kalerkantho


নেইমারের নতুন হেয়ার স্টাইলের রহস্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ জুন, ২০১৮ ১৭:৩২



নেইমারের নতুন হেয়ার স্টাইলের রহস্য

ছবি : এএফপি

রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামার আগে নতুন চমক দিলেন ব্রাজিল সুপারস্টার নেইমার। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে আজ রাত ১২টায় মাঠে নামছে ব্রাজিল। দলের সবচেয়ে বড় তারকা নেইমারকে নিয়ে যে স্বপ্ন দেখছেন সাম্বার দেশের মানুষ। বিশ্বের সব চেয়ে দামি ফুটবলার গুরুতর চোট থেকে ফিরে এসে প্রস্তুতি ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে দুর্দান্ত গোল করে সমর্থকদের আশা দ্বিগুণ করে দিয়েছেন। এবার মাঠে নামার আগে দ্বিতীয় চমকটা দিলেন নতুন হেয়ার স্টাইল দিয়ে।

এই নতুন হেয়ার স্টাইলেই হয়তো রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু করতে চলেছেন নেইমার। মাস তিনেক আগে ব্রাজিলে চোট সারিয়ে ওঠার সময় নেইমার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভক্তদের জন্য নতুন হেয়ার স্টাইলের ছবি পোস্ট করেছিলেন। সেই ছাঁটকে বলা হচ্ছিল 'ডেডলক'। মনে করা হচ্ছিল বিশ্বকাপে সেই হেয়ার স্টাইলেই তাকে দেখা যাবে। কিন্তু সেই ছাঁটের সঙ্গে নতুন হেয়ার স্টাইলের মিল নেই। এবারে তিনি চুলে রংও করেছেন। সোনালি কোঁকড়ানো চুলেই সুইৎজারল্যান্ডের বিপক্ষে নামার কথা নেইমারের। স্টাইলের রহস্যটা অবশ্য গোপনই রেখেছেন তিনি।

তাকে ঘিরে সামান্য সংশয় থাকলেও সমর্থকেরা ধরে নিয়েছেন, নেইমারকে প্রথম ম্যাচ থেকেই দেখা যাবে। ব্রাজিলের বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর আগে প্রবল উন্মাদনা চলছে গোটা দেশে। রিও ডি জেনিরোসহ ব্রাজিলের বড় শহরগুলিতে সরকারি কর্মীরা চাইলে নেইমারদের ম্যাচে নামার দিন ছুটি নিতে পারেন। বড় বড় রেস্তরাঁতে ব্রাজিলের সব ম্যাচ দেখার ব্যবস্থা রয়েছে। মালিক ব্রাজিলীয় না হলেও একই ব্যবস্থা থাকছে বড় শহরের বেশ কিছু রেস্তরাঁয়।

৭-১ গোলে হারের দুঃস্বপ্ন ভুলে চার বছর পরে রাশিয়া বিশ্বকাপে ব্রাজিলকে কলঙ্কমুক্ত করবেন নেইমার, এমন আশায় বুক বেধেঁ আছেন ভক্তরা। তার একটা কারণ বিশ্বকাপে সেরা তারকারা যে বয়সে জ্বলে উঠেছেন, ক্যারিয়ারের ঠিক সেই জায়গাতেই আছেন এখন ২৬ বছর বয়সি নেইমার। গত ফেব্রুয়ারিতেই তার ২৬ বছর পূর্ণ হয়েছে। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে প্রায় একার হাতে দেশকে জেতানো দিয়েগো ম্যারাডোনার বয়স ছিল ২৬।

১৯৯০ বিশ্বকাপে সালভাতোর স্কিলাচি ২৫ বছর বয়েসেই বিশ্বকাপে গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন। ১৯৮২ সালে পাওলো রোসি একই কাণ্ড করে দেখান ২৬ বছর বয়েসে। ১৯৯৪ সালে ইতালিকে বিশ্বকাপ জিতিয়ে দেওয়ার মুখে নিয়ে আসা রবার্তো বাজ্জোর বয়স ছিল ২৭। ১৯৯৮ বিশ্বকাপ ফাইনালে যখন জোড়া গোল করে ফ্রান্সকে চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন তখন জিনেদিন জিদানের বয়স ছিল ২৬। নেইমার কি পারবেন ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি করতে?



মন্তব্য