kalerkantho


'কোহলি কখনই অধিকারের সীমা ছাড়িয়ে যায়নি'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ মে, ২০১৮ ১৭:৩৭



'কোহলি কখনই অধিকারের সীমা ছাড়িয়ে যায়নি'

ধোনি পরবর্তী যুগে ভারতের ক্রিকেটকে বেশ দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দিকে দিকে যেমন তার প্রশংসার স্তুতি; তেমনই আছে সমালোচনাও। অনেকে বলেন কোহলি স্বেচ্ছাচারী। তার গোয়ার্তুমিতে ক্যারিয়ার নষ্ট হয়েছে অনেক ক্রিকেটারের। তবে অধিনায়ক হিসেবে কোহলি কখনও নিজের অধিকারের সীমা ছাড়াননি বলে মনে করেন ভারতীয় বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রশাসনিক কমিটির প্রধান বিনোদ রাই।

ভারতীয় দলের নীতি নির্ধারণ নিয়ে গত ১৬ মাস কোহালিকে পর্যবেক্ষণ করা বিনোদ রাই নিজের অভিজ্ঞতা নিয়ে ভারতের এক শীর্ষ ইংরেজি দৈনিককে বলেছেন, 'প্রত্যেক অধিনায়কই একটা পর্যায় পর্যন্ত তার দলের উপর প্রভাব ফেলার চেষ্টা করে। একটা সীমা পর্যন্ত সেটা চলতে পারে। আমি সেই ছাড় দিতে রাজি। যাই হোক না কেন, অধিনায়কই কিন্তু পুরো দলের দায়িত্বটা বহন করে। তবে এটা আমি পরিষ্কার করে দিতে চাই যে, কেউ কিন্তু আমার কাছে এসে কখনও বলেনি, কোহলি ক্ষমতার বাইরে গিয়ে দলের উপর প্রভাব ফেলার চেষ্টা করেছে।'

অনিল কুম্বলে ভারতীয় কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সময় কোহলির প্রভাব নিয়ে প্রচুর কথা উঠেছিল। জল্পনা চলেছিল, কোহালি না চাওয়াতেই কুম্বলে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন। কিন্তু বিনোদ রাই মনে করেন কোহলি এসব জায়গায় নিজের প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করেন না। তিনি বলেছেন, 'ব্যক্তিগতভাবে কোহলি আমার সঙ্গে সব সময় যথাযথ ব্যবহার করেছে। কখনও কোনো ব্যাপারে আমাকে মানাতে চেষ্টা করেনি। টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদেরও কোহলিকে নিয়ে কোনো সমস্যা নেই।' 

প্রশ্ন উঠেছিল আফগানিস্তান টেস্ট না খেলে কোহালির কাউন্টি ক্রিকেটে খেলার সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপারে বিনোদ রাই বলেন, 'দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের সময় প্রচুর সমালোচনা হয়েছিল। বলা হচ্ছিল, দল পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সময় পায়নি। ওই সফরে টেস্ট সিরিজেও আমরা ২-১ ব্যবধানে হেরেছিলাম। এবার তাই আমরা টিম ম্যানেজমেন্ট আর 'এ' দলের কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গে আলোচনা করি। যাতে এমন একটা পরিকল্পনা করা যায়, যেখানে আমাদের ক্রিকেটাররা সফরের জন্য আগে ওখানে পৌঁছে পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সময় পায়। তা ছাড়া আফগানিস্তানও তো বলেছে ওরা ভারতের বিপক্ষে খেলবে, কোহলির বিপক্ষে নয়।'


মন্তব্য