kalerkantho


নিউজিল্যান্ডে প্রথম জয়ের আশায় বাংলাদেশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৫:৫৩



নিউজিল্যান্ডে প্রথম জয়ের আশায় বাংলাদেশ

ব্যাটসম্যান-বোলারদের অনুজ্জল পারফরমেন্সে নিউজিল্যান্ডের কাছে ইতোমধ্যে ওয়ানডে সিরিজ হেরেছে সফরকারী বাংলাদেশ। সিরিজ হেরে এখন হোয়াইটওয়াশের মুখে দাঁড়িয়ে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে হারলেই হোয়াইটওয়াশড হয়ে ষোলো কলা পূর্ণ হবে। তবে সিরিজ হারের স্মৃতি ভুলে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়ানোই এখন প্রধান লক্ষ্য বাংলাদেশের। ডানেডিনে ইউনিভার্সিটি ওভালে আগামীকাল ২০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে।

সিরিজে ভালো খেলার লক্ষ্য নিয়েই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচে পারফরমেন্সের ছিঁটেফোটাও দেখা যায়নি। বিশেভাবে টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রথম ম্যাচে ৯৪ রানের মধ্যে ৬ ব্যাটসম্যান প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে প্রায় একই চিত্র দেখা গেছে বাংলাদেশের স্কোরলাইনে। ৯৩ রানে হারিয়ে বসেছিল ৫ উইকেট।

দুই ম্যাচেই বাংলাদেশকে বিপদ থেকে রক্ষা করেন মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন। প্রথম ম্যাচে ৯০ বলে ৬২ এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ৫৭ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলেন তিনি। তবে হার এড়ানো যায়নি। দুই ম্যাচেই ৮ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। তার ওপর চোট আক্রান্ত হওয়ায় শেষ ওয়ানডেতে মিঠুনকে পাওয়া যাচ্ছে না।

মিঠুনের দুটি হাফ-সেঞ্চুরি, সাইফউদ্দিনের ৪১ ও সাব্বিরের ৪৩ রানের পাশে দলের অন্যান্য ব্যাটসম্যানরা পুরোপুরি ব্যর্থ। দুই ম্যাচে তামিম ইকবালের রান ১০, লিটন দাসের ২, সৌম্য সরকারের ৫২, মুশফিকুর রহিমের ২৯, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ২০ রান। টপ-অর্ডারের শীর্ষ ব্যাটসম্যানরা যখন ব্যর্থ হন, তখন তো বড় সংগ্রহ গড়ে তোলাই মুশকিল।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এর আগে তিন সিরিজেই হোয়াইটওয়াশ হয় বাংলাদেশ। ২০০৭, ২০১০ ও ২০১৬ সালের সফরে। সবগুলো সিরিজই ৩ ম্যাচের ছিল। এবার হোয়াইটওয়াশের লজ্জা থেকে বাংলাদেশ রক্ষা পেতে পারে কি-না, সেটির জন্য অপেক্ষায় ভক্তরা। তবে তৃতীয় ওয়ানডেতে জয় পেলে, বাংলাদেশের দুটি আশা পূরণ হবেই। একটি নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথম ওয়ানডে জয়। আর দ্বিতীয়টি হলো, প্রথমবারের মত নিউজিল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ না হওয়া।



মন্তব্য