kalerkantho


টেস্ট ক্রিকেট বাঁচাতে ম্যাচ ফি বাড়ান: সাঙ্গাকারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২০:০৭



টেস্ট ক্রিকেট বাঁচাতে ম্যাচ ফি বাড়ান: সাঙ্গাকারা

বর্তমান সময়ে যে কোন ফরম্যাটের চেয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের প্রতিই তরুণ ক্রিকেটারদের আকর্ষণ অনেক বেশি। তাই টি-টোয়েন্টি'র পরিবর্তে লংগার ভার্সনের প্রতি তরুণ ক্রিকেটারদের আকৃষ্ট করতে টেস্টের ম্যাচ ফি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে পঞ্চম সর্বোচ্চ রানের মালিক সাঙ্গাকারা গতবছর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন। তবে এখনো বিশ্বব্যাপী ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে খেলে যাচ্ছেন তিনি। চলতি সপ্তাহে হংকংয়ে টি-টোয়েন্টি ব্লিজেও অংশ নিয়েছেন তিনি। ক্রিকেটর ক্ষুদ্র ফরম্যাট বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় হওয়ায় শংকা প্রকাশ করে লঙ্কান লিজেন্ড বলেছেন, এখনই উদ্যোগ না নিলে টেস্ট ক্রিকেট মুখ থুবড়ে পড়বে।


আরও পড়ুন: দুটি পরিবর্তন আসতে পারে ঢাকা টেস্টের একাদশে


বার্তা সংস্থা এএফপিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাঙ্গাকারা বলেন, 'ক্রিকেটকে পরিচিতি করার আদর্শ মঞ্চ হতে পারে টি-টোয়েন্টি। এ নিয়ে আপনি যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনে কথা বলতে পারেন। তবে এর নেতিবাচক দিকও রয়েছে। বিপুল সংখ্যক তরুণ ক্রিকেটার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার চেয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের প্রতি ঝুঁকছে। এর নেপথ্যে কাজ করছে মোটা অংকের অর্থ। বিশেষ করে টেস্ট ক্রিকেটের ম্যাচ ফির বিষয়টিও এখানে বিবেচিত। টি-টোয়েন্টি খেলার তুলনায় টেস্টের ম্যাচ ফির পরিমান অনেক কম। শীর্ষ দেশগুলোর টেস্ট ম্যাচে মোটামুটি কিছু অর্থ পাওয়া যায়। তবে সেটি সবগুলো টেস্ট প্লেয়িং দেশে নয়।'

বর্তমানে আন্তর্জাতিক ম্যাচের ফির অংকেও দেশ ভেদে পার্থক্য আনা হয়েছে। কথিত 'বিগ থ্রি' ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা অন্য দেশের ক্রিকেটারদের তুলনায় বেশি ম্যাচ ফি পায়। গত বছর ইএসপিএনের এক জরিপে দেখা গেছে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ২০১৭ সালে আয় করেছেন ১৪ লাখ ৬৯ হাজার মার্কিন ডলার। অপরদিকে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমার আয় করেছেন মাত্র ৮৬ হাজার মার্কিন ডলার!


আরও পড়ুন: স্যানিটারি ন্যাপকিন হাতে শাস্ত্রী, কোহলি, সিন্ধুরা...


বিশ্বব্যাপী টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দ্রুত প্রসার পাচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশ লিগ ও ভারতের আইপিএল দীর্ঘ সময় ধরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এদের তুলনায় অনেক কম সময় নিচ্ছে বাংলাদেশের বিপিএল, হংকং ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে আয়োজিত টুর্নামেন্ট। গরীব দেশগুলোর ক্রিকেটাররা বেশিরভাগই নিজ দেশের হয়ে টেস্ট খেলে যে পরিমান অর্থ আয় করে তার চেয়ে অনেক বেশি অর্থ আয় করে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে। গত মাসে এমসিসি ও আইসিসির বার্ষিক সভায় বেতন কাঠামোয় সংস্কারের আহ্বান জানানো হয়েছে।

সাঙ্গাকারা বলেন, 'আমাদের বুঝতে হবে টেস্ট ম্যাচ ক্রিকেটারদের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ। একই সঙ্গে দর্শকদের কাছেও খেলাটি পৌঁছে দিতে হবে। এই খেলাটির পরিসর বৃদ্ধিও চেয়েও সেটিকে টিকিয়ে রাখাটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমার মতে এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অনেক বেশি শক্তিশালী। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের তুলনায় সেখানে বেশি সম্মানজনক অবস্থানে রয়েছে টেস্ট।'


মন্তব্য