kalerkantho


বাবার প্রতিরক্ষায় হাসপাতালে ঘাঁটি গেড়েছেন সাকিব কন্যা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২১:৫৯



বাবার প্রতিরক্ষায় হাসপাতালে ঘাঁটি গেড়েছেন সাকিব কন্যা!

বাবাকে যেন আর ব্যাথা না দেওয়া হয় তা নিশ্চিতে হাসপাতালে ঘাঁটি গেড়ে বসেছেন সাকিব আল হাসান কন্যা আলাইনা হাসান অব্রি।

শনিবার রাতে নিজের ফেসবুক পেজে হাসপাতালের বেডে মেয়ের সঙ্গে তোলা একটি ছবি শেয়ার করে এমনটাই জানিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

ফেসবুকে ছবি পোস্ট করে সাকিব জানান, মেয়ে এসে হাসপাতালে ঘাঁটি গেড়ে বসেছে। কিছুতেই আমাকে চোখের আড়াল করতে চাইছে না। ডাক্তারদেরকেও দূরে সরিয়ে রাখছে যাতে আমাকে কেউ আর ব্যথা দিতে না পারে।

অনেকদিন ধরেই বাম হাতের আঙ্গুলে ইনজুরিতে ভুগছিলেন সাকিব আল হাসান। এবারের এশিয়া কাপেও খেলার ইচ্ছা ছিল না মোটেই। চেয়েছিলেন আঙ্গুলের অস্ত্রোপচার করে নিবেন। কিন্তু দেশের কথা মাথায় রেখে দুবাই উড়ে যান এশিয়া কাপ খেলতে। আসরের প্রথম চারটি ম্যাচও খেলেন। তবে পাকিস্তানের বিপক্ষে অলিখিত সেমিফাইনালটি আর খেলা হয়নি তার।

আঙ্গুলের ব্যথাটি মারাত্মকভাবে বেড়ে যাওয়া দুবাই ছেড়ে ঢাকা চলে আসেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

দেশে এসে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি হয়ে একটি সার্জারি করাতে হয়েছে তাকে। আঙ্গুলের ভেতরে জমা ৬০-৭০ মিলিমিটার পুঁজ বের করতে হয়েছে। এরপর আরও একটি সার্জারি করাতে হয়েছে। আর তাতেই হয়তো ভয় ধরেছে সাকিব কন্যার কচি মনে! বাবাকে  হয়তো আরো ব্যাথা দেওয়া হবে! নড়ছেনা হাসপাতাল ছেড়ে!

আগামীকাল যদি অবস্থার উন্নতি হয়, মানে ব্যথা আর ফোলা কমে, হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেতে পারেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক।

কাল যদি হাসপাতাল থেকে ছাড়াও পান সাকিব, সপ্তাহ দুয়েক তাঁকে থাকতে হবে পুরো বিশ্রামে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমান ধরার কথা ছিল সাকিবের। কিন্তু সেদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে চোট পাওয়া হাতে তীব্র ব্যথা অনুভব করেন। দেরি না করে ছুটে যান অ্যাপোলো হাসপাতালে। চোট পাওয়া বাঁ হাতের কড়ে আঙুল থেকে সংক্রমণ ধরা পড়ে পরীক্ষায়, দেখা যায় পুঁজ জমে মারাত্মক অবস্থা। পরশু অস্ত্রোপচার করে বের করা হয়েছে পুঁজ। মাস তিনেক মাঠের বাইরে থাকতে হবে সাকিবকে। সংক্রমণটা সারার আগ পর্যন্ত অস্ত্রোপচারও করানো যাবে না।

চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি মিরপুরে তিন জাতির টুর্নামেন্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে বোলিং আঙ্গুলে ব্যথা পান সাকিব। ইনিংসের ৪২ নম্বর ওভারে ফিল্ডিংয়ের সময় যে ব্যথা পেয়েছিলেন, সেটা নিয়েই তিনি বেশ কতগুলো ওয়ানডে খেলেন। ব্যথা নিয়ে সফর করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। 

ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজ জিতে ফিরেও আসেন দেশে। দেশে ফিরেই আঙ্গুলের অস্ত্রোপচার করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু এশিয়া কাপের বিবেচনায় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন অনুরোধ করেন টুর্নামেন্টের পর অস্ত্রোপচার করতে। বিসিবি সভাপতির অনুরোধে দলের সঙ্গে চলে যান দুবাই। প্রথম চারটি ম্যাচও খেলেন।



মন্তব্য

Shahin commented 17 days ago
How Sweet!!!!!!!!!!!!!