kalerkantho


স্পেনে নেই মোরাতা, বেলজিয়ামে নাইনগোলান

২২ মে, ২০১৮ ০০:০০



স্পেনে নেই মোরাতা, বেলজিয়ামে নাইনগোলান

গত ইউরোয় ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, গ্যারেথ বেলদের সমান তিন গোল করেছিলেন আলভারো মোরাতা। রিয়াল মাদ্রিদে অল্প সুযোগ পেয়েও প্রমাণ করেছিলেন নিজেকে। কিন্তু চেলসিতে নাম লিখিয়ে ছন্দ হারিয়ে ফেলেন এই স্প্যানিয়ার্ড। বার্সেলোনা থেকে চেলসিতে যাওয়া সেস্ক ফ্যাব্রেগাসও ঠিক তাই। এই দুজনকে বাদ দিয়ে গতকাল বিশ্বকাপের চূড়ান্ত ২৩ জনের নাম ঘোষণা করেছেন স্প্যানিশ কোচ হুলিয়ান লোপেতেগুই।

ইউরোপের প্রতিষ্ঠিত আরেক শক্তি বেলজিয়াম অবশ্য ২৮ জনের প্রাথমিক দল দিয়েছে গতকাল। চমক আছে সেখানেও। চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনাল খেলা এএস রোমার এই মৌসুমের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় রাদিয়া নাইনগোলানকে রাখেননি বেলজিয়াম কোচ রবার্তো মার্তিনেজ। তাঁর বদলে এএস মোনাকোয় ভুলে যাওয়ার এক মৌসুম কাটানো ২১ বছর বয়সী ইউরি তিয়েলিমানসেকে নিয়েছেন তিনি। জাতীয় দলে জায়গা না পেয়ে গতকাল অভিমানে অবসরই নিয়ে ফেলেছেন নাইনগোলান।

গতবারের প্রিমিয়ার লিগজয়ী চেলসি এবার পাঁচ নম্বরে থেকে ছিটকে গেছে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে। এর অনেকখানিই দায় সেস্ক ফ্যাব্রেগাস ও আলভারো মোরাতার। প্রিমিয়ার লিগে ফ্যাব্রেগাস ৩২ ম্যাচে ২টি আর মোরাতা ৩১ ম্যাচে করেছেন ১১ গোল। মাঝমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে ফ্যাব্রেগাসের অ্যাসিস্টও হাতে গোনা। এ জন্যই তাঁদের দলে রাখেননি স্প্যানিশ কোচ হুলিয়ান লোপেতেগুই। তিনি বাদ দিয়েছেন  পেদ্রো, হুয়ান মাতা, সার্জি রবার্তো, মার্কোস অলন্সো, হেক্তর বেলেরিন আর ভিতোলাকেও। ফরোয়ার্ড হিসেবে ডিয়েগো কস্তা, ইয়াগো আসপাস আর ব্রাজিলিয়ান বংশোদ্ভূত রদ্রিগোর ওপর আস্থা রেখেছেন স্প্যানিশ কোচ।

এত দিন বার্সেলোনার খেলোয়াড়দেরই জয়জয়কার ছিল স্পেনের জাতীয় দলে। তবে ১৯৬২ সালের পর এবারই প্রথম সর্বোচ্চ ছয়জন রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড় রয়েছেন বিশ্বকাপ দলে। তাঁরা রামোস, নাচো, ইসকো, কারভাহাল, অ্যাসেনসিও আর ভাসকেস। বার্সেলোনার ইনিয়েস্তা, বুসকেৎস, পিকেরা রয়েছেন যথরীতি। চমক বলতে আর্সেনাল ডিফেন্ডার নাচো মনরিয়ালের নাম। জাতীয় দলের হয়ে ৯ বছরের ক্যারিয়ারে মাত্র ২১ ম্যাচ খেলেছেন ৩২ বছর বয়সী মনরিয়াল।

বেলজিয়ামের ২৮ জনের দলে সবচেয়ে বড় চমক রাদজা নাইঙ্গোলানের না থাকা। চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে লিভারপুলের বিপক্ষে দুই গোল করেছিলেন তিনি। হয়েছেন এএস রোমার মৌসুম সেরা খেলোয়াড়। কিন্তু বেলজিয়াম সংবাদমাধ্যমে আগে থেকেই গুঞ্জন কোচ রবার্তো মার্তিনেজের সঙ্গে তাঁর শীতল সম্পর্কের। দল থেকে ছিটকে গেছেন হয়তো এ জন্যই। তবে মার্তিনেজ স্বীকার করছেন না সেটা, ‘ওকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্তটা কঠিন ছিল। কিন্তু ট্যাকটিক্যাল কারণে এ ছাড়া উপায় ছিল না।’



মন্তব্য