলিয়ন ইউরো খরচ করতেও নাকি রাজি রিয়াল। এই তরুণ অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন পিএসজি না ছাড়ার কথা।

নেইমার বা এমবাপ্পে দল ছাড়বেন কি না জানা যাবে পরে। তবে বিশ্বকাপ মাতানো ক্রোয়েশিয়ান দুই তারকা ইভান পেরিসিচ ও আন্তে রেবিচকে ধরে রাখা কঠিন তাঁদের ক্লাবের। ক্রোয়াট মিডফিল্ডার পেরিসিচ খেলেন ইন্টার মিলানে আর উইঙ্গার রেবিচ ফ্রাংকফুর্টে। ২০১৩ সালে ক্রোয়েশিয়ান ক্লাব স্পিলিত থেকে ৪.০৫ মিলিয়ন পাউন্ডে ইতালির ফিওরেন্টিনায় আসেন রেবিচ। গত দুই মৌসুম ধারে খেলছেন জার্মানির ফ্রাংকফুর্টে। তিন সপ্তাহ আগে ১.৮ মিলিয়ন পাউন্ডে চুক্তি হয়ে গেছে পাকাপাকি। ইংল্যান্ডের দ্য সান জানিয়েছে, সেই রেবিচকে পেতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড প্রস্তাব পাঠিয়েছে ৪৪ মিলিয়ন পাউন্ডের। মানে তিন সপ্তাহে ২৩ গুণ লাভ হবে ফ্রাঙ্কফুর্টের! ইভান পেরিসিচকে অবশ্য অনেক দিন থেকে চাচ্ছিলেন হোসে মরিনহো। বিশ্বকাপ শেষে রেবিচের পাশাপাশি তাঁকেও ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে আনতে চলেছেন ম্যানইউ বস। এ জন্য ৭০ মিলিয়ন ইউরো দিতে আপত্তি নেই!

মেক্সিকোর হার্ভিং লোজানোকেও পছন্দ মরিনহোর। বিশ্বকাপের পর পিএসভির এই তারকাকে পেতে উঠেপড়ে লেগেছে টটেনহাম। বার্সেলোনা আর রিয়াল মাদ্রিদের আগ্রহ থাকলেও খোদ লোজানোর ইচ্ছে প্রিমিয়ার লিগে খেলার। এ জন্য টটেনহাম ৪০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব দিয়েছে পিএসভিকে। ২২ বছর বয়সী এই উইঙ্গারের গোলে এবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে হারায় মেক্সিকো। এ জন্য পিএসভি এত কমে ছাড়তে চায় না লোজানোকে। তাদের দাবি ৫০ মিলিয়ন ইউরো।

বিশ্বকাপের আগে ইংলিশ ডিফেন্ডার হ্যারি ম্যাগুয়েরকে চাইছিল ম্যানচেস্টার সিটি ও চেলসি। নক আউটে সুইডেনের বিপক্ষে গোলের পর লিস্টার সিটির এই সেন্ট্রাল ডিফেন্ডারকে নিয়ে কাড়াকাড়ি চলছে ইংল্যান্ডে। এই মৌসুমে রিয়াদ মাহারেজকে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে বিক্রি করেছে লিস্টার। তারা চ্যাম্পিয়নস লিগে না থাকায় ম্যাগুয়েরকে ধরে রাখা কঠিন। তাঁর দামও বেড়ে চলেছে চড়চড়িয়ে।

র‌্যাংকিংয়ে সবচেয়ে পিছিয়ে থেকে বিশ্বকাপ শুরু করা রাশিয়াকে নিয়ে খুব বেশি চাওয়া ছিল না কারো। সেই তারা স্পেনকে হারিয়ে পৌঁছে যায় কোয়ার্টার ফাইনালে। সোভিয়েত ইউনিয়ন ভাঙার পর রাশিয়ার সেরা পারফর্ম্যান্স এটা। এর অন্যতম কারিগর ২২ বছর বয়সী মিডফিল্ডার আলেক্সান্দার গোলোভিন। নিজে করেছেন দুই গোল, করিয়েছেন আরেকটি। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর পর গোলোভিনকে এখন পেতে চায় জুভেন্টাস। সিএসকেএ মস্কো তাঁকে বিক্রি করে লাভ করতে পারে কয়েক গুণ ইউরো। এপি



মন্তব্য