kalerkantho


সালাহর বিপক্ষে সতর্ক থাকবে রাশিয়া

সাইফুল বারী, লিখছেন কালের কণ্ঠে   

১৯ জুন, ২০১৮ ০০:০০



রাশিয়ার প্রথম ম্যাচের ফরমেশনই আমাদের অবাক করেছে। ভেবেছিলাম ওরা পাঁচ ব্যাক নিয়ে খেলবেই ৫-৪-১-এ বা ৫-৩-২-তে। কিন্তু ওরা ৪-২-৩-১-এ খেলল দারুণ আক্রমণাত্মক মানসিকতা নিয়ে। ওদিকে সৌদি আরব খেলল খুব বাজে। তবে আজকের প্রতিপক্ষ মিসর একেবারেই ভিন্ন। মোহামেদ সালাহকে ছাড়া কিন্তু তারা যথেষ্টই ভালো খেলেছে উরুগুয়ের বিপক্ষে। এই ম্যাচটি তাই রাশিয়ার জন্য কঠিন হবে। কঠিন চ্যালেঞ্জ মিসরেরও, কারণ প্রথম ম্যাচে অমন দারুণ জয়ে রাশিয়া এখন খুবই চাঙ্গা।

এর পরও আজ যেহেতু সালাহর খেলার সম্ভাবনা রয়েছে, রাশিয়া তাতে সতর্ক থাকবে। পাঁচ ব্যাক দেখা যেতে পারে আজ। প্রথম ম্যাচ থেকে যেহেতু পূর্ণ পয়েন্ট পাওয়া হয়ে গেছে তাদের, তাতে করে এই ম্যাচে ড্র-টাও ভালো ফল হবে রাশিয়ার জন্য। ওদিকে মিসর স্বাভাবিকভাবেই পূর্ণ পয়েন্টের জন্য ঝাঁপাবে। ওরা ৪-২-৩-১-এই খেলবে। ট্রানজিশন মোমেন্টে কে কতটা ভালো করে তাতেই ম্যাচের ফল নির্ধারিত হবে। মিসর দল হিসেবে খুবই কমপ্যাক্ট। রাশিয়া ওপরে উঠে বল হারালে কুইক কাউন্টারে সালাহকে কাজে লাগিয়ে তারা গোল বের করে ফেলতে পারবে। সৌদি আরবের বিপক্ষে রাশিয়ার ডিফেন্সের পরীক্ষাটা হয়নি, এই ম্যাচে হবে। আমি কিছুটা হলেও এই ম্যাচে তাই মিসরকেই এগিয়ে রাখছি।

হামেস রোদ্রিগেসের কলম্বিয়া আজ প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে জাপানের বিপক্ষে। রোদ্রিগেস ফর্মে আছে, চোটের কারণে গত বিশ্বকাপটা খেলতে না পারা রাদামেল ফ্যালকাওকেও দেখব এবার। হোল্ডিং মিডফিল্ডে এবেল আগুইলার ও কার্লোস সানচেস অনেক দিন ধরে খেলছে। ওরা এবারও কতটা সার্ভিস দিতে পারে দেখার আছে। কলম্বিয়া যেহেতু উইং ব্যাকদের কাজে লাগায় আক্রমণে, ওদের ওপর তাই ডিফেন্স কাভার করার দায়িত্বটা থাকে। এই বিশ্বকাপে যে ধারাটা এখনো পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে তা হলো ডিফেন্স বা মিডফিল্ডে একটু ধীরগতি থাকলেই প্রতিপক্ষ কুইক কাউন্টার অ্যাটাকে তাদের বিপদে ফেলছে। কলম্বিয়াও সেভাবে খেলবে এই বিশ্বকাপে। ওদের আজকের প্রতিপক্ষ জাপান কোচ পরিবর্তনের সঙ্গে খেলার ধরনেও বদল এনেছে। আগের কোচ ভাহিদ হালিলহোজিচ ওদের চিরন্তন পাসিং ফুটবল ভেঙে ডিরেক্ট ফুটবল খেলাতে চেষ্টা করছিলেন, যে কারণে শিঞ্জি কাগওয়া, কেইসুকে হোন্ডার মতো তারকাদেরও উনি কম সুযোগ দিতেন। আকিরা নিশিনো এসে এই খেলোয়াড়দের গুরুত্ব দিয়ে সেই পাসিং ফুটবলে ফিরিয়েছেন দলকে। তবে বিল্ডআপে ধীরগতি থাকলে কলম্বিয়া সেই সুযোগ পুরো কাজে লাগাবে।

এই গ্রুপের অন্য ম্যাচে মুখোমুখি হবে পোল্যান্ড-সেনেগাল। আমার মনে হচ্ছে মাঝারি মানের দলগুলোর মধ্যে দারুণ কঠিন এক গ্রুপ এটা। পোল্যান্ড-সেনেগাল ম্যাচেই বোঝা হয়ে যাবে এই গ্রুপ থেকে শেষ ষোলোতে কারা যাচ্ছে। পোল্যান্ড শুধু লেভানদোস্কিনির্ভর নয়। নাপোলিতে খেলা জিয়েলিনস্কির মতো প্লেমেকার আছে ওদের। ডিফেন্সে লুকাস পিসজেক অনেক অভিজ্ঞ। ওদিকে সেনেগালে ফরোয়ার্ড অপশন অনেক। কোলিবালিকে নিয়ে ডিফেন্সও যথেষ্ট শক্ত। সেভাবেই আসলে খেলবে ওরা ডিফেন্সটা আঁটসাঁট করে রাখবে, ওপরে সুযোগ এলে তা কাজে লাগানোর মতোও তো খেলোয়াড় আছে ওদের। পোল্যান্ড বাছাই পর্বে অনেক গোল করলেও ওরা কিন্তু তেমন গোল হজমও করেছে। ম্যাচে তাই দুই দলে ঠোকাঠুকি হবে যথেষ্টই।

♦ জাতীয় দলের সাবেক কোচ

 



মন্তব্য