kalerkantho


বৃষ্টি আইনে আবারো পাকিস্তানকে হারালো নিউজিল্যান্ড

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ২১:৩৩



বৃষ্টি আইনে আবারো পাকিস্তানকে হারালো নিউজিল্যান্ড

বারো বৃষ্টি, আবারো নিউজিল্যান্ডের জয়। প্রথম ওয়ানডেতে যেভাবে বৃষ্টি আইনে সফরকারী পাকিস্তানকে ওয়েলিংটনে ৬১ রানে হারিয়ে সিরিজ সূচনা করেছিল নিউজিল্যান্ড, আজো সেই বৃষ্টিতেই ভেসে গেছে পাকিস্তানের জয়ের স্বপ্ন। নেলসনে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ডাক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে আট উইকেটের জয় তুলে নিয়ে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড।
টস জয়ী পাকিস্তানের ৯ উইকেটে ২৪৬ রানের জবাবে ১৪ ওভারে দুই উইকেটে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ যখন ৬৪ তখনই বৃষ্টির কারণে দুই ঘন্টারও বেশী সময় খেলা বন্ধ থাকে। পুনরায় খেলা শুরু হলে নিউজিল্যান্ডের সামনে জয়ের নতুন লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৫ ওভারে ১৫১। অর্থাৎ বাকি ১১ ওভারে জয়ের জন্য নিউজিল্যান্ডের প্রয়োজন ছিলো ৮৭ রান।
নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন্ উইলিয়ামসন বলেছেন, ‘ইনিংসের শেষের দিকে পাকিস্তান স্কোর সমৃদ্ধ করার চেষ্টা করেছে। ওই সময় পাকিস্তান কিছু পার্টনারশীপও গড়ে তোলার চেষ্টা করে যে কারনে মোটামুটি একটা লড়াকু স্কোর তারা সংগ্রহ করে। কিন্তু আমার মনে হয় বৃষ্টির কারণে ম্যাচ বন্ধ থাকাটা আমাদের জন্য কিছুটা হলেও সুবিধা এনে দিয়েছে। তবে এ ক্ষেত্রে মার্টিন গাপটিল ও রস টেইলরের অসাধারণ পার্টনারশীপের প্রশংসা করতেই হয়। যে কারণে সাত বল বাকি থাকতে নিউজিল্যান্ডে জয় সম্ভব হয়েছে।’
ম্যাচ বন্ধ হবার আগে ৪০ বলে ৩১ রানে অপরাজিত থাকা ওপেনিং ব্যাটসম্যান গাপটিল শেষ পর্যন্ত ৭১ বলে ৮৬ রানে অপরাজিত ছিলেন। অন্যদিকে ৪৩ বলে টেইলরের ব্যাট থেকে এসেছে অপরাজিত ৪৫ রান। তৃতীয় উইকেটে এই জুটি ম্যাচজয়ী ১০৪ রান যোগ করেন।
উইলিয়ামসন বলেন, বৃষ্টিতে ম্যাচ বন্ধ থাকার পরে মার্টিন ও রস যখন ক্রিজে ফিরে আসে দু’জনেই অসাধারণ খেলেছে। বিশেষ করে মার্টিনের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করতেই হয়। অন্যদিকে রসও ছিলেন বেশ স্বাচ্ছন্দ্য।
এদিকে পাকিস্তানী অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ বলেছেন, ‘ব্যাটিং নিয়ে আমি দারুন হতাশ। প্রথম ১০ ওভার আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কিন্তু ঐ ১০ ওভারেই আমরা বেশকটি উইকেট হারিয়েছি। তবে লোয়ার অর্ডারে ব্যাটসম্যানরা ভাল করার চেষ্টা করেছে।’
টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া পাকিস্তানের জন্য টপ অর্ডারে মোহাম্মদ হাফিজের ৬০ রান ছাড়া তেমন কোন উল্লেখযোগ্য ইনিংস ছিলনা। ৩৭ ওভারে ৭ উইকেটে পাকিস্তান মাত্র ১৪১ রান সংগ্রহ করে। অষ্টম উইকেটে শাদাব খানের ৫২ ও হাসান আলীর ৫১ রানে ৭০ রানের পার্টনারশীপ না হলে সফরকারীদের ইনিংস হয়ত আরো আগেই থেমে যেত।
তারপরেও প্রথম ১০ ওভারের মধ্যে ৪৭ রানে কলিন মুনরো (০) ও উইলিয়ামসকে (১৯) ফিরিয়ে দিয়ে পাকিস্তান সিরিজে সমতা ফেরাতে কিছুটা আশাবাদী হয়ে উঠেছিল। কিন্তু টেইলর ও গাপটিল ক্রিজে আসার পরে সব পরিসংখ্যান পাল্টে যায়।
আগামী শনিবার ডানেডিনে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
পাকিস্তান ৯ উইকেটে ২৪৬ (হাফিজ ৬০, শাদাব ৫২, হাসান ৫১ : ফার্গুসন ৩-৩৯, এ্যাস্টেল ২-৫০, সাউদি ২-৫৭)
নিউজিল্যান্ড ২ উইকেটে ১৫১, ২৩.৫ ওভার (গাপটিল ৮৬*, টেইলর ৪৫* : আমির ১-১৮, ফাহিম ১-৩০)
ফল : নিউজিল্যান্ড ৮ উইকেট জয়ী (ডার্ক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতি)
সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে নিউজিল্যান্ড ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে
ম্যান অব দ্য ম্যাচ : মার্টিন গাপটিল (নিউজিল্যান্ড)



মন্তব্য