kalerkantho


ইনজামামের বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২১:২২



ইনজামামের বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ!

পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হকের বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতির গুরুতর অভিযোগ উঠল। সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক নাকি ছেলে ইবতিসামুল হককে জুনিয়র টিমে ঢোকানোর জন্য প্রভাব খাটিয়েছেন! দেশটির সাবেক ক্রিকেট মহাতারকা আবদুল কাদির স্বয়ং ইনজির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনেছেন। যা প্রকাশিত হওয়ার পর তোলপাড় শুরু হয়েছে দেশটির ক্রিকেটাঙ্গণে।

কাদির নিজেও এক সময় নির্বাচক কমিটির প্রধান ছিলেন। এই কাদিরের সঙ্গে ইনজামামের সম্পর্ক বরাবরই খারাপ। ক্রিকেট জুয়ায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠায় অতীতে ইনজামাম ও ওয়াসিম আকরামের ফাঁসি চেয়েছিলেন কাদির। সেই তিনিই আবার তুলে দিয়েছেন এই নতুন বিতর্ক। কাদিরের অভিযোগ নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি ও জুনিয়র সিলেক্টর বাসিত আলির সঙ্গে বৈঠক করেছেন ইনজামাম। তিনজনের ওই বৈঠকে কী আলোচনা হয়েছে, সেটা কেউই প্রকাশ করেননি।

তার আগেই টুইটারে ইনজামাম লিখেছিলেন, 'এই অভিযোগ আমি সম্পূর্ণ অস্বীকার করছি। কখনই জুনিয়র টিমের নির্বাচককে কোনো ক্রিকেটার নেওয়ার জন্য অনুরোধ কিংবা চাপ প্রয়োগ করিনি। আমি এই অভিযোগ নিয়ে বৈঠকও করেছি।'

ভাইপো ইমাম-উল-হকের জাতীয় টিমে সুযোগ পাওয়ার সময় থেকেই ইনজির বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ছিল। ইমাম অবশ্য ভালো পারফর্ম করায় সেই অভিযোগ হালে পানি পায়নি। কাদিরের দাবি ছিল, তিনি নাকি জুনিয়র দলের নির্বাচক বাসিতকেই জানিয়েছেন, ছেলেকে খেলানোর জন্য ইনজামাম নিজের প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছেন।

কাদিরের এই দাবি অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছেন বাসিত। জুনিয়র ওই নির্বাচকের কথায়, 'পিসিবি চেয়ারম্যানকে আমাকে অনুরোধ করবে, এই রকম গুজব যারা ছড়াচ্ছেন, তাদের যেন কঠোর শাস্তি দেওয়া হয়।' 

এই বিতর্কে সাবেক সতীর্থ মহম্মদ ইউসুফও সমর্থন করেছেন ইনজামামকে। বলেছেন, 'ইনজি যে সত্যি কথা বলছে, তদন্ত হলেই সেটা প্রমাণ হয়ে যাবে।'

কাদির একসময় ইমরানের খুব কাছের লোক ছিলেন। ইমজামাম আবার সাবেক বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক এবং বর্তমানে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পছন্দের লোক। এই বিতর্কে ইমরান এখন কোন দিকে থাকেন, সেটাই দেখার বিষয়।



মন্তব্য