kalerkantho


ইব্রা নেই বলেই সুবিধা সুইডেনের!

১৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



২০১৬ সালের ইউরো বাছাইয়ে আলো ছড়িয়েছিলেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। ১১ গোল করে হয়েছিলেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা। প্লে অফে তো তিনিই ছিলেন নায়ক। দুই ম্যাচে ৪ গোল করে দলকে চূড়ান্ত পর্বে তুলেছিলেন, হয়েছিলেন সর্বোচ্চ গোলদাতা। কিন্তু চূড়ান্ত পর্বে কোথায় যেন হারিয়ে গেলেন। গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচের পুরোটা সময় খেলে কোনো গোল পাননি। শুধু তাই নয়, পুরো টুর্নামেন্টে বিস্ময়করভাবে মাত্র একবারই গোলে শট নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। সেই হতাশা থেকেই কিনা গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচের আগে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন সুইডেনের সর্বকালের সর্বোচ্চ এই গোলদাতা।

বর্তমানে মেজর সকার লিগে লা গ্যালাক্সির হয়ে খেলছেন ইব্রাহিমোভিচ। দলকে বিশ্বকাপে দেখে আবার জাতীয় দলে ফেরার ইচ্ছার কথা আগেই জানিয়েছিলেন তিনি। দলকে সাহায্য করতে বারবার দলে ফেরার ইচ্ছার কথাও জানিয়েছেন। কিন্তু কোচ জ্যান অ্যান্ডারসন তাঁকে দলে নেননি। তাঁকে দলে নেওয়া হবে কি না তা নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। বিশ্বকাপে ইব্রাহিমোভিচের অনুপস্থিতি নিয়ে আলোচনায় পরিশ্রান্ত হয়ে পড়েছেন সুইডেনের সাবেক স্ট্রাইকার হেনরিক লারসন। ২০০৯ সালে জাতীয় দল থেকে অবসর নেওয়া এই স্ট্রাইকার মনে করেন, ইব্রাহিমোভিচকে দলে না নেওয়ার সিদ্ধান্তটা দলের জন্য ভালো হবে, ‘অতীতে সুইডেন সম্পর্কে প্রতিপক্ষদের ভালো ধারণা ছিল। তারা জানত বল যেখান থেকে আসুক তা ইব্রাহিমোভিচের কাছে যাবে। কিন্তু এখন তারা এ ব্যাপারে আগে থেকে ধারণা করতে পারবে না। আক্রমণভাগে ওলা টোইভোনেন বা মার্কাস বার্গের মধ্য থেকে যেকোনো একজন তখন সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারবে। হয়তো দুজনই একসঙ্গে অনেক দূর যেতে পারবে।’ তবে ইব্রা যে ‘স্পেশাল’, তা নিয়ে মনে বিন্দুমাত্র সংশয় নেই তাঁর মনে, ‘সুইডেন এ পর্যন্ত যেসব খেলোয়াড় জন্ম নিয়েছে তাদের মধ্যে ইব্রাহিমোভিচ সেরা। তাই তাকে দলে নেওয়ার দাবি উঠতেই পারে। তবে আমি মনে করি বর্তমান দলে যেসব খেলোয়াড় রয়েছে তাদের নিয়ে মনোযোগী হওয়াটা ভালো হবে। অথচ যে দলে নেই তাকে নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। ইনজুরির আগে একজন সুস্থ ইব্রাহিমোভিচকে বিশ্বের যেকোনো কোচ দলে পেতে চাইবে। কিন্তু এখন সে তা নয়। এখন তাকে নিয়ে কথা বলার কোনো মানে নেই। যারা দলে আছে তাদের নিয়েই এখন আলোচনা সীমাবদ্ধ থাকা উচিত।’ স্কাইস্পোর্টস

 

 

 



মন্তব্য