kalerkantho


'নো বল' কেলেঙ্কারি থেকে কবে মুক্তি মিলবে বাংলাদেশের?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ মার্চ, ২০১৮ ১৫:৫৭



'নো বল' কেলেঙ্কারি থেকে কবে মুক্তি মিলবে বাংলাদেশের?

বিজয়ের সেই মুহূর্ত। ছবি: এএফপি

বাংলাদেশের কোনো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ মানেই যেন বাজে আম্পায়ারিং। গত তিন বছর ধরে এমনটাই নিয়তি হয়ে গেছে টাইগারদের। শুরুটা হয়েছিল ২০১৫ বিশ্বকাপ থেকে। কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে সেই নো বল কেলেঙ্করিতে গোটা ক্রিকেট বিশ্বে নিন্দার ঝড় উঠেছিল। খোদ সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটাররাও নিন্দা জানিয়েছিলেন আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড এবং আলিম দারের বাজে সিদ্ধান্তের। এখন প্রশ্ন, এই নো বল কেলেঙ্কারি থেকে কবে মুক্তি মিলবে টাইগারদের?

গতকাল শুক্রবার নিদাহাস ট্রফির মঞ্চে আবারও দেখা গেল নো বল কেলেঙ্কারি। ভিলেন এবার শ্রীলঙ্কান আম্পায়ার। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ ছিল সেটি। উদানার করা শেষ ওভারে দুটি বল কাঁধের ওপর দিয়ে গেলেও আম্পায়ার নো বল কল করেননি। এতে স্বাভাবিকভাবে ভীষণ চটে যায় বাংলাদেশ শিবির। মাঠের মধ্যে আম্পায়ারদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়ান মাহমুদ উল্লাহ। আর মাঠের বাইরে রুদ্রমুর্তিতে দেখা দেন অধিনায়ক সাকিব।

ম্যাচে তখন তুমুল উত্তেজনা। সাকিবকে থামাতে ছুটে আসেন চতুর্থ আম্পায়ার। কিন্তু অধিনায়ক ম্যাচ বয়কটের কথা বলেন। দুই ব্যাটসম্যানকে মাঠ ছাড়ার নির্দেশ দেন। সত্যিকার অর্থে, ওই মুহূর্তে নো বল থেকে একটি রান আর একটি ফ্রি হিটের যে কতটা মূল্য, তা সবাই বুঝতে পারছিলেন। কিন্তু আম্পায়ার পক্ষপাতমুলক এই সিদ্ধান্তেই স্থির থাকেন। শেষ পর্যন্ত উত্তেজিত সাকিবকে কোনোমতে থামিয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরত পাঠান খালেদ মাহমুদ সুজন।

ম্যাচ আবারও শুরু হয়। মাহমুদ উল্লাহ ম্যাজিকে জিতে যায় বাংলাদেশ। নিশ্চিত করে ফাইনাল। আগামীকাল ভারতের বিপক্ষে শিরোপার লড়াইয়ে নামবে সাকিব আল হাসানের দল। তবে উত্তেজিত আচরণের জন্য শাস্তি পেতে হয়েছে সাকিবকে। শাস্তি পেয়েছেন একাদশের বাইরে থাকা নুরুল হাসান সোহান। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রশ্ন, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই যদি এমন বাজে আম্পায়ারিং হয়, তাহলে আইসিসির প্রভাবশালী সদস্য ভারতের বিপক্ষে কোন পরিস্থিতি না ফেস করতে হয় বাংলাদেশকে!



মন্তব্য