kalerkantho


নেশন্স লিগে টিকে রইল ইতালির আশা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:২৬



নেশন্স লিগে টিকে রইল ইতালির আশা

ছবি : এএফপি

ফিওরেন্তিনার লেফট-ব্যাক ক্রিস্টিয়ানো বিরাগির শেষ মুহূর্তের গোলে পোল্যান্ডের বিপক্ষে গ্রুপ-৩ এর লড়াইয়ে ১-০ গোলে জয়ী হয়ে নেশন্স লিগের আশা টিকিয়ে রেখেছে ইতালি। রবিবার রাতে পোল্যান্ডের চরজোতে এই জয়ের মাধ্যমে আজ্জুরিরা কোচ রবার্তো মানচিনিকে প্রথম কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ম্যাচে জয় উপহার দিল।

২৬ বছর বয়সী ডিফেন্ডার বিরাগি ইনজুরি টাইমের দ্বিতীয় মিনিটে জয়সূচক গোলচি করেন। পুরো ম্যাচে অবশ্য আজ্জুরিদের আধিপত্যই বেশি ছিল। এই পরাজয়ে পোল্যান্ডের লিগ 'বি' তে রেলিগেশন নিশ্চিত হলো।

বুধবার ইউক্রেনের সাথে প্রীতি ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করা দলটির উপরই আস্থা রেখেছিলেন মানচিনি। দলটির আক্রমণভাগের নেতৃত্বে ছিলেন ফেডেরিকো বারনারডেশী, লোরেঞ্জে ইনসিগনে ও ফেডেরিকো চিয়েসা। জেনোয়ার বিপক্ষে অভিষেক হওয়ার পর মধ্যমাঠে লোরেঞ্জো পেলেগ্রিনির জায়গায় মূল একাদশে নেমেছিলেন ২১ বছর বয়সী নিকোলো বারেলা। অন্যদিকে পোল্যান্ড জেনোয়া ফরোয়ার্ড ক্রিজিসটো পিয়াটেকের পরিবর্তে রবার্তো লিওয়ানোদোস্কি ও আরকাডিয়াস মিলিকের উপরই আস্থা রেখেছিল। অথচ ক্লাব ও দেশ মিলিয়ে ১০টি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে পিয়াটেক ১৪টি গোল করেছেন।

প্রথমার্ধের প্রায় পুরোটাই নিজেদের আধিপত্য ধরে রেখেছিল ইতালি। কিন্তু আবারো সেই কাঙ্খিত গোলের অভাবে সাফল্য পাচ্ছিল না। পাঁচ মিনিটে জর্জিনহোর শট বারে লেগে ফেরত আসে। চিয়েসার বল বারের কারনে জালে প্রবেশ করেনি। তবে পোল্যান্ড তাদের গোলরক্ষক ওজিচেক সিজিসনিকে ধন্যবাদ দিতেই পারে। আলেসান্দ্রো ফ্লোরেঞ্জি, জর্জিনজো, ফেডেরিকো বারনারডেশি ও জুভেন্টাস সতীর্থ গিওর্গিও চিয়েলিনিকে হতাশ করে সিজিসনি বারবার পোল্যান্ডকে রক্ষা করেছেন।

বারনারডেশি ও মার্কো ভেরাত্তির সহায়তায় ৬৫ মিনিটে গোল পেলেও ইনসিগনের অফ-সাইডের কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। দ্বিতীয়ার্ধে পোল্যান্ডও বেশ কিছু সুযোগ নষ্ট করেছে। তবে শেষ পর্যন্ত বদল খেলোয়াড় কেভিন লাসাগনার কর্ণার থেকে বিরাগি ইতালিকে দারুন এক জয় উপহার দেন। এই জয়ের মাধ্যমে ডিসেম্বরে ইউরো ২০২০'র বাছাইপর্বের ড্রয়ের আগে অন্তত ইতালি নেশন্স লিগে নিজেদের টিকিয়ে রাখলো। আগামী ১৭ নভেম্বর তারা পরবর্তী ম্যাচে পর্তুগালের মোকাবেলা করবে।

বিশ্বকাপের মূল পর্বে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি খেলতে ব্যর্থ হওয়ার পর মে মাসে নতুন কোচ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন মানচিনি। এরপর এটাই মানচিনির অধীনে ইতালিয়দের প্রথম জয়। ম্যাচ শেষে মানচিনি বলেছেন, 'নতুন ধারা ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। আমরা পুরো ম্যাচে আধিপত্য দেখিয়েছি। প্রথম গোলটা আমাদেরই পাওয়া উচিত ছিল। ম্যাচটি যদি গোলশুন্য ড্র হতো তবে মোটেই নায্য হতো না। সব খেলোয়াড়ই নিজেদের সেরাটা দেবার চেষ্টা করেছে। জয়টাও দারুণ হয়েছে।'



মন্তব্য