kalerkantho


সেই ফাইনালের বিপরীত আবহ এবার

২৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বকাপ এখন দৃষ্টিসীমায়। এর মাঝেই ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে বড় ম্যাচটি মাঠে গড়াচ্ছে আজ। কিয়েভের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে ইউরোপসেরা হওয়ার লড়াইয়ে নামবে চ্যাম্পিয়নস লিগ ইতিহাসের সবচেয়ে সফল ও অন্যতম সফল দুই দল রিয়াল মাদ্রিদ ও লিভারপুল। অলরেডরা নামছে ষষ্ঠ শিরোপার মিশনে, ২০০৫-এর পর যা হতে পারে প্রথম। লস ব্লাংকোস সেখানে টানা তৃতীয় এবং ক্লাব ইতিহাসে ১৩তম শিরোপার আশায়। আসরে দুই দলের পাঁচবারের দেখায় অবশ্য লিভারপুল এগিয়ে ৩-২-এ।

দুই দলের মুখোমুখি একমাত্র ফাইনালেও শেষ হাসি অলরেডদের। তখন নাম ইউরোপিয়ান কাপ, সাল ১৯৮১। রিয়াল যেমন সাম্প্রতিক সময়ে সাফল্যের ভেলায় ভাসছে, তখন লিভারপুল তেমনি। শেষ পাঁচ বছরের মধ্যে তৃতীয় ফাইনাল খেলতে নামছে তারা। ’৭৭ ও ’৭৮-এ টানা দুইবার জেতে তারা। মাঝখানে নটিংহাম ফরেস্টের দুই শিরোপা। ইংলিশ ক্লাব হিসেবে লিভারপুল তখন ইউরোপীয় আসরে টানা পাঁচ শিরোপার সামনে। এখনকার লিভারপুলের মতোই রিয়ালের আধিপত্য তখন দূর অতীতের স্মৃতি। সর্বশেষ জেতা ট্রফিতে ১৫ বছরের ধুলো। সেই ফাইনালেও তারা পারেনি। পুরো ম্যাচ ভালো খেলে ৮২ মিনিটে অ্যালান কেনেডির গোলে জয়ও পেয়ে যায় লিভারপুল। প্রথম কোচ হিসেবে বব পেইসলি জেতেন তাঁর তৃতীয় ইউরোপীয় শিরোপা।

দুই দলের বাকি চার দেখার দুটি শেষ ষোলোতে, দুটি গ্রুপ পর্বে। ২০০৮-০৯-এ শেষ ষোলোর প্রথম লেগে বার্নাব্যুতে গিয়ে রিয়ালকে ২-০তে হারিয়ে আসার পর ঘরের মাঠে জেতে লিভারপুল ৪-০তে। দুই দলের সর্বশেষ দেখা ২০১৪-১৫-র আসরের গ্রুপ পর্বে। দুই লেগেই জেতে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, করিম বেনজিমাদের রিয়াল। এবারও সেই রিয়ালই তাদের মুখোমুখি। তবে মোহামেদ সালাহর ছোঁয়ায় লিভারপুল বদলে গেছে অনেক। উয়েফা ডটকম


মন্তব্য