kalerkantho

'আইপিএলে টিকতে হলে নতুন কিছু করতে হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ১৫:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'আইপিএলে টিকতে হলে নতুন কিছু করতে হবে'

নিঃসন্দেহে বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে আসর আইপিএল। চলতি দ্বাদশ আসরে সুযোগ পেতে হাজারের ওপর ক্রিকেটার সারাবিশ্ব থেকে আবেদন করেছিলেন। কিন্তু সবার ভাগ্যে আবার এই সুযোগ জোটে না। বাংলাদেশের 'পোস্টার বয়' সাকিব আল হাসান নিয়মিতভাবেই আইপিএলে দেশের প্রতিনিধিত্ব করে যাচ্ছেন। গতবারের মতো এবারও তিনি সানরাইজার্স হায়দরাবাদে।  আঙুলের চোট সারিয়ে সবে দলে যোগ দিয়েছেন। দীর্ঘ অভিজ্ঞতা থেকে আইপিএল নিয়ে কেমন দৃষ্টিভঙ্গি তার?

সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ক্রিকেটে আসছে পরিবর্তন। বর্তমান যুগে সীমিত ওভারের ম্যাচের উইকেটে বেশি সুবিধা থাকছে রিস্ট স্পিনারদের জন্য। এই লড়াইয়ে কি ফিঙ্গার স্পিনাররা চাপে পড়ে যাচ্ছেন? জবাবে সাকিব বলেন, 'অবশ্যই। ক্রিকেট এখন প্রতিদিন বদলে যাচ্ছে। এখন যে ধরনের পিচে সীমিত ওভারের ক্রিকেট হয়, সেখানে রিস্ট স্পিনাররাই বেশি সাহায্য পায়। তাই দেখবেন, প্রতিটা দলই অন্তত এক জন রিস্ট স্পিনার রাখার চেষ্টা করে।'

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের আছে সাকিব-রশিদের দুধর্ষ এক স্পিন জুটি। আফগান স্পিন সেনসেশনকে এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা স্পিনার মনে করেন সাকিব। তিনি মনে করেন, স্পিনারদের লড়াই ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিতে পারে। স্পিনাররা সাধারণত মাঝের ওভারগুলোতে বল করে। মাঝের ওভারগুলোতে যে দল নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবে, ম্যাচও তাদের। যদিও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যে কোনো একটা ওভারই ম্যাচ ঘুরিয়ে দিতে পারে, কিন্তু মাঝের ওভারগুলোর গুরুত্ব অনেক বেশি।

তবে প্রতিযোগিতার যুগে যখন রিস্ট স্পিনারদের চাহিদা বাড়ছে; তখন ফিঙ্গার স্পিনারদের টিকে থাকার জন্য নতুন নতুন ট্রিকস আবিস্কারে জোর দিচ্ছেন সাকিব। তিনি বলেন, 'বিশেষ কিছু তো করতেই হবে। না হলে টিকে থাকা যাবে না। সেই লক্ষ্য সামনে রেখে ট্রেনিং করছি। বোলিংয়ে বৈচিত্র আনার চেষ্টা করছি। নতুন, নতুন জিনিস পরীক্ষা করছি। ওই যে বললাম, ক্রিকেট এখন প্রতিদিন বদলে যাচ্ছে। যার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে আপনাকেও নতুন কিছু আমদানি করতে হবে।'

মন্তব্য