kalerkantho


লোপেতেগুই কাণ্ডের পরও এগিয়ে রাখছি স্পেনকে

১৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ইউলেন লোপেতেগুইকে নিয়ে কাণ্ডটা আমার জন্য খুব হতাশার হলো। অপেক্ষায় ছিলাম তাঁর স্পেনকে একটু আলাদাভাবে দেখব বলে। তবে এখন সেই আলোচনায় গিয়ে আর লাভ নেই, যোগ্য লোককেই তারা দায়িত্ব দিয়েছে। ফার্নান্দো হিয়েরো টেকনিক্যাল ডিরেক্টর ছিলেন ভিসেন্তে দেল বস্কের সময়ে। তিকিতাকা ফুটবলের জাগরণে তাঁর ভূমিকা আছে। কোচ হিসেবে না হলেও উনি লোপেতেগুইর ধারাটাই ধরে রাখবেন প্রথম ম্যাচ থেকে।

লোপেতেগুইয়ের অধীনে ৪-৩-৩ ছাড়াও আরো কয়েকটি ফরমেশনে খেলেছে স্পেন। তিন ব্যাকও খেলিয়েছেন কিছু কিছু ক্ষেত্রে। এখন কী হবে? মিডফিল্ড পিভোট একটি না দুটি থাকবে। কোনো কোনো ম্যাচে বুশকেত্জ, কোকেকে একসঙ্গে খেলেছে লোপেতেগুই আবার কোনো ম্যাচ বুশকেেজর ওপর দুজন রোমিং মিডফিল্ডার। ইসকো স্ট্রাইকারের পেছনে থাকবেন নাকি ডানে—তাও দেখার আছে। ইনিয়েস্তা, বুশকেত্জ, সিলভারা অভিজ্ঞ। তবে লোপেতেগুইয়ের স্পেন যে ঝলক দেখিয়েছে তার মূল কারিগর কিন্তু ইসকো। তাঁর মাধ্যমেই স্পেনের খেলায় ফ্লুয়েন্সিটা আছে।

ওদিকে উইংয়ে জোর বাড়িয়ে এত দিন ৪-৩-৩-ই ছিল পর্তুগালে ফের্নান্দো সান্তোসের পছন্দের ফরমেশন। এখন ন্যানি, কুরেশমার মত উইঙ্গারের বদলে বার্নান্দো সিলভার মতো ইনফিল্ড প্লেয়ার যোগ হয়েছেন। হুয়াও মারিও আছেন অন্যদিকে, নিচে থেকে গিয়েরেরো ওভারল্যাপ করছেন। তাতে রোনালদোর সঙ্গে আরেকজন স্ট্রাইকার রেখে এখন ৪-৪-২ পর্তুগালের ফরমেশন।  রোনালদো অবশ্যই তাদের মূল শক্তি, রামোস, পিকের সঙ্গে তাঁর লড়াই হবে। রামোসই হয়তো সামলোনার দায়িত্বে থাকবেন। ওদের ডিফেন্সে অভিজ্ঞতা আছে। তবে স্পেনের দ্রুত পাস খেলার মুখে ব্রুনো আলভেস, পেপেরা খেই হারাতে পারেন। মিডফিল্ডে কারভালহো, মৌতিনিয়োরও বয়স হয়েছে। সব মিলিয়ে ম্যাচে স্পেনকেই আমি এগিয়ে রাখবো লোপেতেগুইয়ের কাণ্ডের পরও।

উরুগুয়ে-মিসর ম্যাচটিও আকর্ষণীয় হবে। ৪-৪-২ উরুগুয়ের ফরমেশন। তবে আগে যেমন ডিফেন্স আর স্ট্রাইকারদের মধ্যেই ছিল শুধু খেলাটা এখন তা নয়, এখন ভেসিনো, ভালভের্দে, বেনতানকুর মতো মিডফিল্ডার যোগ হওয়ায় পজেশনাল ফুটবলও খেলছে অস্কার তাবারেজের দল। ওদিকে মিসর কোচ হেক্তর কুপার খুবই অর্গানাইজড। রক্ষণের ব্যাপারে তিনিও কড়া। এই ম্যাচেও হয়তো দুজন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার রেখে ৪-২-৩-১-এ খেলাবেন তিনি। মোহামেদ সালাহ খেললে নিশ্চিতভাবেই উরুগুয়ের ডিফেন্সের পরীক্ষা হবে, ওদিকে সুয়ারেস কাভানিও রক্ষণদেয়ালের পরীক্ষা নেবেন মিসরের। মরক্কো ইরান ম্যাচে দুই দলই পূর্ণ পয়েন্টের জন্য ঝাঁপাবে। মরক্কোও রক্ষণের দিক থেকে বেশ শক্ত দল। তবে এই গ্রুপে ইরানের বিপক্ষেই তাদের খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসার সুযোগ। ইরানের টিম ডিফেন্ডিংও ভালো। তবে ওরাও যেহেতু জয় পেতে মরিয়া থাকবে তাই মনে হয় ওপেন ফুটবল দেখব এই ম্যাচে।



মন্তব্য