kalerkantho



পেয়েও হারানোর বেদনা

৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



পেয়েও হারানোর বেদনা

২০০, ৩০০ ও ৪০০ মিটার দৌড়ের স্প্যানিশ রেকর্ডটা অস্কার হুসিলসের। গত পরশু বার্মিংহামে ভাঙেন বিশ্ব ইনডোর চ্যাম্পিয়নশিপের ৪০০ মিটারের রেকর্ডও। ৪৪.৯২ সেকেন্ডে রেকর্ড ও সোনা নিশ্চিতের পর প্রজাপতির মতোই উড়ছিলেন ট্র্যাকে। এক মিনিট পরই সেই উৎসব বদলে যায় যন্ত্রণায়। নিজের লাইন অতিক্রম করায় ডিসকোয়ালিফায়েড অস্কার! প্রতিবাদে আপিল করে স্প্যানিশ কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ভিডিও রিপ্লেও নিশ্চিত করে লাইন অতিক্রম করে ফেলেছিলেন অস্কার। শুধু তিনিই নন, একই অপরাধে রুপাও হারান দ্বিতীয় হওয়া ডমিনিকান রিপাবলিকের লুগেলিন সান্তোস। তাই সোনার পদক যায় ৪৫.৪৭ সেকেন্ডে তৃতীয় হওয়া পাভেল মাসলাকের গলায়।

একই দৌড়ে দুজনের ডিসকোয়ালিফায়েড হওয়ার সুবাদে পাওয়া সোনা নিতে যাওয়ার সময় বার্মিংহামের দর্শকরা দুয়ো দিচ্ছিলেন পাভেল মাসলাককে। ৪০০ মিটারের এই ফল নিয়ে কিংবদন্তি মাইকেল জনসন বিবিসিতে ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় বলছিলেন, ‘সবাই মাত্রই একটা রেস দেখেছে। তাঁরা যা দেখেছে এর প্রতিফলন হয়নি ফলে। সোনা জিতেছে একজন কিন্তু পেয়েছে আরেকজন। তবে খেলার নিয়ম মানতেই হবে সব অ্যাথলেটকে।’

বিতর্কের এই রেসের রাতে আলো ছড়িয়েছেন ‘নতুন বোল্ট’ খ্যাত ক্রিস্টিয়ান কোলম্যান। ইনডোরে ৬০ মিটার স্প্রিন্টের নতুন বিশ্বরেকর্ড গড়ে বার্মিংহামে এসেছিলেন ২১ বছরের মার্কিন এই তরুণ। ৬.৩৪ সেকেন্ডের কীর্তিটা পুনরাবৃত্তি করতে না পারলেও সোনা জিতেছেন ৬.৩৭ সেকেন্ডে। এটা আবার এই টুর্নামেন্টের নতুন রেকর্ড। ৬.৪২ সেকেন্ডে রুপা জেতেন চীনের সু বিনতিয়ান। তাঁর টাইমিংটা এশিয়ান খেলোয়াড়দের মধ্যে দ্রুততম। বিশ্বরেকর্ডের পর বার্মিংহামে সোনা জিতে খুশি কোলম্যান। নতুন বোল্ট উপাধিটা উপভোগও করছেন তিনি, ‘বোল্টের অবসরের পর তৈরি হওয়া শূন্যতা পূরণ করতে চাই আমি। প্রতিভাবান আরো অনেকে আছে ট্র্যাকে, তাই নিজেকে সেরাদের সেরা করতে কঠোর পরিশ্রম করে যেতে হবে আমাকে।’

নারীদের দূরপাল্লার দৌড়ের একাধিক রেকর্ড গড়া গেনজেবা দিবাবা সফল বার্মিংহামেও। টানা তৃতীয় ৩০০০ মিটারের সোনা জেতার দুই দিন পর ইথিওপিয়ার এই তারকা চ্যাম্পিয়ন ১৫০০ মিটারেও। মেয়েদের পোল ভল্টে ৪.৯৫ মিটার লাফিয়ে চ্যাম্পিয়ন যুক্তরাষ্ট্রের সান্ডি মরিস। এই ইভেন্টের বিশ্ব ও অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন গ্রিসের ক্যাতরিনা স্তেফানিদি ৪.৮০ মিটার লাফিয়ে পেয়েছেন ব্রোঞ্জ। ৪.৯০ মিটার লাফিয়ে রুপা রাশিয়ার আনঝেলিকা সিদোরোভার। এপি



মন্তব্য