kalerkantho


ক্রিকেট মাঠে জঙ্গি হানা: নিন্দা-প্রতিবাদে সোচ্চার রশিদ থেকে ইমরান খান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মে, ২০১৮ ২০:৩২



ক্রিকেট মাঠে জঙ্গি হানা: নিন্দা-প্রতিবাদে সোচ্চার রশিদ থেকে ইমরান খান

আফগানিস্তানের ক্রিকেট যখন একের পর এক উন্নতির ধাপ অতিক্রম করে যাচ্ছে, তখনই তাদের দেশের এক ক্রিকেট মাঠে আবারও ঘটল ভয়াবহ জঙ্গি হানার ঘটনা। জালালাবাদের এক স্টেডিয়ামে ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালীন বিস্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছেন ৮ জন। আহত ৪৫। ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে ক্রিকেটবিশ্ব। জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন আফগান ঘূর্ণি জাদুকর রশিদ খান থেকে শুরু করে সাবেক পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ইমরান খান পর্যন্ত।

এই মুহূর্তে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে আইপিএল খেলতে ভারতে রয়েছেন রশিদ। বিশ্ব টি-টোয়েন্টি ব়্যাংকিংয়ে এক নম্বরে থাকা এই রহস্যময় বোলার জঙ্গি হানার তীব্র নিন্দা করে নিহতের জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন। টুইটারে রশিদ লিখেছেন, 'ভাই তোমাদের মিস করব। তোমাদের আত্মার শান্তি কামনা করি। নেনগ্রাহর শহরের নাম উজ্জ্বল করার জন্য তোমারা কঠোর পরিশ্রম করেছে। তোমাদের আত্মত্যাগ সবাই মনে রাখবে। যাদের কারণে এমন হলো, তাদের প্রতি ঘৃণা।'

রমজান উপলক্ষ্যে আফগানিস্তানের পূর্ব জালালাবাদের নাজিমাবাদে একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছিল। টুর্নামেন্টটির আয়োজক ছিলেন হিদায়াতুল্লাহ জহির। শুক্রবার সন্ধ্যায় ম্যাচ চলাকালীন ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছেন টুর্নামেন্টের আয়োজকও। পরপর বিস্ফোরণে একটি শিশু মারা গেছে। কোনো সন্ত্রাসবাদী সংগঠন এখনও এই ঘটনার দায় স্বীকার করেনি। যদিও পূর্ব আফগানিস্তানে তালেবান এবং ইসলামিক স্টেটস (আইএস) জঙ্গিদের প্রভাব রয়েছে। মনে করা হচ্ছে, ধর্মীয় কারণেই এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে।

একটি বিবৃতিতে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি কড়া সমালোচনা করে বলেন, 'পবিত্র রমজান মাসে এই ধরণের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সন্ত্রাসবাদীরা আরও একবার প্রমাণ করল ওরা কোনও ধর্মকে সত্যিই মানে না। সন্ত্রাসবাদীরা মানবতার শত্রু' ১৪ জুন বেঙ্গালুরু স্টেডিয়ামে ভারতের সঙ্গে একমাত্র টেস্ট খেলতে আসছে আফগান ক্রিকেট দল তার আগে ক্রিকেট মাঠে এরকম বিস্ফোরণ নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে ক্রিকেটের উপর।

সাবেক পাকিস্তানি অধিনায়ক ইমরান খান এই ঘটনায় দুঃখ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে টুইটারে লিখেছেন, 'জালালাবাদের ক্রিকেট মাঠে জঙ্গিহানার তীব্র নিন্দা করছি। এটা অত্যন্ত দুঃখের যে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে যখন ক্রিকেট মাথা তোলার চেষ্টা করছে, ঠিক তখনই ওদের টার্গেট করা হচ্ছে।'

এছাড়া আইসিসি এবং আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকেও এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে।


মন্তব্য