kalerkantho


মাথা খাটিয়ে মাথার গোল

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মাথা খাটিয়ে মাথার গোল

শুধু লম্বা হলেই ফুটবলার হয় না। কেননা খেলাটা হয় মাঠে, শূন্যে নয়।

এই মৌসুমে আকাশে ওড়া রিয়াল মাদ্রিদ দেখাচ্ছে চাইলে ফুটবল খেলা যায় আকাশেও! এই মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ, স্প্যানিশ লিগ, কোপা আমেরিকা, ইউরোপিয়ান সুপার কাপ, ক্লাব বিশ্বকাপ মিলিয়ে ৪২ ম্যাচে করেছে ১০৬ গোল। এর ২৪টিই হেডে! অর্থাৎ প্রতি ৪ গোলে একটিরও বেশি এসেছে মাথা খাটিয়ে মাথা দিয়ে। ইউরোপিয়ান মর্যাদার পাঁচ লিগে এই মৌসুমে হেডে এত বেশি গোল নেই আর কারো। বার্সার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা করেছে ঠিক অর্ধেক ১২টি। স্প্যানিশ লিগের দলগুলোর মধ্যে হেডে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৪ গোল রিয়াল সোসিয়েদাদের। ইউরোপিয়ান মর্যাদার পাঁচ লিগে রিয়ালের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৫ গোল আর্সেনালের।

গত সপ্তাহে সবশেষ খেলা ম্যাচে এস্পানিওলের বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ইসকোর ক্রসে ছয় গজ সামনে থেকে নেওয়া জোরালো হেডারে রিয়ালকে এগিয়ে দিয়েছিলেন আলভারো মোরাতা। সেটা এই মৌসুমে লা লিগায় রিয়ালের ১৪তম হেডের গোল।

সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে রিয়ালের ২৪ গোল যেমন সর্বোচ্চ তেমনি কেবল লিগেও হেডের ১৪ গোল সেরা। লিগের পাশাপাশি কোপা দেল রেতে ৫টি, চ্যাম্পিয়নস লিগে ৪টি আর ইউরোপিয়ান সুপার কাপে হেডে ১ গোল করেছেন জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। তিনি নিজে ১৯৯৮ বিশ্বকাপ ফাইনালে হেডে দুই গোল করে বুক ভেঙেছিলেন ব্রাজিলের। শিষ্যদের তো হেডে গোলের অনুপ্রেরণা দেবেনই এই ফরাসি কিংবদন্তি।

রিয়ালের হেডে করা ২৪ গোলের সবচেয়ে বেশি ৬টি রামোসের। ৩টি করে গোল বেনজিমা আর মোরাতার। এ ছাড়া ২টি করে গোল রোনালদো, বেল আর মারিয়ানোর। আর একটি করে আসেনসিও, পেপে, হামেস ও ভাসকেসের। লা লিগায় এস্পানিওলের বিপক্ষে মোরাতা যেমন হেডের গোলে এগিয়ে দিয়েছিলেন রিয়ালকে তেমনি এর ঠিক আগের ম্যাচ চ্যাম্পিয়নস লিগে নাপোলির সঙ্গেও কাজে এসেছে হেড। শুরুতে পিছিয়ে যাওয়ার পর বেনজিমার হেডারেই সমতা ফিরিয়েছিল রিয়াল।

হেডের ২৪টি গোলই গুরুত্বপূর্ণ। এর মধ্যেও আলাদা নজর কেড়েছেন রামোস। ইউরোপিয়ান সুপার কাপ ফাইনালে তাঁর শেষ মুহূর্তের হেড বাঁচিয়েছিল রিয়ালকে। একইভাবে এল ক্লাসিকোতেও শেষ বেলায় করা রামোসের জোরালো হেডারে ন্যু ক্যাম্প থেকে সমতা নিয়ে ফেরে তারা। মার্কা


মন্তব্য