kalerkantho


ফ্রান্সকে শুভ কামনা জিদানের

১৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ার পর থেকেই জিনেদিন জিদানের পরের গন্তব্য নিয়ে গুঞ্জন। ক্লাবে দারুণ সফল সাবেক ফরাসি তারকা এবার ফ্রান্স দলের ডাগ আউটে দাঁড়াবেন—এমন আলোচনাও জোরালো। তবে জিদান নিজে সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন। দিদিয়ের দেশমের বর্তমান দলটিকেও জানিয়েছেন শুভ কামনা। ফ্রান্স এবারই তাদের দ্বিতীয় শিরোপার দেখা পাবে, এমনই আশা ১৯৯৮-এর নায়কের।

‘এই দলের সত্যি দারুণ সম্ভাবনা। যত দূর সম্ভব তারা যেতে পারে, বিশ্বকাপ জয়ই বা নয় কেন। আমি এই ফ্রান্সের পেছনে আছি। তারাই আমাদের দ্বিতীয় শিরোপা এনে দেবে, এটাই আমার আশা’, পরশু সেন্ত দেনিসে ’৯৮-এর সতীর্থদের এক মিলনমেলায় দাঁড়িয়ে কথাগুলো বলেছেন জিদান। রিয়ালের দায়িত্ব ছাড়ার পর তাঁর এখন অখণ্ড অবসর। গত রবিবার রোলাঁ গারোঁয় রাফায়েল নাদালের ১১তম ফ্রেঞ্চ ওপেন জয়ও দেখেছেন। পরশু সেন্ত দেনিসে, যে শহর ছিল ’৯৮ বিশ্বকাপের ফাইনালের ভেন্যু, সেখানে এক প্রীতি ম্যাচে অংশ নিয়েছেন তিনি সেবারের চ্যাম্পিয়ন দলের সতীর্থদের সঙ্গে। ফাবিয়ান বার্থেজ, ইউরি জোরকায়েফ, লরা ব্লঁ, রবার্ত পিরেস ছিলেন ম্যাচে। ফ্রান্স দলের রাশিয়া রওনা হওয়ার আগে আন্তেয়ান গ্রিয়েজমানদের পুরনো জৌলুস মনে করিয়ে দেওয়া জন্যই যেন এমন আয়োজন।

বর্তমান দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে কিলিয়ান এমবাপ্পেকে নিয়ে নিজের মুগ্ধতার কথা জিদান জানিয়েছেন আগেই। এদিনও বললেন তাঁকে দিয়ে বড় কিছুই সম্ভব, ‘এই বয়সেই যা খেলছে ছেলেটা! আমার তো মনে হয় ওকে ওর মতোই খেলতে দেওয়া উচিত এখন। কারণ দেখেছি প্রতিটা গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ও ঠিক সিদ্ধান্তটাই নেয়।’ কোচ দিদিয়ে দেশমের কাছেই হয়তো বার্তাটা দিয়েছেন।

ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ের ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষেই একসঙ্গে হয়েছিলেন জিদান ও তাঁর সতীর্থরা। স্বাভাবিকভাবেই দলের সঙ্গে থাকা দেশম যোগ দিতে পারেননি তাঁদের সঙ্গে। এই ‘দেশম অধ্যায়’ শেষেই ফ্রান্সে জিদানের শুরু বলে যে আলোচনা, তাতে জল ঢেলেছেন তিনি এভাবে, ‘রিয়ালের দায়িত্ব ছেড়েছি আমি খানিক বিরতি নিতে, ফ্রান্সের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য নয়। সামনে কী করব সত্যি এখনো কিছু ঠিক করিনি। এখন আমি বিশ্রামে আছি আর ভালোও আছি।’ ওদিকে রিয়ালও এখনো জিদানের ছেড়ে আসা আসনে এখনো কাউকে বসায়নি। পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে গুঞ্জন তাই দুই তরফেই। তবে ফ্রান্সের দায়িত্ব নেওয়ার জন্যই তিনি রিয়ালের চাকরি ছেড়েছেন, জিদানের প্রতিক্রিয়ার পর সে গুঞ্জন আপাতত চাপা পড়ারই কথা। মেইল অনলাইন



মন্তব্য