kalerkantho


পাকিস্তানকে উড়িয়ে ইমার্জিং কাপের সেমিতে টাইগাররা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৯:৪৮



পাকিস্তানকে উড়িয়ে ইমার্জিং কাপের সেমিতে টাইগাররা

বাংলাদেশ-পাকিস্তান আবারও মুখোমুখি হবে সেমিফাইনালের লড়াইয়ে। ছবি : টুইটার

দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে যখন প্রথম ওয়ানডে জয়ের পথে আছে জাতীয় দল; তখন পাকিস্তানের মাটিতে ইমার্জিং এশিয়া কাপের মঞ্চে স্বাগতিকদের উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। ৮৪ রানের বড় জয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল। অন্যদিকে হেরে গিয়েও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমির টিকিট পেয়েছে পাকিস্তান। ১৩ ডিসেম্বর সেমির লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে দুই দল।

দেশের মাটিতে যখন উইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলছে জাতীয় দল; ঠিক তখনই পাকিস্তানের করাচিতে ইমার্জিং এশিয়া কাপে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ দল। টুর্নামেন্টে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ব্যাট হাতে স্বাগতিক বোলারদের বেদম পিটিয়েছে লাল-সবুজের দল। ৫০ ওভারে দলীয় রান ৩০৯। কিন্তু একটিও তিন অংকের ইনিংস নেই।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে বাংলাদেশ। ওপেনিং জুটিতে আসে ৪৮ রান। এরপর ৯৮ রানের জুটি উপহার দেন জাকির হাসান এবং নাজমুল হোসেন শান্ত। ৬৯ বলে ৬৯ করা জাকিরের বিদায়ে জুটি ভাঙার পর ফিরে যান ৪৯ রান করা শান্ত। মোসাদ্দেক হোসেন ৭৪ বলে ৩ বাউন্ডারি এবং ৪ ওভার বাউন্ডারিতে অপরাজিত ৮৫ রানের ইনিংস খেলেন। দলের হয়ে আরেকটি হাফ সেঞ্চুরি করেন ইয়াসির আলী (৫৬)।

জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৪ রানেই নাঈম হাসানের বলে প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। ৯ রানের ব্যবধানে দ্বিতীয় শিকার ধরেন এই তরুণ স্পিনার। ৪৯ রান করা অপর ওপেনার জিসান মালিককে প্যাভিলিয়েন ফেরত পাঠান শরিফুল। মোসাদ্দেক বোল্ড করে দেন পাকিস্তান অধিনায়ক মোহাম্মদ রিজওয়ানকে (৪৭)। 

এরপর আর বাংলাদেশের বোলারদের সামনে দাঁড়াতে পারেনি স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। তবে এক প্রান্ত আগলে কুশদিল শাহ (৬১) বাংলাদেশের চিন্তার কারণ হয়ে দাড়িয়েছিলেন। নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে কুশদিলের বিদায়ের পর জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের। নাইম হাসান সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নিয়েছেন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন শফিউল এবং মোসাদ্দেক। ১টি করে উইকেট শিকার করেন শরিফুল ইসলাম, তানভীর ইসলাম এবং আফিফ হোসেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন বাংলাদেশের মোসাদ্দেক হোসেন।



মন্তব্য