kalerkantho



ইতিহাস গড়া ইনিংসটা স্ত্রীর জন্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১০:১৯



ইতিহাস গড়া ইনিংসটা স্ত্রীর জন্য

ডাবল সেঞ্চুরির পর স্ত্রীর জন্য মুশফিকের ভালোবাসার প্রকাশ। ছবি : এএফপি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ছাত্র মুশফিকুর রহিম ক্রিকেট মাঠেও ইতিহাস গড়তে ওস্তাদ। দেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি এসেছিল তার হাত ধরে। গতকাল আবারও ডাবল হাঁকিয়ে সর্বোচ্চ রানের মালিক হয়ে গেলেন 'মি. ডিপেন্ডেবল' খ্যাত এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। গড়েছেন একটি বিশ্বরেকর্ডও। এমন দুর্দান্ত ইনিংসটি নিজের প্রিয়তমা স্ত্রীকে উৎসর্গ করেছেন মুশি। 

তিনি বলেন, 'এই ইনিংসটি আমার স্ত্রীকে উৎসর্গ করেছি। ইনিংসটা অনেক স্পেশাল ছিল। ও আমাকে অনেক অনেক উৎসাহ দিয়েছে। গতকালও আমাকে অনেক উৎসাহ দিয়েছে। আর ২০১০ সালে আমার প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি, বিশেষ করে এই মাঠে আমার প্রথম সেঞ্চুরি। এটা আমার ক্ষেত্রে মাইলফলক ছিল। চেষ্টা থাকবে এটার ধারবাহিকতা ধরে রাখার।'

২০১৩ সালে নিজের ক্যারিয়ারে প্রথম ডাবল-সেঞ্চুরি করেন মুশফিক। এরপর পাঁচ বছর পর আবারো নতুন ইতিহাস গড়া নিয়ে মুশি বলেন, 'টেস্টে খুব খারাপ ছন্দে ছিলাম সেটা বলব না। হয়তো বড় রান আসেনি কিন্তু আমি জানতাম বড় ইনিংস হবে। একটু ভাগ্য আমার পক্ষে কথা বললেই একটা ফিফটিকে বড় একটা ইনিংসে পরিণত করতে পারব, এমন অনুভূতি ছিল। এই জায়গায় আমার একটু সমস্যা ছিল। সেটা ওভারকাম করে এই ইনিংসে জুড়ে সেটা ক্যাপিটালাইজ করতে পেরেছি। নিজের ওপর অনেক বিশ্বাস ছিল, প্রস্তুতিটা অনেক ভাল ছিল। সেদিক থেকে অবশ্যই অনেক ভাল লাগছে। কারণ ডাবল সেঞ্চুরি সহজ ছিল না।'

শ্রীলঙ্কার গল টেস্টের পর মিরপুরের মাঠে ডাবল-সেঞ্চুরি, এরমধ্যে কোনটি এগিয়ে? এমন প্রশ্নের জবাবে মুশফিক বলেন, 'এগিয়ে রাখার সময় আসেনি। যদি এই ম্যাচটা জিততে পারি তাহলে এটাই এগিয়ে থাকবে। কারণ আমরা গলে টেস্ট জয় করিনি, ড্র করেছি। ঐটা কঠিন ছিল। কারণ ওরা ৫০০ রানের মত করেছিল। তারপর এসে ব্যাট করা সহজ ছিল না এবং আক্রমনাত্মক খেলাটাও কঠিন ছিল। আবার এই উইকেটে শুরুতে এসে ব্যাট করার সময় বোলারদের যথেষ্ট সহায়তা ছিল, আর বোলাররাও যথেষ্ট ভাল করছিল। এই ইনিংসটাকে গলের তুলনায় অনেক কমপেক্ট বলতে পারেন। আমি এখানে বলও অনেক খেলেছি। আমার মনে হয় এটা ভালো ইনিংস ছিল। সেরা বলব না।'



মন্তব্য