kalerkantho


কিকবক্সিংয়ে নারীদের অনুপ্রেরণা দিচ্ছেন রামিশা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ মার্চ, ২০১৮ ১৪:৪৫



কিকবক্সিংয়ে নারীদের অনুপ্রেরণা দিচ্ছেন রামিশা

ছবি অনলাইন

কিকবক্সিং খেলাটি ঠিক বক্সিং নয়; মুষ্টিযুদ্ধের পাশাপাশি এতে কিকও দিতে হয়। আর এতে নারীদের অংশগ্রহণ বেশ কম। তবে সেই ধারাকে পেছনে ফেলে অন্য নারীদের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করছেন পাকিস্তানের কিকবক্সার রামিশা শাহিদ।

তিনি নিজেই শুধু কিকবক্সিং শেখেননি, বহু মেয়েদের তা শেখাচ্ছেন। এ খেলায় পাকিস্তানের একমাত্র নারী প্রশিক্ষক তিনি। এভাবেই পাকিস্তানের নারীদের মাঝে কিকবক্সিং ছড়িয়ে দেওয়ার কাজ করছেন রামিশা।

তবে শুধু কিকবক্সিংই নয়, অন্যান্য খেলাধুলাতেও পারদর্শী রামিশা। এক প্রশ্নের জবাবে জানান, ‘আমার মনে হয় এমন কোনো খেলা নেই, যা আমি খেলিনি। কিন্তু কিকবক্সিং অনেকটা আমার মন জয় করেছে।’

প্রতিদিন সকালেই তিনি ১৫ থেকে ১৮ জন মেয়েকে কিকবক্সিং শেখান। অন্য সময়ে আরো কয়েকজনকে শেখান তিনি। সব মিলিয়ে তার প্রশিক্ষণার্থীর সংখ্যা প্রায় ৩০ জন। পাকিস্তানের করাচির কে৭ ফিটনেস অ্যান্ড কিকবক্সিং অ্যাকাডেমিতে দুই শিফটে তিনি কিকবক্সিং শেখান।

কিভাবে কিকবক্সিং শুরু করলেন রামিশা? এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তার পরিবারের সদস্যরা সবাই খেলাধুলায় খুব আগ্রহী। পারিবারিকভাবে উৎসাহ পাওয়ায় তিনি সব ধরনের খেলা খেলতেন। এমনকি স্কুলে থাকতেই তিনি জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছিলেন। তবে পড়াশোনা ছাড়তে হবে জেনে আর সেখানে যাননি।

এরপর স্কুলে থাকতেই এক পর্যায়ে তায়কোয়ান্দোর সন্ধান পান। সেখানে ব্ল্যাক বেল্ট অর্জনের পর হঠাৎ একদিন গুগলে কিকবক্সিংয়ের সন্ধান পেয়ে যান। এরপর ক্রমে খেলাটিকে ভালোবেসে ফেলেন। জড়িত হন কিকবক্সিং একাডেমির সঙ্গে। ক্রমে প্রশিক্ষক হয়ে ওঠেন কিকবক্সিংয়ের।
সূত্র : ডন



মন্তব্য