kalerkantho


নিউক্যাসলের কাছে অঘটনের হারে ক্ষুব্ধ মরিনহো!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৩:১৯



নিউক্যাসলের কাছে অঘটনের হারে ক্ষুব্ধ মরিনহো!

ছবি: এএফপি

একটা বড় অঘটন ঘটে গেল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে। ৪ মাস পরে ঘরের মাঠে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডকে হারিয়ে দিয়ে জয়ের সরণিতে ফিরল নিউক্যাসল ইউনাইটেড এফসি। রবিবার সেন্ট জেমস পার্ক স্টেডিয়ামে ম্যান ইউ বনাম নিউক্যাসল ম্যাচকে কেন্দ্র করে ফুটবলপ্রেমীদের আগ্রহ ছিল তুঙ্গে। নেপথ্যে হোসে মরিনহো  বনাম রাফায়েল বেনিতেস দ্বৈরথ। দুই হাই প্রোফাইল কোচের মুখোমুখি হওয়া মানেই যুদ্ধের আবহ।

২০০৪ সালে প্রায় একই সঙ্গে ইপিএলে অভিযান শুরু করেন তারা। মরিনহো ছিলেন চেলসির দায়িত্বে। লিভারপুলের ম্যানেজার ছিলেন বেনিতেস। তখন থেকেই দুজনের বাগ্যুদ্ধে বারবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে আবহ। ২০০৫ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিফাইনালের দ্বিতীয় পর্বে লুইস গার্সিয়ার একমাত্র গোলে হেরেছিল চেলসি। ম্যাচের পর ক্ষুব্ধ মরিনহো যাকে 'ভুতুরে গোল' আখ্যা দিয়েছিলেন। 

২০১০ সালে ইন্টার মিলান ছেড়ে রিয়ালে যোগ দেন 'দ্য স্পেশ্যাল ওয়ান'। আর লিভারপুল ছেড়ে বেনিতেস ইতালির ক্লাবটির দায়িত্ব নেওয়ার পরে মরিনহোর মন্তব্য ছিল, 'আমার চেয়ে ভালো করতে পারবে না বেনিতেস।' সংঘাত শুধু দুই হাই প্রোফাইল কোচের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। বেনিতেসের স্ত্রীর সঙ্গেও বাগযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছিলেন মরিনহো! গতকাল অবশ্য মর্যাদার লড়াইয়ে শেষ হাসি হাসলেন বেনিতেসই।

সেন্ট জেমস পার্ক স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথমার্ধ গোলশূন্য ভাবে শেষ হয়। বিরতির পর ৬৯তম মিনিটে ম্যাথিউ রিচি গোল করে এগিয়ে দেন নিউক্যাসলকে। ২০১৬ সালের মে মাসে নিউক্যাসলের হয়ে শেষ গোল করেছিলেন তিনি। প্রায় দুই বছর পরে ম্যান ইউকে হারিয়ে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন ঘটালেন রিচি। তবে নিউক্যাসলের জয়ের আসল নায়ক রিচি নন, গোলকিপার মার্টিন দুব্রাভকা।

অভিষেক ম্যাচেই দুর্ভেদ্য হয়ে উঠেছিলেন দুব্রাভকা। ম্যাচের সেরাও হন মার্টিন। উচ্ছ্বসিত বেনিতেস ম্যাচের পর হাসতে হাসতে বলেছেন, 'আজ লটারির টিকিট কাটলে মার্টিনই হয়তো জিতত। ম্যান ইউ যে ভয়ঙ্কর, সেটা আমাদের কাছে অজানা ছিল না। কিন্তু আমাদের প্রধান অস্ত্র দলগত ঐক্য এবং হার না মানা মানসিকতা। যা আমাদের ম্যাচটা জিততে সাহায্য করেছে।'

বেনিতেসের দলের বিপক্ষে হার কোনোমতেই মেনে নিতে পারছেন না মরিনহো। ম্যাচের পরে ম্যান ইউ ম্যানেজার রেগেমেগে বলেছেন, 'পাশবিক ফুটবল খেলেছে ওরা। আশা করি, আমার এই মন্তব্যকে ওরা খারাপ ভাবে নেবে না। ফুটবল ঈশ্বর আজ ওদের শিবিরেই ছিল। টানা ১০ ঘণ্টা খেললেও ম্যাচটা জিততে পারতাম না। আমাদের গোল করা আটকাতে ওরা যেন জীবন বাজি রেখে নেমেছিল।'

২৭ ম্যাচে ৭২ পয়েন্ট নিয়ে ইপিএল টেবলের দ্বিতীয় স্থানে ম্যান ইউ। সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে শীর্ষে থাকা ম্যাঞ্চেস্টার সিটির পয়েন্ট ৭২। তাই জিতলেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ত না ম্যান ইউয়ের। ম্যাচের পরে হারের কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মরিনহো বলেছেন, 'আমাদের ডিফেন্ডাররা প্রচুর ভুল করেছে। তা ছাড়া অ্যালেক্সিস সানচেজও সহজ গোল নষ্ট করেছে।'



মন্তব্য