kalerkantho


বিশ্বকাপ শেষ রোমেরোর

২৪ মে, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বকাপ শেষ রোমেরোর

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই বড় ধাক্কা আর্জেন্টিনার। হাঁটুর ইনজুুরিতে ছিটকে গেলেন গোলরক্ষক সের্হিয়ো রোমেরো। আর্জেন্টিনার অনুশীলনে রোমেরো চোট পান হাঁটুতে। আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ডান হাঁটুতে চোট পাওয়ায় বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না রোমেরোর, ‘রোমেরো অনুশীলনে চোট পেয়েছে ডান হাঁটুতে। রাশিয়া বিশ্বকাপে ২৩ জনের তালিকা থেকে তাই প্রত্যাহার করা হলো তাঁর নাম। দ্রুতই জানানো হবে কে জায়গাটা নেবে রোমেরোর।’

এমন বিবৃতির পর খুব বেশি দেরি করেনি এএফএ। রোমেরোর জায়গায় বেছে নেওয়া হয়েছে টাইগার্স গোলরক্ষক নাহুয়েল গুজমানকে। জাতীয় দলের জার্সিতে ছয় ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা আছে ৩২ বছর বয়সী গুজমানের। দ্রুত বিকল্প বেছে নিলেও পোস্টে এক নম্বর পছন্দ রোমেরোকে বিশ্বকাপজুড়েই মিস করবেন লিওনেল মেসিরা। গোলরক্ষক হিসেবে তাঁর চেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড নেই আর কোনো আর্জেন্টাইনের। ৩১ বছর বয়সী রোমেরো জাতীয় দলের হয়ে গ্লাভস হাতে দাঁড়িয়েছেন ৮৩ ম্যাচ। মেসিদের সঙ্গে খেলেছেন ২০১০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপ। গত বিশ্বকাপের ফাইনালে তাঁকে বোকা বানিয়েই অতিরিক্ত সময়ের গোলে জার্মানিকে বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন মারিও গোেজ। দুটি বিশ্বকাপের পাশাপাশি তিন তিনটি কোপা আমেরিকা খেলেছেন রোমেরো। ছিলেন ২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিক সোনাজয়ী দলটিতেও।

নাহুয়েল গুজমানের সঙ্গে দলের অন্য দুই গোলরক্ষক এখন চেলসির উইলি কাবাইয়েরো ও রিভার প্লেটের ফ্রাংকো আরমানি। তবে সেরা একাদশে খেলার দৌড়ে এগিয়ে ৩৬ বছর বয়সী উইলি কাবাইয়েরো। রোমেরোর মতো তিনিও ক্লাবে দ্বিতীয় সেরা পছন্দ। কারণ চেলসিতে খেলেন থিবো কর্তোয়ার মতো গোলরক্ষক। এর পরও যতটুকু সুযোগ পেয়েছেন নিজেকে চিনিয়েছেন তিনি। বিশেষ করে পেনাল্টি ঠেকানোয় দেখিয়েছেন মুনশিয়ানা। এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে হাল সিটির বিপক্ষে ঠেকিয়েছিলেন ডেভিড মেইলারের স্পট কিক। সবশেষ আট পেনাল্টির পঞ্চম হিসেবে আটকেছিলেন সেটা! এ জন্যই হয়তো ৩৬ বছর বয়সে হোর্হে সাম্পাওলির অধীনে এ বছর মার্চে ইতালির বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল কাবাইয়েরোর। রোমেরো ছিটকে যাওয়ায় সম্ভাবনায় এগিয়ে তিনিই। এপি


মন্তব্য