kalerkantho


স্পেন-পর্তুগাল লড়াই বিশেষ কিছুই

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



চার বছর আগে ব্রাজিলে ছিল নেদারল্যান্ডস। এবারও গ্রুপ পর্বে আরেক ‘জায়ান্ট’কে পেয়েছে স্পেন—ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল। বিশ্বকাপের দ্বিতীয় দিনেই তাই দর্শকদের জন্য অপেক্ষা করছে এক জমজমাট লড়াই। শুক্রবার সোচির ফিস্ত স্টেডিয়ামেই হয়তো হয়ে যাবে ‘বি’ গ্রুপের শ্রেষ্ঠত্বের মীমাংসা, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও তাঁর সতীর্থদের সঙ্গে যে ওই দিনই মুখোমুখি হবে ‘নতুন স্পেন’।

নতুনই তো! বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র দুই দিন আগে বরখাস্ত হয়েছেন কোচ ইউলেন লোপেতেগুই। নতুন চাকরি অবশ্য আগেই পেয়েছেন তিনি, যোগ দিচ্ছেন স্পেনেরই বিশ্বসেরা ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে। কালবিলম্ব না করে নতুন কোচও ঘোষণা দিয়েছে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন। দেশটির ফুটবল ডিরেক্টর ফার্নান্দো হিয়েরোর অধীনে নতুন ছকে খেলতে হবে লা রোজাদের।

দক্ষিণ ইউরোপের দুই প্রতিবেশী দেশের লড়াইয়ের ইতিহাস বেশ পুরনো। সেই ১৯২০ সাল থেকে চলে আসছে এই দ্বৈরথ। কিন্তু বড় টুর্নামেন্টে খুব কমই দেখা হয়েছে দুই দলের। বিশ্বকাপে তো একবারই দেখা হয়েছে, ২০১০ সালের শিরোপা জেতার পথে দ্বিতীয় রাউন্ডে দাভিদ ভিয়ার দেওয়া একমাত্র গোলে জিতেছিল লা রোজারা। ইতিহাস বলছে, ‘আইবেরিয়ান ডার্বি’ নামে পরিচিত দুই দলের লড়াইয়ে, বিশেষ করে বড় টুর্নামেন্টে এমনই গোলখরা খুব স্বাভাবিক। বিশ্বকাপ আর ইউরো মিলিয়ে দুই দলের চারটি লড়াইয়ে গোলও হয়েছে চারটিই।

কিন্তু এবার অন্য রকম আশা করা যেতেই পারে। লোপেতেগুইয়ের অধীনে খেলা ১৮ ম্যাচে ৬০ গোল করেছে স্পেন, কোচ বরখাস্ত হলেও স্পেনের বিশ্বকাপ দলটি তো আর বদলায়নি তাতে! আর অন্য দিকে যখন আছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো নামের এক জাদুকর, স্পেনের রক্ষণভাগকেও তাই প্রস্তুত থাকতে হবে। ঘটনাচক্রে পাঁচবারের বিশ্বসেরা তারকাকে সামলানোর ভারটা হয়তো থাকবে তাঁরই রিয়াল সতীর্থ সের্হিয়ো রামোসের ওপর!

রোনালদোর সতীর্থ সিলভা অবশ্য মনে করেন, ‘স্পেন-পর্তুগাল ম্যাচ সব সময়ই ‘বিশেষ’ কিছু। আমাদের সেরাটাই ঢেলে দিতে হবে, আর আমি নিশ্চিত আমরা সবাই তা-ই করব, শুধু ক্রিস্তিয়ানো একা নয়।’ তবে রোনালদোই যে দলের প্রাণভোমরা, সেটা মানতে দ্বিধা নেই পর্তুগালের ‘ভবিষ্যতের তারকা’ খ্যাতি পেয়ে যাওয়া ম্যানচেস্টার সিটি তারকার, ‘স্পেন শক্তিশালী দল, সন্দেহ নেই। কিন্তু আমাদের তো আছেন ক্রিস্তিয়ানো, বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়, যাঁর কোনো বিকল্প হয় না আসলে। ওর সাফল্যের ক্ষুধাটাই অন্য সবার চেয়ে আলাদা করে রেখেছে ওকে।’

চার বছর আগের বিশ্বকাপটা ভালো কাটেনি দুই দলের কারোই। বিশেষ করে প্রথম ম্যাচের স্মৃতি তো ভুলতেই চাইবেন ইনিয়েস্তা, রোনালদোরা সবাই। প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায়ের শঙ্কাটা যে জেগেছিল ওই ম্যাচেই! নেদারল্যান্ডসের কাছে ১-৫ গোলে হেরেছিল স্পেন, রোনালদোদের ৪-০ হারের লজ্জায় ডুবিয়েছিল জার্মানি। এবারও তেমন কিছু হোক, চাইবে না নিশ্চয়ই দুই দলের কেউই! এএফপি, টাইমস নিউজ নেটওয়ার্ক



মন্তব্য