kalerkantho


ইরান-মরক্কোর এগিয়ে যাওয়ার লড়াই

ফেভারিটের একটির বিপক্ষে সেই অঘটনের সুযোগ নিতে হলেও আজ নিজেদের মধ্যে এই লড়াইটা যে তাদের জেতা চাই।

১৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ইরান-মরক্কোর এগিয়ে যাওয়ার লড়াই

রাশিয়া পা রাখার পরই অদ্ভুত এক সমস্যায় পড়েন ইরানের খেলোয়াড়রা। নাইকির যে বুট তাঁরা সঙ্গে করে নিয়ে এসেছিলেন, জানা গেল সেই বুট আর তাঁরা পরতে পারবেন না। আমেরিকান কম্পানিটি ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক অবরোধের বিষয়টি মনে করিয়ে দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে এই বিশ্বকাপে ইরানকে তারা আর স্পন্সর করছে না।

বিশ্বকাপের মতো আসরে খেলা শুরুর দিন দুয়েক আগে এমন রাজনৈতিক মারপ্যাঁচে পড়ার কথা কে ভাবতে পারে। ইরান কোচ কার্লোস কুইরোজও শুরুতে চরম বিরক্ত হয়েছিলেন, ‘নাইকির এমনটা করার অধিকার নেই’ বলে। কিন্তু সামনে যখন অন্য লড়াই তখন রাজনৈতিক এই দ্বন্দ্বে জড়িয়ে আর লাভ কী। তিনি বরং ঘটনাটিকে এরপর ইরানিদের জন্য একতাবদ্ধ হওয়ার উপলক্ষ হিসেবেই দেখেছেন, ‘এটা এখন আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।’ নিষেধাজ্ঞা জানার পর খেলোয়াড়দের নতুন বুট কিনতে দোকানে ছুটতে হয়েছে, কেউ কেউ ক্লাব-সতীর্থদের সাহায্য চেয়েছেন। আজ মরক্কোর বিপক্ষেই দেখা যাবে প্রথমবারের মতো টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপে আসা দলটি এই বিতর্ক কতটা উতরে যেতে পারে। ১৯৭৮ সালে বিশ্বকাপে প্রথম খেলা ইরান ’৯৮-এ খেলেছে দ্বিতীয়বার। ২০০২-এ নেই, ২০০৬-এ ফিরেছে আবার ২০১০-এ নেই, ফিরেছে ২০১৪ সালে। পর্তুগিজ কোচ কুইরোজের অধীনে এবারই টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপ খেলছে এশিয়ার দেশটি। রাশিয়ায় নাম লেখানোটাই তাই তাদের বড় অর্জন। প্রতিপক্ষ মরক্কোরও তেমন অনুপ্রেরণা আছে, ২০ বছর পর যে এই বিশ্ব আসরে ফিরেছে দলটি। রাশিয়ায় আজ সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামের দরজা খুলছে এই দুই দলের ম্যাচ দিয়েই। স্পেন, পর্তুগালের গ্রুপ থেকে পরের রাউন্ডে যেতে নিজেদের মধ্যে এই লড়াইটা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণও তাদের জন্য। আগের চারবারের অংশগ্রহণে ইরান তা পারেনি। মরক্কো চমক দেখিয়েছিল ’৮৬-তে। ইংল্যান্ড, পর্তুগালকে টপকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই সে আসরের নক আউট পর্বে উঠে গিয়েছিল তারা।

ইতিহাসের পুনরাবৃত্তির আশায় না থাকলেও আজ হার্ভে রেনার্ডের দল ইরানকে সুযোগ দিতে চাইবে না। সর্বশেষ ১৮ ম্যাচে অপরাজিত তারা। বিশ্বকাপে আসা দলগুলোর মধ্যে শুধু স্পেন আর বেলজিয়ামের রেকর্ডই ভালো তাদের চেয়ে। আফ্রিকান বাছাইয়ে একমাত্র দল হিসেবে কোনো গোলও হজম করেনি। অর্থাৎ ডিফেন্স নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। তবে আজ ইরানের বিপক্ষে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসার মোক্ষম সুযোগ তাদের। তবে কুইরোজ আছেন তাদের চমকে দেওয়ার অপেক্ষায়, ‘মরক্কোকে চমকে দেওয়ার মতো সামর্থ্য আমাদের আছে। ওদের দলটি সম্বন্ধে আমরা যথেষ্টই জানি। ওরা আমাদের সম্বন্ধে খুব বেশি জানে বলে মনে হয় না।’ গত বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সও পর্তুগিজ এই কোচকে আত্মবিশ্বাসী করতে পারে। সেবার আর্জেন্টিনার সঙ্গে শেষ ষোল নিশ্চিত করা নাইজেরিয়ার সঙ্গে প্রথম ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র ছিল তাদের। আর্জেন্টিনাকেও জিততে হয়েছে একেবারে শেষ মুহূর্তে মেসি ম্যাজিকে। গতবারের প্রশংসিত এই ইরানকে নিয়ে মরক্কোর বিপক্ষেও বাজি ধরার লোকের তাই অভাব নেই।

ইউলেন লোপেতেগুইয়ের বরখাস্তের ঘটনায় বড় ধাক্কাই খেয়েছে স্পেন। এই গ্রুপে অঘটনের আশায় থাকা ইরান, মরক্কো জন্য সেই খবর উজ্জীবিত হওয়ার মতোই। দুই ফেভারিটের একটির বিপক্ষে সেই অঘটনের সুযোগ নিতে হলেও আজ নিজেদের মধ্যে এই লড়াইটা যে তাদের জেতা চাই। সে কারণেও আজ দুই দলের মধ্যে আকর্ষণীয় ফুটবলই হওয়ার কথা। ফিফা ডটকম

 



মন্তব্য