kalerkantho


লঙ্কান ক্রিকেটারদের পিঠে সবুজ আলোর রহস্য কী?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ মার্চ, ২০১৮ ১৮:০২



লঙ্কান ক্রিকেটারদের পিঠে সবুজ আলোর রহস্য কী?

ছবি: টুইটার

টানা ম্যাচ খেলে ক্লান্তি-অবসাদে ভুগেন অনেক ক্রিকেটার। জাতীয় দলের খেলা যেমন বেড়েছে, তেমনি এর বাইরে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ লেগেই আছে। এই ব্যস্ত সূচির কারণে অনেক ক্রিকেটার বারবার ইনজুরিতে পড়ছেন। তাদের ফিটনেসের খোঁজ সঠিকভাবে নিতে পারছে বেশিরভাগে ক্রিকেট বোর্ড। এই সমস্যা সমাধানে প্রযুক্তির আশ্রয় নিল শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। চলতি নিদাহাস ট্রফিতে তারা দলে যুক্ত করেছে নতুন এক প্রযুক্তি।

পুরো তথ্য প্রকাশ না করলেও জানা গেছে, ক্রিকেটদের ওয়ার্কলোড পরিমাপের জন্য জিপিএসের সহায়তা নিচ্ছে বোর্ডটি। মাঠে থাকাকালীন থিসরা পেরেরাদের পিঠে সবুজ রঙের একটি আলো জ্বলতে নিভতে দেখা যায়। এটি আসলে একটি জিপিএস ডিভাইস। যেটা প্রতিটি লঙ্কান ক্রিকেটারকে হাই পারফর্ম্যান্স সেন্টার থেকে দেওয়া হয়েছে। এটির সাহায্যেই ক্রিকেটারদের সক্ষমতা নির্নয় করে সেন্টারটি।

এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে ট্রেনাররা অ্যাথল্যাটদের দক্ষতা ও পরিশ্রমের সঠিক তথ্য পান। একইসঙ্গে তারা মাঠে কতটা আগ্রাসন দেখিয়েছেন সেটাও পরিমাপ করবে এই জিপিএস সিস্টেম। এই অত্যাধুনিক প্রযুক্তিটি লঙ্কানরা বার্সেলোনা থেকে নিয়ে এসেছে। যদিও বিষয়টির সম্পূর্ণ ক্রেডিট পেরেরাদের ফিল্ডিং কোচ নিক পোথাসের। দলের ফিল্ডিংয়ের মান বাড়ানোর জন্যই এই অভিনব পদ্ধতি অবলম্বন করেছেন সাবেক প্রোটিয়া ক্রিকেটার এবং বর্তমানে লঙ্কান ফিল্ডিংয়ের দায়িত্বে থাকা নিক।

এই জিপিএস প্রযুক্তির মাধ্যমে সয়ংক্রিয়ভাবে খেলোয়াড়দের সমস্ত তথ্য তাদের প্রোফাইলে আপলোড হয়ে যায়। হাই-পারফর্ম্যান্স সেন্টারের প্রধান সিমন উইলস জানান, 'এই জিপিএস থেকে পাওয়া ডাটা আমাদের ক্রিকেটারদের দক্ষতার মূল্যায়নে সাহায্য করে। সংগ্রহ করা ডাটা পর্যবেক্ষণ করে তাদের শক্তি ও দূর্বলতাগুলো জানা যায়। যেটা ট্রেনারদের জন্য খুব সুবিধার।'



মন্তব্য