kalerkantho



এই সপ্তাহেই ভাগ্য নির্ধারণ হবে স্মিথ-ওয়ার্নারের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ১৬:৪৬



এই সপ্তাহেই ভাগ্য নির্ধারণ হবে স্মিথ-ওয়ার্নারের

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে নিষিদ্ধ হওয়া স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার এবং ক্যামেরন বেনক্রফটের ভাগ্য নির্ধারিত হবে চলতি সপ্তাহেই। তাদের সাজার মেয়াদ কমানো হবে কিনা সে ব্যাপারে এই সপ্তাহেই সিদ্ধান্ত হবে। কেপটাউন টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বল বিকৃতি করায় তিন ক্রিকেটারকেই নির্বাসনে পাঠিয়েছে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু নানা মহল থেকে চাপ আসছে সেই শাস্তি তুলে নেওয়ার জন্য। 

ইতিমধ্যেই চাপের মুখে সরে দাঁড়িয়েছেন অস্ট্রেলীয় বোর্ডের একাধিক কর্মকর্তা। এই অবস্থায় এই তিন ক্রিকেটারের ভাগ্য নিয়ে এই সপ্তাহের শুরুতেই বৈঠকে বসছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। সেখানেই সম্ভবত ঠিক হয়ে যাবে ভারতের বিরুদ্ধে স্মিথরা খেলতে পারবেন কি না।

তবে সবাই আবার এই শাস্তির বিপক্ষে নয়। যেমন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ফাস্ট বোলার মিচেল জনসন। তিনি টুইট করেছেন, 'তিন জন ক্রিকেটারকে নির্বাসন দিয়েছে বোর্ড। ওরা সেই শাস্তি মেনেও নিয়েছে। তাই আমার মতে, শাস্তি বহাল থাকুক।'

অস্ট্রেলীয় বোর্ডের ওপর সব চেয়ে বেশি চাপ সৃষ্টি করেছে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটারদের সংস্থা (এসিএ)। লিখিত ভাবে তারা তাদের দাবিও পেশ করেছে। একটি নিরপেক্ষ রিভিউ জানিয়েছে, বল বিকৃতির ঘটনায় শুধু অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটারদের দায়ী করলেই চলবে না। এর জন্য দায়ী অস্ট্রেলীয় বোর্ডের কর্মকর্তারাও। কারণ, তারাই এমন একটি পরিবেশ তৈরি করেছিলেন, যেখানে ক্রিকেটারেরা বাধ্য হয়েছেন এই রকম অনৈতিক রাস্তায় হাঁটতে। যে কোনও মূল্যে জিততেই হবে, এই রকম একটা মানসিকতা ক্রিকেটারদের মধ্যে তৈরি হওয়ার জন্য বোর্ড দায়ী বলে ওই রিভিউ রিপোর্টে বলা হয়েছে।

স্মিথ, ওয়ার্নারদের ভাগ্যে কী হবে, তার ওপর অনেকটাই নির্ভর করে আছে সিএ বনাম এসিএ সম্পর্কও। শোনা যাচ্ছে, ক্রিকেটারদের সংগঠন নাকি চাইছে, বোর্ডের বৈঠকের আগে কর্তাদের সঙ্গে একদফা কথা বলতে। সামনাসামনি না হলেও ফোনে কথা বলতে চান এসিএ-র প্রতিনিধিরা। কিন্তু অস্ট্রেলীয় প্রচারমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সেই প্রস্তাবে রাজি হবেন না বোর্ডকর্তারা। খুব বেশি হলে তারা তাদের সিদ্ধান্ত সরকারি ভাবে ঘোষণা করার আগে এসিএ প্রতিনিধিদের জানিয়ে দিতে পারেন। 

৯ মাস নিষিদ্ধ হওয়া ক্যামেরন ব্যানক্রফ্টের শাস্তি উঠে যাচ্ছে ২৯ ডিসেম্বর। ফলে টেস্ট সিরিজে পরের দিকে খেলার সুযোগ থাকছে তার। শাস্তি উঠে গেলে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ফিরে নিজেকে তৈরি করার সুযোগ পাবেন তিনি। এমনও হতে পারে, স্মিথ-ওয়ার্নার আপাতত শুধু শেফিল্ড শিল্ডে খেলারই সুযোগ পাবেন।



মন্তব্য