kalerkantho


দুবাইয়ে জায়গা নেই; এবার মালয়েশিয়াকে 'হোম গ্রাউন্ড' করবে পাকিস্তান!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৫:১৪



দুবাইয়ে জায়গা নেই; এবার মালয়েশিয়াকে 'হোম গ্রাউন্ড' করবে পাকিস্তান!

পিসিবি প্রধান নাজাম শেঠি। ছবি: ইন্টারনেট

ঘরের মাঠে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের সবরকম চেষ্টা চালিয়ে গেলেও শীর্ষ ক্রিকেট খেলুড়ে দলগুলো এখনও পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে ইচ্ছুক নয়। এর মধ্যে আছে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডও। চলতি বছরের শেষে এই দুটি দলের বিপক্ষে সিরিজ আয়োজন করতে যাচ্ছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। দীর্ঘদিন ধরেই সংযুক্ত আরব আমিরাত ছিল ঘরের বাইরে পাকিস্তানের হোম ভেুন্য। এই দুটি সিরিজ উপলক্ষে এবার বিকল্প ভেন্যু হিসেবে মালয়েশিয়ার কথা ভাবছে পিসিবি। 

প্রতি বছর জানুয়ারিতে এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) আয়োজনে শারজাহতে অনুষ্ঠিত হয় 'অ্যারাবিয়ান ক্রিকেট লিগ', তারপরপরই এখানে অনুষ্ঠিত হয় 'পাকিস্তান ক্রিকেট লিগ' (পিএসএল)। ফেব্রুয়ারিতেই সাধারণত পিএসএল অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। চলতি বছর থেকে শুরু হওয়া আফগান টি-টোয়েন্টি লিগের আসরও প্রাথমিক ভাবে শারজাহতে অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে। সে কারণেই আগামী অক্টোবর ও নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ নিয়ে এখন থেকেই পিসিবি বিকল্প ভাবনা শুরু করেছে।

এ সম্পর্কে পিসিবি চেয়ারম্যান নাজাম শেঠী বলেছেন, 'আমরা ইতোমধ্যেই ইসিবির কাছ থেকে আফগান সুপার লিগ ও অ্যারাবিয়ান ক্রিকেট লিগের ব্যপারে জেনেছি। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড যখন খেলতে আসবে ঐ সময়ই আফগান লিগ আয়োজনের সূচী রয়েছে। এ কারণেই সমস্যা দেখা দিয়েছে। দ্বিতীয়ত, প্রতি বছর জানুয়ারিতে তারা অ্যারাবিয়ান লিগ চালু করেছে, আর আমাদের পিএসএল হয় ফেব্রুয়ারিতে। দুটি লিগ খুব কাছাকাছি হওয়াতে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বিশেষ করে তারা যখন উভয় লিগেই আমাদের খেলোয়াড়দের চাচ্ছে তখন আমরা দ্বিধায় পড়ে যাচ্ছি।'

তিনি আরও বলেন, 'এ কারণেই অন্তত অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড সিরিজটি যদি আরব আমিরাত থেকে সরিয়ে অন্য কোথাও আয়োজন করা যায় সেটা দেখতেই আমি মালয়েশিয়ায় যাচ্ছি। যদিও এখনো কোন কিছুই নিশ্চিত নয়। সব ধরনের বিকল্পগুলো প্রস্তুত রাখতে চাইছি। এছাড়াও তারিখ পরিবর্তনের বিষয়টি নিয়েও আমরা ভাবছি, যাতে কোন ধরনের বিতর্ক না থাকে।'

নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুটি সিরিজেই ৫টি টেস্ট, কমপক্ষে ৫টি ওয়ানডে ও তিনটি করে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ আয়োজনের কথা রয়েছে।



মন্তব্য