kalerkantho

চার দিনেই শেষ হবে ঐতিহাসিক টেস্ট?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ মার্চ, ২০১৯ ২০:২৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চার দিনেই শেষ হবে ঐতিহাসিক টেস্ট?

ছবি : এএফপি

একসঙ্গে টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর এই প্রথমবার সাদা পোশাকে মুখোমুখি হয়েছে আফগানিস্তান এবং আয়ারল্যান্ড। তৃতীয় দিনের খেলা শেষে দেরাদুন টেস্ট জিততে আফগানিস্তানের প্রয়োজন ১১৮ রান; আয়ারল্যান্ডের ৯ উইকেট। আয়াল্যান্ডের ছুড়ে দেয়া ১৪৭ রানের টার্গেটে তৃতীয় দিন শেষে ১ উইকেটে ২৯ রান করেছে আফগানরা। টার্গেট বিবেচনায় ধারণা করা হচ্ছে, আগামীকাল চতুর্থ দিনেই ফয়সলা হয়ে যাবে দেরাদুন টেস্টের।

নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১৭২ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারী আয়ারল্যান্ড। জবাবে তিন ব্যাটসম্যানের হাফ-সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে ৩১৪ রান করে আফগানিস্তান। ফলে ১৪২ রানের লিড পায় তারা। এরপর নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ১ উইকেটে ১৩ রান করে দ্বিতীয় দিন শেষ করে আয়ারল্যান্ড। ওপেনার পল স্ট্রার্লিং ৮ ও এন্ডি বলবির্নি ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।

তৃতীয় দিন বাকি ৮ উইকেট থেকে ২৭৫ রান করতে পারে আয়ারল্যান্ড। আফগানিস্তানের স্পিনার রশিদ খানের ভেল্কিতে আফগানিস্তানের সামনে বড় টার্গেট দিতে পারেনি সফরকারীরা। ৩৪ ওভারে ৮২ রানে ৫ উইকেট নেন রশিদ। আফগানিস্তানের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে টেস্ট ফরম্যাটে ৫ উইকেট নিলেন তিনি। এছাড়া ইয়ামিন আহমাদজাই ৩টি ও ওয়াকার সালামখেইল ২টি উইকেট নেন।

৮ রান নিয়ে দিন শুরু করে ১৪ রানে থামেন স্ট্রার্লিং। তবে ১৩ রান নিয়ে শুরু করে হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নিয়েছেন বলবির্নি। চার নম্বরে নামা জেমস ম্যাককোলামের সাথে দ্বিতীয় উইকেটে ১০৪ রান যোগ করেন তিনি। ১৪৯ বলে ১১টি চারে ৮২ রানে তুলে থামেন তিনি। ৩৯ রানের বেশি করতে পারেননি ম্যাককোলাম। তাদের বিদায়ের পরও দলের ইনিংস বড় করেছেন আয়ারল্যান্ডের পক্ষে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান কেভিন ও'ব্রায়ান ও জিওর্জি ডকরেল। কেভিন হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নিলেও ২৫ রানে থামেন ডকরেল। কেভিন করেন ৭৮ বলে ৫৬।

দলীয় ২৩০ রানে নবম উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড। এ অবস্থায় ব্যাট হাতে জ্বলে উঠেন দুই বোলার ক্যামেরন ডোউ ও টিম মুরতাগ। শেষ উইকেটে মূল্যবান ৫৮ রান যোগ করেন তারা। প্রথম ইনিংসেও শেষ উইকেটে ৮৭ রান যোগ করেছিলেন এ জুটি। এতে ২৮৮ রান পর্যন্ত যেতে পারে আয়ারল্যান্ড। ফলে টেস্ট জয়ের জন্য ১৪৭ রানের টার্গেট পায় আফগানিস্তান।

সেই লক্ষ্যে দলীয় ৫ রানে প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। ২ রান করে ফিরেন ওপেনার আহমেদ শাহজাদ। এরপর দিনের বাকী সময়ে আর কোনো বিপদ হতে দেননি আরেক ওপেনার এহসানউল্লাহ ও রহমত শাহ। এহসানউল্লাহ ১৬ ও রহমত ১১ রানে অপরাজিত আছেন।

মন্তব্য