kalerkantho


দশজন নিয়ে ড্র মোহামেডানের

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



দশজন নিয়ে ড্র মোহামেডানের

এমন মাঠ তাই : বৃষ্টিতে মোহামেডান-রহমতগঞ্জের আগের ম্যাচেই মাঠের অবস্থা বেহাল। শেখ রাসেল-টিম বিজেএমসির পরের ম্যাচটি মাঠেই গড়াল না তাতে। খেলার জন্য মাঠে হাজির হয়েও তাই দর্শক হয়েই থাকতে হয়েছে শেখ রাসেলের খেলোয়াড়দের। প্রিমিয়ার লিগে তাদের ম্যাচটি হবে আজ। ছবি : কালের কণ্ঠ

ক্রীড়া প্রতিবেদক :  দশজনের দল হয়ে গেলে স্বাভাবিকভাবে হারার ভয় থাকে। রহমতগঞ্জের বিপক্ষে এই ভয়কে জয় করেছে মোহামেডান, গোলশূন্য ড্র করে পেয়েছে ১ পয়েন্ট।

সুবাদে তাদের সংগ্রহ আট ম্যাচে ৮ পয়েন্ট। দুই জয় আর দুই ড্র, হেরেছে বাকি চার ম্যাচ। অন্যদিকে রহমতগঞ্জ দুই জয় ও তিন ড্র’র সুবাদে ৯ পয়েন্ট নিয়ে আছে পঞ্চম স্থানে।

৪১ মিনিটে অনিক মার্চিং অর্ডার পেলে মোহামেডান ১০ জনের দলে পরিণত হয়। মাঝমাঠে বল দখলের লড়াইয়ের একপর্যায়ে তিনি লাথি চালিয়ে দিয়েছিলেন রাশেদুল ইসলাম শুভর শরীরে। এরপর বাকি ৪৯ মিনিট সাদা-কালোরা দশজন নিয়ে খেললেও রহমতগঞ্জ সুযোগটা নিতে পারেনি। আক্রমণের তোড়ে প্রতিপক্ষের ডিফেন্সকে চাপে রেখে গোল আদায় করতে পারেনি। রহমতগঞ্জ কোচ কামাল বাবুও আক্ষেপ করেছেন, ‘এই সময়ে ম্যাচে প্রাধান্য বিস্তার করে খেলতে পারিনি আমরা। একটা ভালো সুযোগ হারিয়েছি আমরা।

তবে মাঠের যে অবস্থা এখানে খুব পরিকল্পনা করে খেলাও কঠিন। ’

দুপুরের বৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম আবার কাদা মাঠে রূপ নিয়েছে। কিছু জায়গায় পানি জমে গেছে। পাসিং ফুটবল খেলা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছিল। কারণ বল আটকে যাচ্ছিল কাদায়। এর মধ্যে রহমতগঞ্জ দুর্দান্ত সুযোগ পেয়েছিল ২২ মিনিটে। গোলরক্ষককে বডি ডজে পরাস্ত করে রাশেদুল ইসলাম পোস্টে শট নিয়েও মিন্টু শেখের অবিশ্বাস্য ক্লিয়ারে গোলবঞ্চিত হয়েছেন। গোলরক্ষক মামুন খানকে পরাস্ত হতে দেখে মোহামেডানের ওই ডিফেন্ডার গোললাইনে গিয়ে শুয়ে পড়ে ফিরিয়ে দিয়েছেন রাশেদের শট। সেই প্রথম ম্যাচে দুই গোল করে চমকে দেওয়ার পর রহমতগঞ্জের এই তরুণ স্ট্রাইকারের পায়ে আর গোল নেই! চার মিনিট পরে মোহামেডানের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিল, কিংসলের বাড়ানো ক্রসে স্যামসন ইলিয়াসু যদি ঠিকঠাক পা ছোঁয়াতে পারতেন। প্রথমার্ধের শেষ দিকে অনিকের লাল কার্ডের ফাউলের পর মোহামেডান দশজনের দলে পরিণত হলেও রহমতগঞ্জের খেলায় ছিল না ম্যাচ জয়ের মরিয়া ভাব। ৫১ মিনিটে জাত্তা মোস্তাফার বানিয়ে দেওয়া বলটি ইসমাইল বাঙ্গুরা নষ্ট করেছেন। সেভাবে ৭৫ মিনিটেও সোহেলের ক্রসটি ঠিকঠাক পায়ে জমাতে পারেননি এই নাইজেরিয়ান। তবে এগুলোর একটিও ‘ক্লিয়ার-কাট’ সুযোগ নয়। কৃতিত্বটা পাবে সাদা-কালোরাই, শেষ পর্যন্ত ডিফেন্সটা ভালোভাবে সামলে তারা কাউন্টার অ্যাটাকে খেলছে। প্রতিপক্ষের ফরোয়ার্ডদের কোনো জায়গাই দেননি মিন্টু-মনজুর- আসাদুজ্জামানরা। তাতেই হয়েছে ১ পয়েন্ট অর্জন। মাঠের দুরবস্থার কারণে শেখ রাসেল ও বিজেএমসির মধ্যেকার দ্বিতীয় ম্যাচটি আর হয়নি, এটি হবে আজ।

মোহামেডান : মামুন, আসাদুজ্জামান, মিন্টু, মনজুর, ফয়সাল মাহমুদ, এনামুল, তকলিচ, নাসির, এনকোচা কিংসলে, অনিক, স্যামসন ইলিয়াসু।

রহমতগঞ্জ : ওমর ফারুক, সাদ্দাম, আসিফ, শরিফুল, শাহরান হাওলাদার, ফয়সাল আহমেদ, রাশেদুল ইসলাম, ইসমাইল বাঙ্গুরা, নাজিম উদ্দিন, মোজাম্মেল হোসেন, জাত্তা মোস্তফা।


মন্তব্য