kalerkantho

স্মিথ-ওয়ার্নারকে বুকে জড়িয়ে বরণ করল জাতীয় দল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ মার্চ, ২০১৯ ১৭:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্মিথ-ওয়ার্নারকে বুকে জড়িয়ে বরণ করল জাতীয় দল

জাতীয় দলে পুনর্মিলনীতে স্মিথ-ওয়ার্নার। ছবি : নিউজ ১৮

পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে অস্ট্রেলিয়া দল এখন সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থান করছে। আগামী ২২ মার্চ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। এদিকে চলতি মাসের শেষেই এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে কেপটাউটন টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির দুই 'নায়ক' স্টিভেন স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নারের। এর আগেই জাতীয় দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন তারা। সতীর্থরাও তাদের বরণ করে নিয়েছে আন্তরিকভাবেই।

পাকিস্তানের বিপক্ষে এই সিরিজে খেলবেন না স্মিথ-ওয়ার্নার। বিশ্বকাপের আগে দলের সঙ্গে মানসিক দূরত্ব কাটিয়ে ফেলতেই দুবাই গিয়েছিলেন দুজন। সতীর্থরা তাদের কীভাবে বরণ করে নিয়েছেন সেটা জানিয়ে ওয়ার্নার বলেন, 'এটা অসাধারণ এক অভিজ্ঞতা ছিল। মনে হচ্ছিল যেন আমরা কখনোই দল থেকে এত দিন এত দূরে ছিলাম না। দলের খেলোয়াড়েরা আমাদের অপেক্ষাতেই ছিল, তারা আমাদের সাদরে বরণ করে নিয়েছে। আমাদের জড়িয়ে ধরেছে, বুকে টেনে নিয়েছে। এটা দারুণ ছিল।'

ভারতের বিপক্ষে শেষ তিন ম্যাচ জিতে অস্ট্রেলিয়া এখন দারুণ আত্মবিশ্বাসী। বিশ্বকাপ দলে স্মিথ-ওয়ার্নার যোগ দিলে দলটা নিশ্চিতভাবেই তারা আরও ভয়ংকর হয়ে উঠবে। বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে খেলবেন এই দুজন। দলের মানসিক অবস্থা বর্ননা করে ওয়ার্নার বলেন, 'ভারতে অসাধারণ এক সিরিজ জয়ে দলের সবাই বেশ চনমনে অবস্থায় আছে। এখন ওরা পাকিস্তানের বিপক্ষে কেমন খেলে, সেটা দেখার জন্য মুখিয়ে আছি। আশা করি, এখানেও ওরা সিরিজ জিতবে।'

গত বছর কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের কলঙ্ক লেগেছিল অজি ক্রিকেটে। এই অপকর্মের মাস্টারমাইন্ড তখনকার সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। মাঠে যার বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ধরা পড়েন ৬ মাসের সাজা কাটানো ক্যামেরন বেনক্রফট। আর সবকিছু জেনেও নীরব সম্মতি দেন তখনকার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। তিনজনই শাস্তি পেয়েছেন। জড়িত না থেকেও পরিস্থিতির কারণে দায়িত্ব ছেড়েছিলেন তখনকার কোচ ড্যারেন লেহম্যান। এরপর অজি দলকে নতুন করে সাজান কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।

খারাপ সময় পেছনে ফেলে নতুনভাবে দলের সঙ্গে মিশে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ওয়ার্নার, 'এখন অতীত ভুলে আমরা নিশ্চিত করতে চাই যে, দলের মূল্যবোধের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে সামনে এগিয়ে যাব। ১২ মাস দলে ছিলাম না আমরা, এর মধ্যে অবশ্যই অনেক বড় পরিবর্তন এসেছে। যে পরিবর্তনটা নিঃসন্দেহে ইতিবাচক। এখন সেই পরিবর্তন মেনে দলে আমাদের ভূমিকা ঠিকঠাক পালন করাই এখন মূল দায়িত্ব।'

দুই মহাতারকাকে ফিরে পেয়ে আনন্দিত কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার বলছেন, 'ওদের আবার দলে ফিরে পাওয়াটা হবে দারুণ ব্যাপার। যেন দুই ভাই আবার ঘরে ফিরছে। যে কোনো কারণেই হোক, দুই ভাই ঘর ছেড়ে বেরিয়ে পড়েছিল, তাই তাদের ফিরে পাওয়াটা খুবই সুখের ব্যাপার। দুজনকেই সবাই আন্তরিকভাবে বরণ করে নিয়েছে দল। গতকাল আমরা দারুণ একটা রাতও কাটিয়েছি। আজকেও অনেকের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ হচ্ছে। দলে সবাই ইতিবাচকভাবেই ওদের গ্রহণ করেছে।'

মন্তব্য