kalerkantho


পুরো খেলে সমস্যা নেই; আইসিসির আপত্তি আধ খাওয়া 'আপেলে'!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ মে, ২০১৮ ১৮:৪২



পুরো খেলে সমস্যা নেই; আইসিসির আপত্তি আধ খাওয়া 'আপেলে'!

ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালীন ক্রিকেটাররা কি খাবেন, তা নিয়ে বিন্দুমাত্র মাথা ব্যথা নেই বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির। ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ অথবা ডিনার, ক্রিকেটারদের প্লেটে আপেলের কুচিতে অথবা ম্যাচের মাঝে প্যাভিলিয়নে বসে আস্ত একটা আপেলে কামড় বসাতে পারেন অনায়াসেই। তবে মাঠের মধ্যে কোনোমতেই 'আপেল' নিয়ে ঢোকা যাবে না!  এমনটাই নিয়ম আইসিসির!

পানিপানের বিরতির সময় দ্বাদশ ক্রিকেটারকে প্রায়শই কলা নিয়ে মাঠে ঢুকতে দেখা যায়। সংক্ষিপ্ত অবসরে দ্রুত গতিতে তা ক্রিকেটারদের মুখে চালান করার ছবি হামেশাই ধরা পড়ে ক্যামেরায়। কলায় আপত্তি না থাকলে দু-এক কামড় আপেলে অসুবিধা কোথায়? অসুবিধা নেই। অন্তত আস্ত আপেলে তো নয়ই। আইসিসির নিষেধাজ্ঞা শুধু 'আধ খাওয়া' আপেলেই!

এর আগে আইসিসর এমন আইন সামনে না আসলেও এবার পাকিস্তানের সৌজন্যে সেই ছবি দেখল ক্রিকেটবিশ্ব। লর্ডসে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান টেস্টের ঘটনাবহুল প্রথম দিনে পাকিস্তানের একাধিক ক্রিকেটার অ্যাপেলের স্মার্টওয়াচ পরে মাঠে নামেন। স্টেডিয়ামে উপস্থিত আইসিসির দূর্নীতি দমন শাখার আধিকারিকরা আপত্তি জানালে পাকিস্তান দলের পক্ষ থেকে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়।

ফোন, ল্যাপটপ কিংবা বিভিন্ন স্মার্ট ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইসের মতো স্মার্টওয়াচ নিয়ে ড্রেসিং রুমে ঢোকা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ না হলেও ম্যাচের আগে তা অ্যান্টি করাপশন ইউনিটের কর্মকর্তাদের কাছে জমা দেওয়ার নিয়ম আছে। তা সত্ত্বেও লর্ডসের প্রথম দিনে অন্তত দুই জন পাক ক্রিকেটার অ্যাপেলের স্মার্টওয়াচ পরে খেলতে নেমেছিলেন।

অ্যাপেলের স্মার্টওয়াচ ইন্টারনেটে বা ওয়াই-ফাইয়ে কোনো ফোন অথবা অন্য কোনও ডিভাইসের সঙ্গে অনায়াসে সংযুক্ত করা যায়। তাই প্লেয়ার্স অ্যান্ড অফিসিয়ালস এরিনায় ডিসকানেক্ট করে শুধু মাত্র সময় দেখার কাজে এর ব্যবহার করা যায় শর্ত সাপেক্ষে। দিনের শেষে পাক পেসার হাসান আলি বলেন, 'অ্যান্টি কোরাপশন ইউনিটের এক আধিকারিক এসে বলেন স্মার্টওয়াচ পরে মাঠে নামা বারণ। তাই এর পর থেকে আমরা আর স্মর্টওয়াচ পরে খেলতে নামব না।'

যিনি অ্যাপেলের এই ঘড়ি পরে খেলতে নেমেছিলেন সেই আসাদ শফিক আত্মপক্ষ সমর্থন করে বলেন, 'আসলে সারাদিন স্মার্টওয়াচ পরে থাকলে বোঝা যায় সারা দিনে কতটা ক্যালোরি নষ্ট হয়েছে। নিজেদের ওয়ার্ক-আউটের একটা স্পষ্ট ছবি বোঝার জন্যই আমরা স্মার্টওয়াচ পরে মাঠে নেমেছিলাম।'



মন্তব্য