kalerkantho


ফুটসালের চ্যাম্পিয়ন ইডাব্লিউএমজিএল

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ফুটসালের চ্যাম্পিয়ন ইডাব্লিউএমজিএল

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ‘হিস্টোরি ইজ কলিং’—ফাইনাল চলার সময়ই এই স্লোগানের বিশাল ব্যানার টাঙিয়েছিল ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেড (ইডাব্লিউএমজিএল)। ফাইনাল শেষে ঠিকই ইতিহাস গড়ল ইডাব্লিউএমজিএল।

বসুন্ধরা স্পোর্টস কার্নিভালের অন্যতম আকর্ষণীয় ইভেন্ট ফুটসালের চ্যাম্পিয়ন হলো তারা। গতকাল অনুষ্ঠিত ফাইনালে বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার-১-কে (বিআইএইচকিউ-১) টাইব্রেকারে হারিয়েছে তারা ৫-৪ ব্যবধানে। রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের অনুশীলন মাঠে অনুষ্ঠিত ফাইনালে নির্ধারিত সময়ে গোলশূন্য ড্র ছিল ম্যাচটি। বসন্তের পড়ন্ত বিকেলে উৎসবের আবহে অনুষ্ঠিত ফাইনাল উপভোগ করেন ইডাব্লিউপিডির সিনিয়র ইডি (অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফাইন্যান্স) ইমরুল হাসান, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের প্রকাশক ময়নাল হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, ডেইলি সানের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আমির হোসেন, কালের কণ্ঠ’র নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল, নিউজ টোয়েন্টিফোরের চিফ নিউজ এডিটর শাহনাজ মুন্নীসহ বসুন্ধরা গ্রুপের ঊর্ধ্বতন কর্তারা।

প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত ফুটসালের ফাইনাল ঘিরে উৎসবের আবহ ছিল পুরো মিডিয়াজুড়ে। ঘোড়ার গাড়ি আর ব্যান্ড পার্টিসহ বিশাল গাড়িবহর নিয়ে ফাইনাল খেলতে মাঠে যায় তারা। গ্যালারিতে যেমন ছিল মিডিয়ার দর্শকদের প্রাধান্য, তেমনি মাঠের খেলাতেও একতরফাই খেলেছে তারা। কিন্তু দুর্ভাগ্য দাপটে খেলেও গোলটা পাওয়া হয়নি। সাতজনের ফুটসালের ছোট্ট গোলপোস্টে মোস্তাফিজুর রহমান অপুর নেওয়া একটি শট বারে লেগে ফেরাটা ছিল তাদের সবচেয়ে সহজতম সুযোগ।

নির্ধারিত ৫০ মিনিট গোলশূন্য কাটার পর অতিরিক্ত ২০ মিনিটেও বল জালে পাঠাতে পারেনি কেউ। তাই খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে।

দুই দলের নেওয়া প্রথম চারটি শটই জড়ায় জালে। তবে বিআইএইচকিউ-১ এর পঞ্চম শটটি নূরে আলম মারেন বাইরে। সুযোগটা কাজে লাগিয়ে অপুর শেষ শট জালে জড়াতেই উচ্ছ্বাসে ভাসে মিডিয়া। ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটার ডোয়াইন ব্রাভোর ‘চ্যাম্পিয়ন’ গানের তালে নেচে শিরোপা উৎসবে মাতে তারা।

ফাইনালের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতেন ইডাব্লিউএমজিএলের মো. মনির উদ্দিন ফিরোজ। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন ইডাব্লিউপিডির ইমরুল হাসান। আর টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কারটি ইডাব্লিউএমজিএলের মোস্তাফিজুর রহমান অপুর। আনুষ্ঠানিকভাবে অবশ্য গতকাল ট্রফি বা প্রাইজমানি তুলে দেওয়া হয়নি। তবে মাঠে আনা ট্রফিটা নিয়ে নিজেদের ‘হিস্টোরি ইজ কলিং’—লেখা বিশাল ব্যানারের সামনে উৎসব করেছেন ইডাব্লিউএমজিএলের খেলোয়াড়রা। ইডাব্লিউএমজিএলের হয়ে খেলেছেন মাসুদুর রহমান, আব্দুল মান্নান, মাহবুবুর রহমান, মো. মনির উদ্দিন ফিরোজ, কে এম মাহবুব আলম, মোস্তাফিজুর রহমান অপু, আমিনুর রহমান, এস এম সালাউদ্দিন, শামীম হাসান, বিলাল হোসেন মন্টু, সাজ্জাদুল ইসলাম নয়ন ও খুররম জামান। এ ছাড়া দলের তিন কর্মকর্তা ছিলেন এস এম মেহেদি হাসান, মিন্টু ভূষণ রায় ও জহিরুল ইসলাম খন্দকার।


মন্তব্য