kalerkantho


ক্রিকেটের পাশাপাশি রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় সফল যে তারকারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৫:৩৭



ক্রিকেটের পাশাপাশি রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় সফল যে তারকারা

যে ক্রিকেটারদের খেলা দেখে সমর্থকরা আনন্দে নেচে উঠে, কিংবা তাদের ব্যর্থতায় ক্ষুব্ধ হয়; সেই ক্রিকেটারদের জীবনে কিন্তু কঠিন এক বাস্তবতা আছে। ৩:৩৫ বছর বয়সে একজন সাধারণ মানুষ যখন নিজের পেশাগত জীবনে সেটল হয়ে যায়, একজন ক্রিকেটার তখন অবসরের দিন গোনে। তাই অনেকেই ক্রিকেট ক্যারিয়ার চলাকালীন সময়েই অন্য পেশায় জড়িয়ে পড়েন। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো রেস্টুরেন্ট ব্যাবসা।

বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অল:রাউন্ডার সাকিব আল হাসান থেকে ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকারও এই ব্যবসায় জড়িত। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ক্রিকেট তারকাদের রেস্টুরেন্ট ব্যবসার হাল:হকিকত:

সাকিব আল হাসান: বিশ্বসেরা অল:রাউন্ডার সাকিব আল হাসান ২০১৫ সালে রাজধানীর বনানীর ১১ নম্বর রোডে, ৪৮ নম্বর প্লটের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ফ্লোরে 'সাকিবস ডাইন' নামে একটি রেস্টুরেন্ট শুরু করেন। দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এই রেস্টুরেন্ট। এরপর গতবছর রাজধানীর মিরপুর ১ নম্বরের মাজার রোডে 'সাকিবস' নামে একটি রেস্টুরেন্ট কাম কনভেনশন হল চালু করেন। এতে অবশ্য তার পার্টনার হিসেবে আছেন জাতীয় দলের ওপেনার ইমরুল কায়েস।

শচীন টেন্ডুলকার: শচীন টেন্ডুলকার ২০০২ সালে মুম্বাইতে 'টেন্ডুলকারস' নামে একটি রেস্টুরেন্ট চালু করেন। এই রেস্টুরেন্টটিতে শচীনের সঙ্গে সঞ্জয় নারাংয়ের যৌথ মালিকানা আছে। এরপর 'শচীনস' নামে অন্য রেস্টুরেন্টটি তিনি শুরু করেন উত্তর মুম্বাই এবং বেঙ্গালুরুতে।

সৌরভ গাঙ্গুলী: 'প্রিন্স অফ ক্যালকাটা' সৌরভ গাঙ্গুলী ২০০৪ সালে একটি রেস্টুরেন্টর সূচনা করেন, নাম দেন 'সৌরভস'। যদিও তার চরম ব্যস্ততার জন্য ২০১১ সালে এই রেস্টুরেন্টটি বন্ধ হয়ে যায়।

বীরেন্দ্র শেবাগ: বীরেন্দ্র শেবাগ ২০০৬ সালে একটি নিরামিষ রেস্টুরেন্টর চালু করেন দিল্লিতে। এই নিরামিষ রেস্টুরেন্টর নাম 'শেবাগস।'

তাসকিন আহমেদ: বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের তরুণ গতি তারকা তাসকিন আহমেদও ২০১৭ সালে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা শুরু করেন। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের রিং রোড এলাকায় স্থাপিত রেস্টুরেস্টটির নাম 'তাসকিন'স টেরিটরি'। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে বেশ জাকজমকপূর্ণভাবে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে উদ্বোধন হয় রেস্টুরেন্টটির। এতে খাবারের পাশাপাশি বিনোদনের জন্য আছে বিলিয়ার্ড খেলার ব্যবস্থাও!

জাহির খান: ভারতীয় ক্রিকেটের এই বাঁহাতি পেসার ২০০৪ সালে পুণেতে তার রেস্টুরেন্ট শুরু করেন। রেস্টুরেন্টটির নাম 'জেকেএস।' এছাড়াও তার একটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের সংস্থাও রয়েছে।

রবীন্দ্র জাদেজা: ভারতীয় ক্রিকেটের এই অলরাউন্ডার ২০১২ সালে রাজকোটে 'জাড্ডুস' নামে একটি রেস্তোরাঁ শুরু করেন।

কপিল দেব: সাবেক এই ভারতীয় অধিনায়ক ১৯৮০ সালে চণ্ডীগরে তার রেস্টুরেন্টর চালু করেন। আগে এই রেস্টুরেন্টর নাম ছিল 'হোটেল কপিল', বর্তমান নাম 'ক্যাপ্টেটেনস রিট্রিট'।

মোহাম্মদ আশরাফুল: ভোজনরসিক হিসেবে খ্যাতি আছে ম্যাচ ফিক্সিং করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ মোহাম্মদ আশরাফুলের। বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে তিনি সম্ভবত প্রথম রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় নামেন। ২০১১ সালে রাজধানীর বাসাবোর বৌদ্ধ মন্দিরের ঠিক উল্টোদিকে 'সিচুয়ান চায়নিজ অ্যান্ড ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্ট' চালু করেন তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা অনিশ্চিত হলেও তার রেস্টুরেন্ট ব্যবসা কিন্তু দুর্দান্ত চলছে।



মন্তব্য